আজ: সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১ইং, ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৮ নভেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার |



kidarkar

নৌকা-বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ, আহত ১০

জাতীয় ডেস্ক: পাবনার বেড়া পৌরসভার নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মেয়র পদে নৌকা ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন।

বুধবার (১৭ নভেম্বর) রাতে পৌরসভার হাতিগাড়া চৌরাস্তা মোড়ে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) সকালে বেড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অরবিন্দ সরকার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আহতরা হলেন— নৌকার সমর্থক মুন্নাফ আলী, আল মাহমুদ, আরিফুল ইসলাম, শাহাদত প্রামাণিক, মিলন ফকির, ফারুক খান, শাহিন খাঁ, দুলাল প্রমানিক। অন্যদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। আহতদের উদ্ধার করে বেড়ার বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে ওসি জানান, নৌকার ও বিদ্রোহী প্রার্থীর নির্বাচনি প্রচারণা মিছিল বের হলে হাতিগাড়া চৌরাস্তা মোড়ে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ সৃষ্টি হয়। এ ঘটনায় আহত অন্তত ১০ জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায় তাদের সমর্থকরা। এ সময় কয়েকটি নির্বাচনি অফিসও ভাঙচুর করা হয়।

নৌকা প্রতীকের প্রার্থী অ্যাডভোকেট আসিফ শামস রঞ্জন জানান, বুধবার রাতে বেড়া পৌরসভার নির্বাচনি প্রচারণার লক্ষ‌্যে তার সমর্থকেরা একটি মিছিল বের করে হাতিগাড়া চৌরাস্তা মোড়ে পৌঁছায়। এ সময় বিপরীত দিক থেকে নারিকেল গাছ মার্কার প্রার্থী আব্দুল বাতেন ও তার সমর্থকরা আরেকটি মিছিল নিয়ে আসে এবং অতর্কিত নৌকার মিছিলে হামলা চালিয়ে মারপিট করে। মিছিলকারীরা ছত্রভঙ্গ হলে নারিকেল গাছ মার্কার প্রার্থী আব্দুল বাতেনের সমর্থকরা নৌকার নির্বাচনি অফিস ভাঙচুর করে। এ ঘটনান খবর পেয়ে বেড়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসলে বাতেন ও তার সমর্থকেরা পালিয়ে যায়।

এ সংবাদ ছড়িয়ে পরলে পৌর এলাকার আওয়ামী লীগ সমর্থকরা মাঠে নেমে বাতেনেরে বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। এলাকায় টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এ বিষয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল বাতেন বলেন, ‘নৌকার প্রার্থী জন বিচ্ছিন্ন হয়ে একেরপর এক মিথ্যা অপবাদ ছড়াচ্ছে। আমাদের প্রচারণা মিছিলে নৌকার লোকজন হামলা করে অনেক নেতাকর্মীকে মারধর করে। তারাই আমাদের লোকের ওপর হামলা করে, আবার তারাই উল্টো আমাদের নামে মিথ্যে অভিযোগ তুলছে। নির্বাচনে নিশ্চিত পরাজয় জেনে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে নৌকার প্রার্থী ও তার সমর্থকরা।’

ওসি অরবিন্দ সরকার জানান, এ ঘটনায় যদি কেউ লিখিত অভিযোগ দেয় তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত কেউ অভিযোগ দেয়নি।

জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা ও বেড়া পৌর নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মাহাবুবুর রহমান বলেন, ‘সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য আমরা সবাইকে বলে আসছি। কোনো প্রকার সহিংসতা না করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তারপরও যদি কেউ সংঘর্ষে লিপ্ত হয় তাহলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

 

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.