আজ: বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২ইং, ১৩ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৩শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০২ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার |



kidarkar

বছরের ব্যবধানে সিআরএমের জনপ্রিয়তা বেড়েছে ৪৭০ শতাংশ!

এ জেড ভূঁইয়া আনাস: প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে ব্যাংক খাত। দেরীতে হলেও প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে গ্রাহকবান্ধব হচ্ছে দেশের ব্যাংকিং ব্যবস্থা। বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে এটিএমের পাশাপাশি টাকা জমা দেয়ার মেশিনের জনপ্রিয়তা বাড়ছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য বলছে, বছরের ব্যবধানে সিআরএম মেশিনে টাকা জমা বেড়েছে ২ হাজার ৫০৭ কোটি ৩০ লাখ টাকা, যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ৪৭০.৮১ শতাংশ বেশি।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, করোনার পরবর্তী বাণিজ্য পরিস্থিতি স্থিতিশীল হওয়ায় ব্যবসায়ীদের ব্যাংকে আনাগোনা বেড়েছে। যার কারণে টাকা জমা দিয়ে গিয়ে লাইনে দাঁড়াতে হচ্ছে গ্রাহকদের। এই ঝামেলা থেকে বাঁচতেই গ্রাহকরা সিআরএমে ঝুঁকছে।

২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে নামমাত্র কিছু সিআরএমে টাকা জমা পড়েছিল। কিন্তু বছর ঘুরতেই ব্যাংকে লাইনে দাঁড়িয়ে টাকা জমা দেয়ার চেয়ে সিআরএমে টাকা জমা দেয়ার প্রবণতা বেড়েছে গ্রাহকদের মাঝে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হালনাগাদ তথ্য বলছে, গত বছরের সেপ্টেম্বরে যেখানে সিআরএম এ টাকা জমা দেওয়া হয়েছিলো ৬৭৬ কোটি ১০ লাখ টাকা। সেখানে বছরের ব্যবধানে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ১৮৩ কোটি ৪০ লাখ টাকায়। সে হিসেবে বছরের ব্যবধানে সিআরএম-এ টাকা জমা দেওয়ার পরিমাণ বেড়েছে ২ হাজার ৫০৭ কোটি ৩০ লাখ টাকা, যা গত অর্থবছরের এই সময়ের চেয়ে ৪৭০.৮১ শতাংশ বেশি।

আর জানুয়ারি মাসে সিআরএমে টাকা জমা পড়ে ১ হাজার ৯০২ কোটি টাকা। সে হিসেবে নয় মাসে বেড়েছে ১ হাজার ২৮১ কোটি ৪০ লাখ টাকা।

দেশের সবচেয়ে বড় বেসরকারি ব্যাংক ইসলামী ব্যাংক থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ব্যাংকটির মোট সিআরএম মেশিনের সংখ্যা ৫৮৩ টি। এই সিআরএমগুলোতে প্রতিদিন গড়ে ১০ হাজারের বেশি গ্রাহক টাকা জমা দেন বলে জানিয়েছে ব্যাংকটি।

ব্যাংকাররা বলছেন, করোনা পরবর্তীতে সিআরএম-এ টাকা জমা দেওয়ার প্রবণতা অনেকাংশই বেড়েছে। টাকা জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে গ্রাহকরা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে চাননা বলেও মনে করেন তারা।

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম শেয়ারবাজার নিউজকে বলেন, গতবছর করোনার কারণে মানুষ ঘর থেকে কম বেরিয়েছে। আর ব্যাংকগুলো খোলা থাকলেও ছিলো সীমিত পরিসরে। যে কারণে সামগ্রিকভাবে ব্যাংকেই লেনদেন কম ছিলো। এখন করোনা পরবর্তী অর্থনীতি চাঙ্গা হয়েছে। যে কারণে ব্যাংকগুলোতেও ভীড় বেড়েছে। এ কারণে মানুষ লাইনে দাঁড়িয়ে টাকা জমা দেওয়ার বদলে সিআরএমের দিকে ঝুঁকছেন বলেও মনে করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের এই নির্বাহী পরিচালক।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.