বিদেশি বিনিয়োগের প্রধান বাধা অসহযোগীতা

DSEশেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে বিদেশি বিনিয়োগ বাড়াতে উদ্যোগ নিচ্ছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। এর জন্য গতকাল শীর্ষ ব্রোকারদের সাথে বৈঠকও করেছে ডিএসই।

শীর্ষ ব্রোকাররা মনে করেন, বিদেশি বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর সহযোগিতা না করা এবং লেনদেন স্যাটলমেন্টে সমস্যা থাকায় বিদেশি আশানুরুপ হচ্ছে না।

তবে ডিএসই মনে করছে, বিদেশি বিনিয়োগ বাড়ানো গেলে বাজারের বর্তমান তারল্য সংকট অনেকটা কাটানো যাবে। অন্যদিকে বিদেশি বিনিয়োগ বাড়লে স্থানীয় বিনিয়োগকারীদের আস্থা বাড়বে। তাতে ব্যক্তি ও প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা আরেকটু সক্রিয় হবে।

বিদেশি বিনিয়োগ প্রসঙ্গে করণীয় নিয়ে আলোচনা করতে রোববার ডিএসই সংশ্লিষ্ট ব্রোকারদের সঙ্গে বৈঠক করেছে। ডিএসইতে অনুষ্ঠিত বৈঠকে লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ, আইডিএলসি সিকিউরিটিজ, ব্র্যাক ইপিএল স্টক ব্রোকারেজ, সিটি ব্রোকারেজ ও এমটিবি সিকিউরিটিজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ব্রোকারেজের শীর্ষ কর্মকর্তারা বলেন, ব্রোকারহাউজের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট কোম্পানির তথ্য-পরিসংখ্যান, গবেষণা রিপোর্ট বিদেশি ফান্ড ম্যানেজারের কাছে দেওয়ার পরও তারা নিজেরা সংশ্লিষ্ট কোম্পানির সঙ্গে কথা বলতে আগ্রহ দেখান। তাদের নিজস্ব কিছু জিজ্ঞাসা থাকে যেগুলো সরাসরি কোম্পানির কাছ থেকে জেনে পরিস্কার হতে চান। কিন্তু বেশিরভাগ কোম্পানি এতে সাড়া দেয় না। কোনোভাবেই তারা বিদেশি বিনিয়োগকারীদেরকে মিটিং এর সময় দেয় না।

তারা মনে করেন, কোম্পানিগুলো সহযোগিতা করলে বিদেশি বিনিয়োগ ২০ থেকে ৩০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়ে যাবে।

অন্যদিকে বাংলাদেশ ও বিশ্বের অন্যান্য দেশের সরকারি ছুটির দিন ভিন্ন হওয়ায় লেনদেন নিষ্পত্তি সংক্রান্ত কিছু সমস্যা দেখা দেয়। বিশেষ করে বৃহস্পতিবার এখানে যে শেয়ার কেনা-বেচা হয় তার স্যাটলমেন্ট হয় সোমবার। শুক্রবার ও শনিবার বাংলাদেশে ছুটি। অন্যদিকে রোববার অন্যান্য দেশে ছুটি থাকে। এই সময়ের মধ্যে তাদের মধ্যে কোনো যোগাযোগ করার সুযোগ থাকে না। তাই স্যাটলমেন্টের আগে তাদের কোনো নির্দেশনা থাকলে সেগুলো কাজে লাগানো যায় না।

শেয়ারবাজারনিউজ/আ

আপনার মন্তব্য

Top