মুনাফায় সেরা ২০ কোম্পানি

fake taka1শেয়ারবাজার রিপোর্ট: ডিসেম্বর ক্লোজিং’এ বেশিরভাগ কোম্পানির অর্ধবার্ষিক (জানুয়ারি-জুন ১৫) আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। প্রকাশিত ১০৪ কোম্পানির আর্থিক প্রতিবেদন নিয়ে শেয়ারবাজার নিউজ ডটকম সেরা ২০টি কোম্পানি বাছাই করেছে। যেগুলোর ইপিএস গত অর্থবছরের তুলনায় উল্লেখযোগ্য পরিমানে বেড়েছে।

এক্ষেত্রে গত অর্থবছরের তুলনায় কোম্পানিগুলোর ইপিএস বৃদ্ধির তালিকায় প্রথম স্থানে রয়েছে বস্ত্রখাতের শাশা ডেনিমস। এছাড়া তালিকায় অন্যান্য কোম্পানিগুলো হলো: ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড, আইডিএলসি, বিডি থাই, এনভয় টেক্সটাইল, প্রাইম ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক, শাহ জালাল ইসলামী ব্যাংক, ফাস ফাইন্যান্স, সিটি ব্যাংক, রেকিট বেনকিজার, আইপিডিসি, আরামিট সিমেন্ট, ইবনে সিনা, আরএকে সিরামিক, ইউনাইটেড পাওয়ার, বোক্সিমকো ফার্মা, বেক্সিমকো, এনসিসি ব্যাংক এবং ইউনিয়ন ক্যাপিটাল লিমিটেড।

নিচে ক্রমান্বয়ে কোম্পানিগুলোর আর্থিক প্রতিবেদনের সারমর্ম বিশ্লেষণ করা হল:

শাশা ডেনিমস:

আর্থিক বছরের প্রথম ছয়মাসে শাশা ডেনিমসের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৬২ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ২.২০ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৪১.৫৭ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.০৭ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ৩.২৮ টাকা এবং এনএভিপিএস ছিল ২৬.৬১ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ২.৫৫ টাকা বা ৩ হাজার ৬৪২.৮৬ শতাংশ।

এছাড়া, গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৫৪ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল ০.১২ টাকা।

ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড:

আর্থিক বছরের প্রথম ছয়মাসে ব্যাংক খাতের কোম্পানি ইসলামী ব্যাংকের কর পরিশোধের পর মুনাফা হয়েছে (excluding non-controlling interests) ৩৩৯ কোটি ৫২ লাখ ৪০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.১১ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে মুনাফা হয়েছিল ৯৭ কোটি ৪০ লাখ ৬০ হাজার টাকা এবং ইপিএস ছিল ০.৬১ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির মুনাফা বেড়েছে ২৪২ কোটি ১১ লাখ ৮০ হাজার টাকা এবং ইপিএস বেড়েছে ১.৫০ টাকা বা ২৪৫.৯০ শতাংশ।

এদিকে, গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) কোম্পানির কর পরিশোধের পর মুনাফা হয়েছে ২৯৯ কোটি ৪৪ লাখ ৬০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৮৬ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ৫৯ কোটি ১০ হাজার টাকা এবং ০.৩৭ টাকা ছিল।

আইডিএলসি ফাইন্যান্স:

অর্ধবার্ষিকে আইডিএলসি ফাইন্যান্সের কর পরিশোধের পর মুনাফা হয়েছে ৮১ কোটি ৭৭ লাখ টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩.২৫ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ৩০ কোটি ৬৫ লাখ ৮০ হাজার টাকা এবং ছিল ১.২২ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির মুনাফা বেড়েছে ৫১ কোটি ১১ লাখ ২০ হাজার টাকা এবং ইপিএস বেড়েছে ২.০৩ টাকা বা ১৬৬.৩৯ শতাংশ।

এদিকে গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) কোম্পানির কর পরিশোধের পর মুনাফা হয়েছে ৬৭ কোটি ৫ লাখ ৩০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৬৭ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ৩৫ কোটি ১৫ লাখ ২০ হাজার টাকা এবং ছিল ১.৪০ টাকা।

বিডি থাই অ্যালুমিনিয়াম:

দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে বিডি থাই অ্যালুমিনিয়ামের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.০৩ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ১.৯৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ৪৭.৯৪ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৩৯ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ১.৫৩ টাকা (নেগেটিভ) এবং ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে এনএভি ছিল ৪৬.৯৪ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ০.৬৪ টাকা বা ১৬৪.১০ শতাংশ।

এদিকে, গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৪ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.২০ টাকা।

এনভয় টেক্সটাইল:

তৃতীয় প্রান্তিক শেষে এনভয় টেক্সটাইলের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩.৫৫ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ১.১৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ৩৯.৬৯ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ১.৪৮ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ৪.৪৬ টাকা (নেগেটিভ) এবং ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে এনএভি ছিল ৩৮.৪২ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ২.০৭ টাকা বা ১৩৯.৮৬ শতাংশ।

এদিকে, গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.১১ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল ০.৭৮ টাকা।

প্রাইম ব্যাংক:

আর্থিক বছরের প্রথম ছয়মাসে ব্যাংক খাতের কোম্পানি প্রাইম ব্যাংকের কর পরিশোধের পর মুনাফা হয়েছে (excluding non-controlling interests) ২১৬ কোটি ৯৯ লাখ ৯০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.১১ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ১০১ কোটি ১৯ লাখ ৯০ হাজার টাকা এবং ০.৯৮ টাকা ছিল। সে হিসেবে কোম্পানির মুনাফা বেড়েছে ১১৫ কোটি ৮০ লাখ টাকা এবং ইপিএস বেড়েছে ১.১৩ টাকা বা ১১৫.৩১ শতাংশ।

এদিকে গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) এ কোম্পানিটির কর পরিশোধের পর মুনাফা হয়েছে (excluding non-controlling interests) ১৩৮ কোটি ৭৮ লাখ ৭০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৩৫ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে কোম্পানি লোকসানে ছিল। লোকসানের পরিমাণ ছিল যথাক্রমে ২৭ কোটি ৬৬ লাখ ৯০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ০.২৭ টাকা।

ঢাকা ব্যাংক:

আর্থিক বছরের প্রথম ছয়মাসে ঢাকা ব্যাংকের সমন্বিত শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৫৮ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ২১.০৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ১.৭৯ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ০.৮০ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ৪.৭২ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদ মূল্য ১৮.৩০ টাকা ছিল। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.৭৮ টাকা বা ৯৭.৫০ শতাংশ।

এদিকে, গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.১৫ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল ০.৩৫ টাকা।

শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক:

আর্থিক বছরের প্রথম ছয়মাসে শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের কর পরিশোধের পর সমন্বিত মুনাফা হয়েছে (excluding non-controlling interests) ৫৭ কোটি ২২ লাখ ২৪ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৭৮ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে কোম্পানির লোকসান ছিল ৫৯ কোটি ৪১ লাখ ২০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ০.৮১ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির মুনাফা বেড়েছে ১১৬ কোটি ৬৩ লাখ ৪৪ হাজার টাকা বা ৯৬.৩০ শতাংশ ।

এদিকে গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) এ কোম্পানিটির কর পরিশোধের পর মুনাফা সমন্বিত হয়েছে (excluding non-controlling interests) ৩৮ কোটি ৪৯ লাখ ৭০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৫৩ টাকা।  আগের বছরে একই সময়ে কোম্পানির লোকসান ছিল ৪৩ কোটি ৪২ লাখ ৭০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ০.৫৯ টাকা।

ফাস ফাইন্যান্স:

দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে ফাস ফাইন্যান্সের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৫১ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ১৪.০৫ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ৭.০৯ টাকা (নেগেটিভ)। আগের বছরে একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ০.২৬ টাকা, এনওসিএফপিএস ৩.০০ টাকা ছিল এবং ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে এনএভিপিএস ছিল ১৩.৫৯ টাকা । সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.২৫ টাকা বা ৯৬.১৫ শতাংশ।

এদিকে, গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৫৮ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল ০.১৪ টাকা।

সিটি ব্যাংক:

দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে সিটি ব্যাংকের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৭১ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ০.৭১ টাকা (ঋণাত্মক) এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ২৭.১২ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ০.৮৯ টাকা,  এনওসিএফপিএস ছিল ০.৬৮ টাকা (ঋণাত্মক) এবং ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে এনএভি ছিল ২৬.৭৫ টাকা । সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.৮২ টাকা বা ৯২.১৩ শতাংশ।

এদিকে, গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.০৮ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল ০.৬৪ টাকা।

রেকিটবেনকিজার:

দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে রেকিট-বেনকিজারের কর পরিশোধের পর মুনাফা হয়েছে ১৩ কোটি ৭৪ লাখ ৮০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২৯.১০ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ৮ কোটি ৫৯ লাখ ২০ হাজার টাকা এবং ১৮.১৮ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির মুনাফা বেড়েছে ৫ কোটি ১৫ লাখ ৬০ হাজার টাকা এবং ইপিএস বেড়েছে ১০.৯২ টাকা বা ৬০.০৭ শতাংশ।

এদিকে, গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) কোম্পানির কর পরিশোধের পর মুনাফা হয়েছে ৫ কোটি ৬৪ লাখ ৭০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১১.৯৫ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে যথাক্রমে ৫ কোটি ৪৮ লাখ টাকা এবং ১১.৬০ টাকা ছিল।

আইপিডিসি:

দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে আইপিডিসির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৬৬ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ২.৭০ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ১৮.৩৬ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ০.৪২ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ০.৯৯ টাকা এবং ৩০ জুন ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে এনএভি ছিল ১৮.১৫ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.২৪ টাকা বা ৫৭.১৪ শতাংশ।

এদিকে, গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৩২ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল ০.২৮ টাকা।

আরামিট সিমেন্ট:

দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে আরামিট সিমেন্টের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৪৫ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ৩.২৮ টাকা (নেগেটিভ) এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ১৪.৯৪ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৩১ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ৪.৪৩ টাকা (নেগেটিভ) এবং ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে এনএভি ছিল ১৫.৪৯ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ০.১৪ টাকা বা ৪৫.১৬ শতাংশ।

এদিকে, গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৭ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল ০.২২ টাকা।

ইবনে সিনা:

দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে ইবনে সিনার শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৪১ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ২.২৪ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ২৬.৮৯ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ১.৬৮ টাকা, এনওসিএফপিএস ৩.৮৫ টাকা এবং এনএভিপিএস ২৯.৪০ টাকা ছিল । সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.৭৩ টাকা বা ৪৩.৪৫ শতাংশ।

এদিকে, গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৩১ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল ১ টাকা।

 

আরএকে সিরামিক:

দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে সিরামিকস খাতের কোম্পানি আরএকে সিরামিকসের কর পরিশোধের পর মুনাফা সমন্বিত হয়েছে (excluding non-controlling interests) ৪২ কোটি ১৬ লাখ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.২৫ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ২৯ কোটি ৭৭ লাখ ৯০ হাজার টাকা এবং ০.৮৮ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির মুনাফা বেড়েছে ১২ কোটি ৩৮ লাখ ১০ হাজার টাকা এবং ইপিএস বেড়েছে ০.৩৭ টাকা বা ৪২.০৫ শতাংশ।

এদিকে গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) এ কোম্পানিটির কর পরিশোধের পর মুনাফা হয়েছে (excluding non-controlling interests) ১৮ কোটি ৮৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৫৬ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ১২ কোটি ১৩ লাখ ২০ হাজার টাকা এবং ০.৩৬ টাকা।

ইউনাইটেড পাওয়ার:

দ্বিতীয় প্রান্তিকে ইউনাইটেড পাওয়ারের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪.৫৭ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ৫.০৯ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ৩২.০২ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ৩.২২ টাকা, এনওসিএফপিএস ৩.৫১ টাকা এবং ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে এনএভি ২৬.৭৯ টাকা ছিল। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ১.৩৫ টাকা বা ৪১.৯৩ শতাংশ।

এদিকে, গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৪৮ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল ১.৭৬ টাকা।

বেক্সিমকো লিমিটেড:

দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে বেক্সিমকো লিমিটেডের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৫৩ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস) ছিল ১৪.৫৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৭৩.৫১ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ০.৩৮ টাকা, এনওসিএফপিএস ১৮.৯৫ টাকা এবং ৩১ ডিসেম্বর ১৪ সমাপ্ত অর্থ বছরে এনএভি ছিল ৮৩.৯৩ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.১৫ টাকা বা ৩৯.৪৭ শতাংশ।

গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৮ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ০.১৪ টাকা ছিল।

বেক্সিমকো ফার্মা:

দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে ওষুধ ও রসায়ন খাতের কোম্পানি বেক্সিমকো ফার্মার কর পরিশোধের পর মুনাফা হয়েছে ১০০ কোটি ৯১ লাখ ৬০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৬১ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে তা যথাক্রমে ৭২ কোটি ৪২ লাখ ৭০ হাজার টাকা এবং ১.৮৮ টাকা ছিল। সে হিসেবে কোম্পানির মুনাফা বেড়েছে ২৮ কোটি ৪৮ লাখ ৯০ হাজার টাকা এবং ইপিএস বেড়েছে ০.৭৩ টাকা বা ৩৮.৮৩ শতাংশ।

এদিকে, গত তিন মাসে (এপ্রিল’-জুন’১৫) কোম্পানির কর পরিশোধের পর মুনাফা হয়েছে ৬০ কোটি ২৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৫৬ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ৩৯ কোটি ৪৪ লাখ ৯০ হাজার টাকা এবং ১.০২ টাকা।

এনসিসি ব্যাংক:

দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে ব্যাংক খাতের কোম্পানি এনসিসি ব্যাংকের কর পরিশোধের পর সমন্বিত মুনাফা হয়েছে (excluding non-controlling interests) ৪৮ কোটি ২২ লাখ ১০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৫৫ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ৩৪ কোটি ৯৯ লাখ ৬০ হাজার টাকা এবং ০.৪০ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির মুনাফা বেড়েছে ১৩ কোটি ২২ লাখ ৫০ হাজার টাকা বা ৩৭.৭৯ শতাংশ।

এদিকে, গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) কোম্পানির কর পরিশোধের পর সমন্বিত মুনাফা হয়েছে ২২ কোটি ৪৫ লাখ ৯০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৫ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ২২ কোটি ৯৪ লাখ ৩০ হাজার টাকা এবং ০.২৬ টাকা।

ইউনিয়ন ক্যাপিটাল:

দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে ইউনিয়ন ক্যাপিটালের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে (Consolidated) ০.৪১ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) (Consolidated) ৭.৯৮ টাকা (নেগেটিভ) এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে (Consolidated) ১৭.৭৬ টাকা। আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল (Consolidated) ০.৩০ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল (Consolidated) ৩.৩১ টাকা (নেগেটিভ) এবং এনএভিপিএস ছিল (Consolidated) ১৫.৪২ টাকা । সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ০.১১ টাকা বা ৩৬.৬৭ শতাংশ।

এদিকে, গত তিন মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৫) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে (Consolidated) ০.২৭ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল (Consolidated) ০.১৭ টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু/সা/ওহসি

 

আপনার মন্তব্য

Top