সাপ্তাহিক লুজারের শীর্ষে শাহজিবাজার

গত সপ্তাহে লেনদেন হওয়া চার কার্যদিবসের মধ্যে তিন কার্যদিবস দর কমায় সাপ্তাহিক লুজার তালিকার শীর্ষে উঠে এসেছে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের শাহজিবাজার পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেড। দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সপ্তাহজুড়ে এ শেয়ারের দর কমেছে ১৬.৮৬ শতাংশ। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

গত সপ্তাহে এ কোম্পানির ৪ কোটি ২৬ লাখ ৭৮ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে । আর দৈনিক গড়ে লেনদেন করেছে মোট ১ কোটি ৬ লাখ ৬৯ হাজার ৫০০ টাকার শেয়ার ।

লেনদেন শুরুর পর সর্বপ্রথম ৩ আগস্ট শাহজিবাজার পাওয়ারের শেয়ার দর কোনো মূল্য সংবেদনশীল তথ্য ছাড়াই অস্বাভাবিকহারে বাড়ার কারণ অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ একচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। এজন্য গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন দাখিলের আগেই তদন্তে সহায়তা ও বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে গত ১১ আগস্ট এ কোম্পানির লেনদেন অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করে ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ। এদিকে স্থগিতের আগের ১৪ কার্যদিবস এ শেয়ারের দর বাড়ে ৫৪.২ টাকা বা ১৫৫ শতাংশ বা ২.৫ গুণ। এরপর বেশ কয়েকদিন লেনদেন বন্ধ রাখার পর নানা নাটকীয়তার মধ্যে চালু হয় শাহজিবাজারের লেনদেন। চালু হবার পরও শেয়ারটির দর অস্বাভাবিকহারে বাড়তে থাকায় ৯ নভেম্বর আবারো দ্বিতীয় তদন্ত কমিটি গঠন করে নিয়ন্ত্রণ সংস্থা। অবশেষে গত ১৮ নভেম্বর, ৫৩২তম কমিশন সভায় বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে শাহজিবাজার পাওয়ারের শেয়ার স্পট মার্কেটে লেনদেন করার নির্দেশ দেয় বিএসইসি। পাশাপাশি এ সিকিউরিটিজকে নন-মার্জিনেবল হিসেবে ঘোষণা করা হয়। এরপর থেকে এ কোম্পানির শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীর আগ্রহ কমছে বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

শাহজিবাজার পাওয়ারের অনুমোদিত মূলধন রয়েছে ৫০০ কোটি টাকা। পরিশোধিত মূলধন রয়েছে ১২৬ কোটি ৮০ লাখ টাকা। এ কোম্পানির মোট ১২ কোটি ৬৭ লাখ ৯৮ হাজার শেয়ার রয়েছে। এর মধ্যে পরিচালনা পর্ষদের হাতে রয়েছে ৭৫.৭১ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের হাতে ৫.৫৪ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হতে রয়েছে ১৮.৭৫ শতাংশ শেয়ার।

এছাড়াও টপটেন লুজারের তালিকায় থাকা বাকি কোম্পানিগুলো হলো: সাভার রিফ্যাক্টরিজ, শ্যামপুর সুগার, নর্দার্ণ জুট, প্রগ্রেসিভ লাইফ, কেয়া কসমেটিকস, স্টাইল ক্রাফট, দুলামিয়া কটন, অলটেক্স এবং সিভিও পেট্রোকেমিক্যাল।

শেয়ারবাজার ডেস্ক

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top