হাউজগুলোর প্রভিশন সংরক্ষণের মেয়াদ আরও ১ বছর বাড়লো

BSECশেয়ারবাজার রিপোর্ট: স্টক ব্রোকার, স্টক ডিলার, মার্চেন্ট ব্যাংক ও তাদের বিনিয়োগকারীদের পোর্টফোলিওতে ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৫ পর্যন্ত উদ্ভূত পুন:মূল্যায়নজনিত ক্ষতির (আন-রিয়েলাইজ লস) বিপরীতে প্রভিশন সংরক্ষণের মেয়াদ আরও এক বছর বাড়ানো হয়েছে।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫৬০তম কমিশন সভায় সময় বাড়ানোর আবেদন অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।
বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সাইফুর রহমান স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশন এবং ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) আবেদনের প্রেক্ষিতে বিএসইসি এই সিদ্ধান্ত নেয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালের ১২ জানুয়ারিতে বিএসইসির এসইসি/সিএসআরআরসিডি/২০০৯-১৯৩/১৬৬ জারি করা নির্দেশনার অনুরূপ প্রভিশন সংরক্ষণের সময় বৃদ্ধির ঐচ্ছিক সুবিধা নেওয়ার বিষয়টি অনুমোদন দেওয়া হয়। যা এককালীন সংরক্ষণের পরিবর্তে ডিসেম্বর, ২০১৫ হতে ২০১৬ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ৫টি ত্রৈমাসিক সমান অংশে (২০ শতাংশ) সংরক্ষণ করা যাবে।

এর আগেও একাধিকবার প্রভিশন সংরক্ষণের মেয়াদ বাড়িয়েছিল বিএসইসি।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বাজার পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানই নির্দেশনা অনুযায়ী সঞ্চিতি সংরক্ষণে ব্যর্থ হয়েছে। মার্জিন ঋণ সংকটের কারণে চলতি বছরও ঋণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর বড় ধরনের লোকসানে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এ কারণে আবারও সঞ্চিতি সংরক্ষণের জন্য সময় বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ ব্যাংক বাণিজ্যিক ব্যাংক ও ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ থেকে সম্ভাব্য ক্ষতির বিপরীতে ধাপে ধাপে সঞ্চিতি সংরক্ষণের সুবিধা দেয়। এজন্য ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে নগদ লভ্যাংশের পরিবর্তে বোনাস শেয়ার ইস্যুর বাধ্যবাধকতা আরোপ করা হয়।

শেয়ারবাজারনিউজ/অ/মু

আপনার মন্তব্য

Top