পরিস্থিতি বুঝে ডিসিসি নির্বাচন: সিইসি

rakibশেয়ারবাজার রিপোর্ট: আইন শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনী ও গোয়েন্দাদের সঙ্গে বৈঠকের পর পরিস্থিতি বুঝে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিব উদ্দিন আহমেদ।

রোববার নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের মিডিয়া সেন্টারে ব্রিফিংকালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

কাজী রকিব উদ্দিন আহমেদ বলেন, দেশের এ অবস্থায় আইন-শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনী ও গোয়েন্দাদের সঙ্গে বৈঠকে নির্বাচনের পরিবেশ আছে কিনা তা জানতে পারব। সে অনুযায়ী নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে আশা করি নির্বাচনের আগে পরিবেশ ঠিক হবে।’

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বৈঠক কবে অনুষ্ঠিত হবে জানতে চাইলে রকিব উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘সাধারণত তফশিল ঘোষণা হওয়ার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বৈঠক হয়। এবার তফশিলের আগেও হতে পারে।’

সিএসই বলেন, ‘আমাদের মাঠ পর্যায়ে কিছু কাজ এখনো বাকি আছে, যেমন: ভোটার তালিকা পুনর্বিন্যাস, ভোটকেন্দ্র ঠিক করা; যা সচিবালয়কে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তারা ১০ মার্চের মধ্যে কাজ সম্পন্ন করলে এরপর আমার বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেব।’

এসময় ঢাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি এ নির্বাচন। তাদের দাবির কারণে এ নির্বাচন দিতে হবে বলেও জানান সিইসি।

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে এসএসসি পরীক্ষা চলছে আর এপ্রিলে এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হবে। তাই আমরা পরীক্ষার বিষয়টি মাথায় রেখেই নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নেব। এজন্য আমরা পরীক্ষার মাঝে বড় একটা গ্যাপ খুজঁছি নির্বাচন করার জন্য। নির্বাচন হতে গেলে স্কুল ও শিক্ষকদের প্রয়োজন হয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা বসে নির্বাচন করার জন্য তারা আমাদের কীভাবে সাহায্য করতে পারে এ ঠিক করব। এছাড়া রোজার মধ্যে নির্বাচন করব না আমরা।’

ঢাকা ও চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচন এক সঙ্গে করা হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচন ১৮০ দিন শেষ হওয়ার আগেই অর্থাৎ ২৬ জুলাইয়ের মধ্যে করতে হবে। দুই সিটি করপোরেশন এক সঙ্গে হওয়ার বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। বৈঠক করে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। তবে আমাদের রোজা ও পরীক্ষার কথা অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘গত বছরের ৫ জানুয়ারি জাতীয় নির্বাচনে সব দলকে অংশ নিতে আহ্বান জানানো হয়েছিল। কিন্তু সবাই নির্বাচনে আসে নাই। ডিসিসি নির্বাচন কোনো দলীয় নির্বাচন নয়। তারপরও চাইবো সব দলই নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করুক। তবে জাতীয় নির্বাচনের মতো কেউ এ নির্বাচনে না এলে অপেক্ষা করা হবে না।’

শেয়ারবাজার/অ

আপনার মন্তব্য

Top