কমছে এনএভি বাড়ছে আশঙ্কা

শেয়ারবাmutual_fundsজার রিপোর্ট: মিউচ্যুয়াল ফান্ডকে নিরাপদ বিনিয়োগের ক্ষেত্র বলা হয়। এ কারণে বিনিয়োগকারা তাদের পুঁজি নিরাপদ বিনিয়োগের জন্য ফান্ডের সম্পদ ব্যবস্থাপকদের হাতে তুলে দিচ্ছে। কিন্তু সম্পদ ব্যবস্থাপকদের অদক্ষতা এবং পুঁজিবাজারের অব্যাহত মন্দাবস্থার কারণে ফান্ডগুলোর এনএভি কমে যাওয়ায় পুঁজি হারানোর আশঙ্কায় রয়েছে বিনিয়োগকারীরা।

বাজারে তালিকাভূক্ত অধিকাংশ মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে রয়েছে। এ প্রসঙ্গে ফান্ড ব্যবস্থাপকরা বাজারের চলমান অচলবস্থাকে দায়ী করলেও, সম্পদ ব্যবস্থাপনায় নিজেদের ব্যর্থতার কথা বারবারই এড়িয়ে যাচ্ছে। ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে থাকায় ফান্ডের বিনিয়োগকারীরা একদিকে যেমন লেনদেনের মাধ্যেমে লাভবান হতে পারছেন না। পাশাপাশি অধিকাংশ ফান্ডের সম্পদ ক্রয় মূল্যের চেয়ে বিক্রয় মূল্য কমে যাওয়ায় বিনিয়োগকারীদের পুঁজিকেও ঝুঁকির মূখে ফেলছে।

জানা যায়, মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতের ৪০টি ফান্ডের মধ্যে ২৭টির-ই ইউনিট দর ফেস ভ্যালুর নিচে অবস্থান করছে। এগুলো হলো: ফার্স্ট জনতা ব্যাংক মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট দর ৪.৯০ টাকা, এবি ব্যাংক ফার্স্ট ফান্ডের ৮.৮০ টাকা, এআইবিএল ১ম ইসলামিক ফান্ডের ৪.৬০ টাকা, ডিবিএইচ ফার্স্টে ৪.৪০ টাকা, ইবিএল ১ম ফান্ডের ৫.১০ টাকা, ইবিএল এনআরবি ফান্ডের ৪.৬০ টাকা, এক্সিম ব্যাংক ফার্স্ট ফান্ডের ৬.৮০ টাকা, ফার্স্ট বাংলাদেশ ফিক্সড ইনকাম ফান্ডের ৬.১০ টাকা, গ্রীন ডেল্টা ফান্ডের ৪.৫০ টাকা, আইসিবি এএমসিএল সেকেন্ড এনআরবি ফান্ডের ৭.৫ টাকা, আইসিবি এএমসিএল থার্ড এনআরবি ফান্ডের ৪.৪০ টাকা, আইসিবি এএমসিএল সেকেন্ড ফান্ডের ৪.৮০ টাকা, আইসিবি এমপ্লোয়ি প্রোভিডেন্ট ওয়ান-স্কিমের ৪.৪০ টাকা, আইসিবি এএমসিএল সোনালী ব্যাংক ফার্স্ট ফান্ডের ৬.৩০ টাকা, আইএফআইসি ১ম ফান্ডের ৪.৬০ টাকা, আইএফআইএল ইসলামি ফান্ড-১ এর ৫.৮০ টাকা, এল আর গ্লোবাল বাংলাদেশ ফান্ড ওয়ানের ৪.৩০ টাকা, এমবিএল ১ম ফান্ডের ৪.৩০ টাকা, এনসিসিবিএল ফান্ড ওয়ানের ৪.৪০ টাকা, এনএলআই ফার্স্ট ফান্ডের ৮.৩০ টাকা, ফিনিক্স ফাইন্যান্স ১ম ফান্ডের ৫.১০ টাকা, পিএইচপি ফার্স্ট ফান্ডের ৪.৫০ টাকা, পপুলার লাইফ ফার্স্ট ফান্ডের ৪.৭০ টাকা, প্রাইম ব্যাংক ১ম আইসিবি এএমসিএল ফান্ডের ৪.৫০ টাকা, রিলায়েন্স ওয়ান দ্য ফার্স্ট স্কিম অব রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স ফান্ডের ৭ টাকা, সাইথইস্ট ব্যাংক ১ম ফান্ডের ৮.১০ টাকা এবং ট্রাস্ট ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট দর ৫.১০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

এদিকে, মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) ফেসভ্যালুর নিচে নেমে এসেছে। যার নেপথ্যে ফান্ড পরিচালনাকারী সম্পদ ব্যবস্থাপকদের অদক্ষতা কাজ করছে। পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত আইসিবি’র সাবসিডিয়ারি কোম্পানি আইসিবি এএমসিএল পরিচালিত ৭টি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) প্রকাশিত হয়েছে। এ ৭টি ফান্ডেরই এনএভি বর্তমান বাজার মূল্য অনুসারে ফেস ভ্যালুর নিচে অবস্থান করছে।

জানা যায়, আইসিবি এএমসিএল পরিচালিত আইসিবি এএমসিএল সোনালী ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, আইএফআইএল ইসলামিক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, আইসিবি এমএসিএল থার্ড এনআরবি মিউচ্যুয়াল ফান্ড, ফিনিক্স ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, প্রাইমব্যাংক ফার্স্ট আইসিবি এমএসিএল মিউচ্যুয়াল ফান্ড, আইসিবি এমপ্লয়েজ প্রভিডেন্ড মিউচ্যুয়াল ফান্ড-স্কিম ওয়ান এবং আইসিবি এএমসিএল সেকেন্ড মিউচ্যুয়াল ফান্ডের বর্তমান বাজার মূল্যে এনএভি ফেসভ্যালুর নিচে অবস্থান করছে।

বর্তমান বাজারমূল্যে আইসিবি এএমসিএল সোনালী ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট প্রতি সম্পদ মূল্য ৯.৮১ টাকা, আইএফআইএল ইসলামিক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট প্রতি সম্পদ মূল্য ৯.৭২ টাকা, আইসিবি এমএসিএল থার্ড এনআরবি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ৭.৬৪ টাকা, ফিনিক্স ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ৭.৮১ টাকা, প্রাইমব্যাংক ফার্স্ট আইসিবি এমএসিএল মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ৮.২৭ টাকা, আইসিবি এমপ্লয়েজ প্রভিডেন্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড-স্কিম ওয়ানের ৮.১১ টাকা এবং আইসিবি এমসিএল ২য় মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট প্রতি সম্পদ মূল্যের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৮.৫৯ টাকা।

অন্যদিকে, গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে এই সাতটি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৪টি ফান্ডের ইউনিট প্রতি সম্পদ মূল্য কমেছে, বেড়েছে ১টির এবং ২টি ফান্ডের সম্পদমূল্যের কোন পরিবর্তন হয়নি। এক্ষেত্রে গত সপ্তাহের তুলনায় আইসিবি এএমসিএল সোনালী ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট প্রতি সম্পদ মূল্য কমেছে ০.০২ টাকা, আইএফআইএল ইসলামিক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডের বেড়েছে ০.০২ টাকা, আইসিবি এমএসিএল থার্ড এনআরবি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের কমেছে ০.০১ টাকা, প্রাইমব্যাংক ফার্স্ট আইসিবি এমএসিএল মিউচ্যুয়াল ফান্ডের কমেছে ০.০২ টাকা, আইসিবি এমসিএল ২য় মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ০.০৩ টাকা এবং ইউনিট প্রতি সম্পদ মূল্য অপরিবর্তীত রয়েছে ফনিক্স ফিন্যান্স ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ও আইসিবি এমপ্লয়েজ প্রভিডেন্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড-স্কিম ওয়ানের।

বাজার বিশেষজ্ঞ ড. আবু আহমেদ শেয়ারবাজার নিউজ ডট কমকে বলেন, বিনিয়োগকারীদের পুঁজি সঠিকভাবে বিনিয়োগ করার ক্ষেত্রে এসেট ম্যানেজারদের দক্ষতার কথা বারবার বলা হলেও তা আলোর মুখ দেখছে না। এসেট ম্যানেজারদের কর্মদক্ষতা ও দূরদর্শিতার অভাবে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের পুঁজি ঝুঁকির মূখে পড়ছে। এর পাশাপাশি এসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানিগুলোর জন্য কর রেয়াত সুবিধা দেয়া হলেও তা বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ রক্ষা করতে পারছে না।

শেয়ারবাজার/মু/তু

 

 

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top