আজ: বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১ইং, ৩১শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩০শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫, রবিবার |


চিরপ্রতিদ্বন্দ্বির কাছে হেরেছে পাকিস্তান

PK-INশেয়ারবাজার ডেস্ক: পরিকল্পনা মতোই খেলছেন ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। ইনিংসের শেষ দিকে এসে পাকিস্তানি বোলারদের ওপর চড়াও হয়েছেন তারা। নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে পাকিস্তানকে ৩০১ রানের টার্গেট দিয়েছে ভারত।

জবাবে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী কাছে ৭৬ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরেছে পাকিস্তান। প্রতিবারের মতো এবারও পাকিস্তানকে ধুমড়ে-মুচড়ে দিয়ে শেষ হাসি হেসে শির উন্নত রেখে মাঠ ছেড়েছে মহেন্দ্র সিং ধোনি বাহিনী।

৩০১ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই হোঁচট খায় পাকিস্তান। মাত্র ১১ রানের মাথায়ই ওপেনার ইউনুস খান সাজঘরের পথ ধরেন। এরপর মাঝে কিছুটা সময় ওপেনার আহমেদ শেহজাদ ও হারিস সোহেল এবং অধিনায়ক মিসবাহ উল হক ও শহীদ আফ্রিদি প্রতিরোধের চেষ্টা করেও দলের পরাজয় ঠেকাতে পারেননি। ভারতীয় বোলারদের তোপে পড়ে মাত্র ২২৪ রানেই গুটিয়ে যায় পাকিস্তানের ব্যাটিং লাইনআপ। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৬ রান করেন অধিনায়ক মিসবাহই। উল্লেখ করার মতো ৪৭ রান আসে শেহজাদের ব্যাট থেকে। ভারতের পক্ষে চার উইকেট নেন মোহাম্মদ শামি, দু’টি করে উইকেট নেন উমেশ যাদব ও মোহিত শর্মা।

এর আগে, রোববার বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে ৯টায় অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেড ওভাল ময়দানে শুরু হয় ভারত-পাকিস্তানের এ ক্রিকেটীয় মহাযুদ্ধ। ম্যাচে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন ভারতীয় অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি।

ভারতের হয়ে ওপেনিংয়ে নামেন রোহিত ও শিখর ধাওয়ান। প্রথম ৫-৬ ওভার দেখেশুনেই ব্যাট চালাচ্ছিলেন দু’জন। তবে চড়াও হওয়ার ইঙ্গিত দিতেই রোহিতকে অধিনায়ক মিসবাহর ক্যাচ বানিয়ে সাজঘরে পাঠান পাকিস্তানি পেসার সোহেল খান।

রোহিত আউট হওয়ার পর খেলতে নামেন দলের সেরা ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলি। কোহলিকে সঙ্গে নিয়ে দুর্দান্ত পার্টনারশিপ গড়ে তোলেন ওপেনার ধাওয়ান, দলের খাতায় যোগ করেন ১২৯ রান। পাকিস্তানি অধিনায়ক মিসবাহ উল হকের সরাসরি থ্রোতে রান আউট হওয়ার আগে ধাওয়ান ৭৬ বলে ৭৩ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলে যান।

ধাওয়ানের বিদায়ে ক্রিজে নেমে শুরু থেকেই আগ্রাসী ব্যাট চালান সুরেশ রায়না। তিনি কোহলির সঙ্গে গড়ে তোলেন আরেকটি শত রানের পার্টনারশিপ (১১০)। শেষ দিকে চড়াও হতে গিয়ে সোহেল খানের বলে কোহলি উইকেটের পেছনে উমর আকমলকে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফেরেন। অবশ্য, হাত খুলে মারতে গিয়ে আউট হয়ে গেছেন সেঞ্চুরিয়ান বিরাট কোহলি (১০৭), তারপরও ক্রিজে থাকা হাফ-সেঞ্চুরিয়ান সুরেশ রায়না (৭৩) তুলোধুনো করেন প্রতিপক্ষের বোলারদের। তার সঙ্গে যোগ দিয়েছিলেন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। তবে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৭ উইকেটে ৩০০ রান সংগ্রহ করে ভারত।

ভারত দল
মহেন্দ্র সিং ধোনি, শেখর ধাওয়ান, রোহিত শর্মা, অজিঙ্কা রাহানে, বিরাট কোহলি, সুরেশ রায়না, রবিন্দ্র জাদেজা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, মোহাম্মদ শামি, মোহিত শর্মা, উমেশ যাদব।

পাকিস্তান দল
আহমেদ শেহজাদ, ইউনুস খান, হারিস সোহেল, মিসবাহ উল হক, উমর আকমল, সোয়েব মাকসুদ, শহীদ আফ্রিদি, ইয়াসির শাহ, মোহাম্মদ ইরফান, সোহেল খান এবং ওয়াহাব রিয়াজ।

উল্লেখ্য, এর আগে ১৯৯২, ৯৬, ৯৯, ২০০৩ ও ২০১১ বিশ্বকাপে মুখোমুখি হয়েছিল ভারত ও পাকিস্তান। প্রত্যেক লড়াইয়েই শেষ হাসি হেসেছে ভারত। এদিকে আজ বিশ্বকাপে পকিস্তানের বিরুদ্ধে প্রথম ভারতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে সেঞ্চুরি করলেন কোহলি।

শেয়ারবাজার/অ

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.