চেয়েছিলাম আশঙ্কাটি মিথ্যা হোক

Editorial-Logoমৃত প্রায় পুঁজিবাজারকে এখনো সচল রাখতে বিএসইসি, ডিএসই এবং সিএসইসহ এই সেক্টরের সব স্টেক হোল্ডারগণ যখন নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে ঠিক সেই মুহূর্তে ডিভিডেন্ডের মত অতি স্পর্শকাতর বিষয় ফাঁস হয়ে যাওয়ার খবরে আমরা স্তম্ভিত, মর্মাহত এবং উদ্বিগ্ন। গত বুধবার অর্থাৎ ৪ মার্চ পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্ট শীর্ষ অন লাইন দৈনিক “শেয়ারবাজার নিউজ ডটকম” পত্রিকায় সিমেন্ট খাতের লাফার্জ সুরমার ডিভিডেন্ড ঘোষণার বিষয়ে এ সংক্রান্ত একটি সংবাদ প্রকাশ পেয়েছে। কোম্পানির ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত পরিচালনা পর্ষদের সভা অনুষ্ঠানের আগেরদিন নিউজটি পত্রিকার পেজে পোস্টিং দেয়া হয়েছে। ফাঁস হওয়া খবরটি চারদিকে ছড়িয়ে পড়ার পর আমাদের রিপোর্টার যখন নিউজটিকে প্রকাশোপযোগী করে তখনো আমাদের সম্পাদকীয় বিভাগ এ ধরনের একটি আগাম ফাঁসের খবর প্রকাশ কতটুকু যুক্তিযুক্ত হবে তা নিয়ে দ্বিধা-দ্বন্দে ভুগছিল। সম্পাদক হিসাবে আমি নিজেই আবার আগাম খবর ফাঁসের অভিযোগে বিএসইসির কাছে অভিযুক্ত হই কিনা তা নিয়েও একটি আশঙ্কা ছিল। কিন্তু সংশ্লিষ্ট রিপোর্টার লাফার্জের ভেতরকার এমন কতগুলো সোর্সের নাম জানালো যারা ওই খবরের সত্যতার ব্যাপারে শতভাগ নিশ্চয়তা দিয়ে তাকে মিথ্যা হলে জরিমানা দিতেও প্রস্তুত বলে জানিয়েছে। প্রকৃত অর্থে রিপোর্টারের এই দৃঢ়তা দেখে তারপরও মনে মনে একটি অজানা আশঙ্কা রেখেই বোর্ড মিটিংয়ের একদিন আগে নিউজটি পোস্ট করা হয়। নিউজটির ব্যাপারে ফেসবুকসহ অন্যান্য যোগাযোগ মাধ্যমে এবং দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিনিয়োগকারীদের একের পর এক ফোন পেয়ে ঘাবড়ে গিয়েছিলাম। কোনক্রমে যদি খবরটি মিথ্যা হয়ে যায় উদিয়মান এই ছোট্ট পত্রিকাটির সাথে সাথে গত দুই যুগের সাংবাদিকতা জীবনেও একটি ধাক্কা লাগবে এমন প্রস্তুতি নিয়েই রেখেছিলাম। বার বার মনে হচ্ছিল রিপোর্টারের মন রক্ষা করতে গিয়ে রিপোর্টটি প্রকাশ হয়তো ঠিক হয়নি। কিন্তু আমার সব আশঙ্কা এবং জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে লাফার্জ সুরমা যে ঘোষণা দেয় তা শুধু ফাঁস হওয়া খবরের ডিভিডেন্ডের সাথে মিলে গেছে। পাঠকদের সুবিধার্থে আমরা এখানে আমাদের আগের দিনের ফাঁস হওয়া  রিপোর্টটি এবং পরের দিনের লাফার্জ ঘোষিত রিপোর্টটি তুলে ধরলাম।

ফাঁস হওয়া সংক্রান্ত খবর

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সিমেন্ট খাতের ‘জেড’ ক্যাটাগরির কোম্পানি লাফার্জ সুরমা সিমেন্টের মূল্য সংবেদনশীল তথ্য ফাঁস হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
বৃহস্পতিবার বিকাল ৩ টায় এ কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। অনুষ্ঠিত সভায় ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে কোম্পানিটি ডিভিডেন্ডের ঘোষণা দেবে। কিন্তু এ কোম্পানি কি পরিমাণ ডিভিডেন্ড দেবে বা মুনাফা কি পরিমাণ হবে সেটাই আগেই প্রকাশ করা হয়েছে বলে জনমনে রটেছে।
কোম্পানিটি ইতিমধ্যে অন্তর্বর্তীকালীন ৫ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড প্রদান করেছে। বৃহস্পতিবারের বোর্ড সভায় কোম্পানিটি আরও ৫ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দেয়ার ঘোষণা দেবে। সর্বমোট কোম্পানিটি ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ১০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দেয়ার ঘোষণা দেবে। এছাড়া এ কোম্পানির মুনাফা তৃতীয় প্রান্তিক আর্থিক প্রতিবেদনের চেয়ে ১১ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে এমন খবরও প্রচার করা হয়েছে।
জানা যায়, তৃতীয় প্রান্তিক (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর’১৪) আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী এ কোম্পানির কর পরিশোধের পর মুনাফা হয়েছে ২১০ কোটি ৮৫ লাখ ৩০ হাজার টাকা ও শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ১.৮২ টাকা।
চূড়ান্ত প্রতিবেদনে যদি এর থেকে ১১ শতাংশ মুনাফা বৃদ্ধি পায় তাহলে কর পরিশোধের পর মুনাফা দাঁড়ায় ২৩৪ কোটি ৪ লাখ ৬৮ হাজার ৩০০ টাকা ও শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হবে ২.০২ টাকা।
এদিকে মূল্য সংবেদনশীল তথ্য প্রকাশের বিষয়ে লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জানতে চাইলে কেউই কোনো সদুত্তর দিতে পারেনি।
এদিকে মূল্য সংবেদনশীল তথ্য কি সে সম্পর্কে বিএসইসির আইনে স্পষ্ট করে বলা রয়েছে। সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের ১৯৯৩ (১৯৯৩ সালের ১৫নং আইন) এর ২৫ ধারা (ঘ) এর বিধিমালা অনুযায়ী ‘মূল্য সংবেদনশীল তথ্য’ অর্থ এইরূপ তথ্য যাহা প্রকাশিত হইলে সংশ্লিষ্ট সিকিউরিটির বাজার মূল্য প্রভাবিত হইতে পারে এবং নিম্নবর্ণিত তথ্যাবলী এই সংজ্ঞার অন্তর্ভুক্ত হইবে, যথাঃ- (অ) কোম্পানির আর্থিক অবস্থা সম্পর্কিত প্রতিবেদন বা এতদসংক্রান্ত মৌলিক তথ্য; (আ) লভ্যাংশ সংক্রান্ত তথ্য; (ই) সিকিউরিটি হোল্ডারগণকে রাইট শেয়ার, বোনাস ইস্যু করা বা অনুরূপ সুবিধা প্রদানের সিদ্ধান্ত; (ঈ) কোম্পানির কোনো স্থায়ী সম্পত্তি ক্রয়-বিক্রয়ের সিদ্ধান্ত; (উ) কোম্পানির বিএমআরই বা নতুন ইউনিট স্থাপন সংক্রান্ত তথ্য; (ঊ) কোম্পানির কার্যাবলির ক্ষেত্রে মৌলিক পরিবর্তন (যেমন- উৎপাদিত সামগ্রী, পরিকল্পনা প্রণয়ন, বাস্তবায়ন বা এতদসম্পর্কিত নীতিনির্ধারণ ইত্যাদি); (ঋ) কমিশন কর্তৃক সরকারি গেজেটে প্রজ্ঞাপন দ্বারা নির্ধারিত অন্য কোনো তথ্য।
পরের দিনের ডিভিডেন্ড ঘোষণার খবর

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সিমেন্ট খাতের কোম্পানি লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ৫ শতাংশ  ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয় ।
কোম্পানির অন্তবর্তীকালীন ঘোষিত ডিভিডেন্ড ৫ শতাংশসহ মোট ১০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়েছে।
সূত্র মতে, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ সমাপ্ত অর্থবছরে লাফার্জের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৪৩  টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ১১.৬৭ টাকা।
ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের অনুমোদনের জন্য কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম)  আগামী ১১ জুন, রাওয়া  কনভেশন সেন্টার, ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। এ সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ৭ এপ্রিল।
উল্লেখ্য, এ কোম্পানির ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত মূল্য সংবেদনশীল তথ্য আগেই প্রকাশিত হয়েছে। যা শেয়ারবাজার নিউজ ডট কমে  প্রকাশিত হয়েছে।

আমাদের বক্তব্য:
বাজারের স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহিতা ধরে রাখা যে মুহূর্তে সব স্টেক হোল্ডারের এই সময়ের জন্য জরুরী বিষয় ঠিক সেই মুহূর্তে অতি স্পর্শকাতর বিষয় ফাঁস করে দেয়া জঘন্য অপরাধ বলে আমরা মনে করি। আমরা মনে করি যে কিংবা যারা এ অপরাধ সংঘটিত করেছেন তারাই আজ লাখ লাখ বিনিয়োগকারীকে পথে বসানোর জন্য দায়ী। এ শ্রেণীর গুটিকতক মানুষই আজ বাজারটিকে ধ্বংস করে দিয়েছে। এখনই নিয়ন্ত্রক সংস্থাসহ সব মহল যদি এদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে বিলম্ব কিংবা অনিহা প্রদর্শন করে তাহলে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারকে আরো অনেক খেসারত দিতে হবে বলে আমরা মনে করি। আমাদের নিশ্চিত বিশ্বাস লাফার্জ দিয়েই এ ধরনের ঘটনার যবনিকাপাত হবে।

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top