ব্রিটিশ আমেরিকান টোবাকো থেকে সরকারের শেয়ার প্রত্যাহার দাবি সংসদে

saberশেয়ারবাজার রিপোর্ট : ব্রিটিশ আমেরিকান টোবাকো কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদে সরকারের সচিব পর্যায়ের একাধিক প্রতিনিধি থাকার পরেও ৭০০ কোটি টাকার রাজস্ব ফাঁকি দেওয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সরকারি দলের সাংসদ সাবের হোসেন চৌধুরী। তিনি এ ঘটনাকে অত্যন্ত লজ্জাজনক হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেন, এই কোম্পানিতে সরকারের মালিকানা থাকা উচিত নয়।

প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, এবারের বাজেটে তামাক নিয়ন্ত্রণে ভালো কিছু আশা করা হয়েছিল। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রীর সুনির্দিষ্ট বক্তব্য রয়েছে। তামাক নিয়ন্ত্রণে সরকারের দ্বৈতনীতি ও করারোপের বৈষম্যের অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, স্তরভিত্তিক কর বিন্যাসের সুযোগ নিয়ে কিছু কিছু কোম্পানি রাজস্ব ফাঁকি দেয়। এ রকম একটা ঘটনা এনবিআর (জাতীয় রাজস্ব বোর্ড) উদ্‌ঘাটন করে ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো (বিএটি) কোম্পানিকে চিঠি দেয়। তারা প্রায় ৭০০ কোটি টাকা কর ফাঁকি দিয়েছে। বিএটি বিষয়টি নিয়ে আদালতে গেলেও সেখানে রাজস্ব ফাঁকির টাকা ফেরত দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। তিনি বলেন, এই কোম্পানিতে বাংলাদেশ সরকারের ১৩ ভাগ শেয়ার রয়েছে। পরিচালনা পর্ষদে সরকারের চারজন সচিব পর্যায়ের পরিচালক আছে। তাঁরা আবার নিরীক্ষাও করেন।

সাবের হোসেন বলেন, ‘একটি কোম্পানি যেখানে সরকারের শেয়ার আছে, যেই পরিচালকমণ্ডলীতে সরকারের সচিব পর্যায়ের প্রতিনিধিরা থাকে, তারা রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছে। এটা আমাদের জন্য লজ্জাজনক। আমাদের যেসব পরিচালক আছে, তাদের সেখান থেকে সরে যাওয়া উচিত। অন্যথায় পুরো বিষয়ের সঙ্গে আমাদের জড়িয়ে ফেলা হবে।’

ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদে সচিব পর্যায়ের কর্মকর্তাদের মধ্যে রয়েছেন, শিল্পসচিব, কৃষিসচিব, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং এই কোম্পানির সরকারনিযুক্ত স্বতন্ত্র পরিচালক হিসেবে নিরীক্ষা কমিটির সদস্য পদে রয়েছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব কে এইচ মাসুদ সিদ্দিকী।

শেয়ারবাজারনিউজ/আ

আপনার মন্তব্য

One Comment;

  1. John said:

    হায়রে দেশ দিন দিন দেশ রসাতলে যাচ্ছে। কি ভাবে দেশ আগাবে। সরকার নিজেই নিজের পায়ে নিজে কুড়াল মারছে।

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top