আইডিআরএ’র অদক্ষতায় বীমায় বাস্তবায়ন হচ্ছে না সুষম অর্গানোগ্রাম

insuranceশেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশে ব্যবসারত বীমা প্রতিষ্ঠানসমূহের বিদ্যমান সাংগঠনিক কাঠামো (অর্গানোগ্রাম) অত্যন্ত দুর্বল ও অসাঞ্জস্যপূর্ণ। পরিণতিতে এ খাতের কোম্পানিগুলোতে চেইন অব কমান্ড রক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে না। জাতীয় বীমা নীতিতেও বিষয়টি গুরুত্বের সাথে উল্লেখ করা হয়েছে। তাছাড়া প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও)পরবর্তী পদের ধারাবাহিকতা ও সংজ্ঞায় অসামঞ্জস্যতা রয়েছে। এতে আইন অনুযায়ী সিইও নিয়োগে বাড়ছে জটিলতা।

প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, আইডিআরএ গঠনের পূর্বে বীমা অধিদপ্তর দীর্ঘদিন বীমা ব্যবসার নিয়ন্ত্রক হিসেবে থাকলেও সকল বীমাকারীর জন্য একই বা সুষম সাংগঠনিক কাঠামো প্রণয়নের উদ্যোগ গ্রহণ করেনি। পরবর্তীতে আইডিআরএ গঠনের পর যুগোপযোগী ও আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত পদ্ধতিসমূহের ব্যবহারের মাধ্যমে দেশের বীমা খাতের তদারকি ও উন্নয়নের যাত্রা গতিশীল করার লক্ষ্যে আইডিআরএ ইন্টারন্যাশনাল এসোসিয়েশন অব ইন্স্যুরেন্স সুপারভাইসরস (আইএআইএস) এর সদস্য হয়। আইএআইএস প্রণীত ইন্স্যুরেন্স কোর প্রিন্সিপাল (আইসিপি) এ প্রদত্ত নির্দেশনা বাস্তবায়নের ধারাবাহিকতায় ২০১২ সালে সকল বীমাকারীর জন্য একই রুপ সাংগঠনিক কাঠমো প্রণয়নের উদ্দেশ্যে একটি কমিটি গঠন করে আইডিআরএ। তৎকালীন সময়ে গঠিত কমিটি একই সাংগঠনিক কাঠমো প্রণয়নের উদ্দেশ্য পূরণের জন্য সকল বীমাকারী-কে প্রয়োজনীয় সুপারিশ ও মডেল তৈরির নির্দেশনা দেয়। পরবর্তীতে সরকারের প্রণীত জাতীয় বীমা নীতিতেও এ বিষয়ে গুরুত্বারোপ করা হয়। এর আলোকে সে সময়ে একমাত্র বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লি: কমিটির কাছে সাংগঠনিক কাঠামো প্রণয়নে সহায়ক সার্ভিসরুল পেশ করে। কিন্তু রহস্যজনক কারণে আর কোন বীমাকারীই এ বিষয়ে পদক্ষেপ না নেয়ার পাশাপাশি কমিটি থেকেও আর কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। আর গঠিত কমিটির কার্যক্রম সম্পর্কে বর্তমান দায়িত্বশীলরাও অবহিত নয় বলে জানা যায়।

এদিকে বর্তমানে ব্যবসারত বীমা কোম্পানিগুলোর মধ্যে রাষ্ট্রায়ত্ব বীমা কর্পোরেশনে ব্যবস্থাপনা পরিচালক পদের পরই মহা-ব্যবস্থাপকের পদ রয়েছে। কর্পোরেশনে ডিএমডি কিংবা প্রেসিডেন্ট পদ নেই। অথচ বেসরকারী কোম্পানিগুলোতে মহা-ব্যবস্থাপক, উপ-মহাব্যবস্থাপক, নির্বাহী প্রেসিডেন্ট ইত্যাদি পদ রয়েছে।

পরিণতিতে বীমা শিল্পে বিশৃঙ্খলা বাড়ছে। যা কুফল বীমা গ্রাহক এবং শেয়ারহোল্ডারদেরকেই বহন করতে হচ্ছে।

এ বিষয়ে একাধিক বীমা কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের মতে, ‘বীমা প্রতিষ্ঠানসমূহের সুষম সাংগঠনিক কাঠামো বা অর্গানোগ্রাম না থাকায় সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা ব্যহত হচ্ছে। তাই বীমা খাতে দক্ষ ব্যবস্থাপনা তৈরি হচ্ছে না। তাছাড়া বীমা ব্যবসা উপযোগী কর্পোরেট গভর্ন্যান্স গাইড লাইনও নেই। পরিণতিতে বীমা প্রতিষ্ঠানগুলোতে সুনির্দিষ্ট চাকুরী বিধিমালা না থাকার পাশাপাশি সুনির্দিষ্ট কর্ম পরিধিরও ব্যাপক অভাব রয়েছে। এতে বীমা ব্যবসা সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত হচ্ছে না। আর বীমা কোম্পানিগুলোতে নতুন সিইও নিয়োগে আইনি বাধ্যবাধকতা পূরণ করা সম্ভব হচ্ছে না। পরিণতিতে বীমা কোম্পানিগুলো গ্রাহক সন্তুষ্টি হারাচ্ছে। আর এর নেতিবাচক প্রভাব প্রিমিয়াম আয়ের ওপর পড়ছে’।

জনতা ইন্স্যুরেন্সের চিফ ফাইন্যান্সিয়াল অফিসার ও কোম্পানি সেক্রেটারি মো: সাইফুল ইসলাম এ বিষয়ে শেয়ারবাজারনিউজ ডটকমকে বলেন, ‘বীমা প্রতিষ্ঠানগুলোতে একই সাংগঠনিক কাঠামো বা অর্গানোগ্রাম না থাকায় বীমা ব্যবসা পরিচালনায় চেইন অব কমান্ড ব্যহত হচ্ছে। আর কোম্পানিগুলোতে বিদ্যমান অসামঞ্জস্য পদের কারণে সুস্পষ্ট কর্মপরিধি নিশ্চিত নয়। যেমন কিছু কোম্পানিতে শাখা প্রধানকে ভাইস প্রেসিডেন্ট পদবী দেয়া হচ্ছে। আবার কোন কোন কোম্পানিতে ডিএমডি পদমর্যাদায় শাখা প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে। একই কাজের জন্য মহা-ব্যবস্থাপক পদমর্যাদায়ও নিয়োগ হচ্ছে। কিন্তু এ পদবীগুলোর সংজ্ঞা ও ক্ষমতা এক এক কোম্পানিতে এক এক রকম। তাই নিয়োগের ক্ষেত্রে এবং কাজ করার ক্ষেত্রে নানান প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হচ্ছে’।

অপরদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে অপর এক নন-লাইফ কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ বিষয়ে বলেন, ‘একই সাংগঠনিক কাঠামো না থাকায় বর্তমানে বীমা ব্যবসা পরিচালনায় অত্যন্ত বিশৃঙ্খল পরিবেশ বিরাজ করছে। কারণ বীমা ব্যবসায় মার্কেটিং এর ওপর বেশী জোর দেয়া হয়। তাছাড়া যারা ডেস্ক এ কাজ করে তাদের তুলনায় মার্কেটিং বিভাগে কর্মরতদের ক্ষমতা অনেক কম থাকা সত্ত্বেও তাদের প্রভাব সবচেয়ে বেশি। তাই এ বিষয়ে সুষ্ঠু জবাবদিহিতা না থাকায় এর নেতিবাচক প্রভাব বীমা ব্যবসার ওপর পড়ছে। পাশাপাশি গ্রাহক হয়রানিও বাড়ছে’।

জানতে চাইলে এ বিষয়ে আইডিআরএ’র সদস্য মো: কুদ্দুস খান শেয়ারবাজারনিউজ ডটকমকে বলেন, ‘ব্যবসা পরিচালনাকারী প্রত্যেকটি প্রতিষ্ঠানের দক্ষ ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা থাকা জরুরি। এর জন্য প্রয়োজন সুষম সাংগঠনিক কাঠামো। আর বীমা খাতে সুষম সাংগঠনিক কাঠামো নেই যা অত্যন্ত দু:খজনক। তাই বীমা খাতের ব্যবস্থাপনা মান এর উন্নয়ন ও যুগোপযোগী করার লক্ষ্যে সকল বীমাকারীর জন্য একই সাংগঠনিক কাঠামো প্রণয়নের লক্ষ্যে আইডিআরএ জাতীয় বীমা নীতি অনুযায়ী বর্তমানে বেশ কিছু পরিকল্পনা নিয়েছে’।

এদিকে বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান শেখ কবির হোসেন এ বিষয়ে শেয়ারবাজারনিউজ ডটকমকে বলেন, ‘সকল বীমাকারীর জন্য একই অর্গানোগ্রাম প্রণোয়ন করা সম্ভব হলে তা বীমা ব্যবসায় ইতিবাচক প্রভাব বয়ে আনবে। তবে এর জন্য বীমা নিয়ন্ত্রক সংস্থাকেই পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।’

 

শেয়ারবাজারনিউজ/আ/ও

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top