নজরদারিতে ৫ কোম্পানি

BSECশেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৫ কোম্পানির শেয়ারকে ঘিরে সক্রিয় রয়েছে কারসাজিচক্র। এর জের ধরে এ কোম্পানিগুলোর শেয়ারদর কোন কারণ ছাড়াই অস্বাভাবিকভাবে বাড়ছে। আর মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নিয়ে গুজব ছড়ানোর মাধ্যমে এ কোম্পানিগুলোর শেয়ার দর বাড়ানো হচ্ছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এইদিকে অস্বাভাবিকহারে শেয়ার দর বাড়ার কারণে এই ৫ কোম্পানি পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নজরে রয়েছে বলে কমিশনের একটি সূত্র জানিয়েছে।

এই ৫ কোম্পানির মধ্যে বিডি অটোকার্সের শেয়ারদর ২১ দশমিক ৬৩ শতাংশ, রহিম টেক্সটাইলের শেয়ারদর ২৩ শতাংশ, এপেক্স ফুডসের শেয়ারদর ২১ দশমিক ৩৩ শতাংশ, এমবি ফার্মার শেয়ারদর ৪০ দশমিক ২৭ শতাংশ এবং মডার্ন ডাইংয়ের শেয়ারদর ৫৭ দশমিক ২১ শতাংশ বেড়েছে।

বিডি অটোকার্স: প্রকৌশল খাতের জুন ক্লোজিং ৩ কোটি ৬০ টাকা মূলধনী এ কোম্পানির শেয়ারদর আগস্ট মাসের ১ তারিখে ছিল ৩৫ দশমিক ৫০ টাকা। গত কাল ২৮ আগস্ট লেনদেন শেষে এ কোম্পানিটির শেয়ারদর হয়েছে ৪৫ দশমিক ৩০ টাকা। অর্থাৎ মাত্র ১৮ কার্যদিবসে কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ২১ দশমিক ৬৩ শতাংশ। বর্তমানে কোম্পানিটির পিই রেশিও ৭৩ দশমিক ৪৩। ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরের ৯ মাসে কোম্পানিটির পুঞ্জিভুত লোকসানের পরিমান ২ কোটি ৯৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে দশমিক ০.২৫ টাকা।

বর্তমানে কোম্পানিটি ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে রয়েছে।

এর আগে চলতি বছরে ডিএসই থেকে দুইবার অস্বাভাবিক দর বাড়ার কারণ জানতে চাওয়া হয়েছে। কিন্তু এ বিষয়ে কোম্পানির কাছে কোন মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই বলে জানানো হয়।

রহিম টেক্সটাইল: বস্ত্র খাতের জুন ক্লোজিং ৪ কোটি ৮৫ লাখ ৬০ হাজার টাকা মূলধনী এ কোম্পানিটির শেয়ারদর আগস্ট মাসের ১ তারিখে ছিল ২৯১ টাকা। গত কাল ২৮ আগস্ট লেনদেন শেষে এ কোম্পানিটির শেয়ারদর হয়েছে ৩৭৭.৯০ টাকা। অর্থাৎ মাত্র ১৮ কার্যদিবসে কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ২৩ শতাংশ। ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরের ৯ মাসে কোম্পানিটির কর পরিশোধের পর শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৬ দশমিক ৪০ টাকা। কোম্পানিটি বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে রয়েছে।

এর আগে চলতি বছরে ডিএসই থেকে দুইবার অস্বাভাবিক দর বাড়ার কারণ জানতে চাওয়া হয়েছে। কিন্তু এ বিষয়ে কোম্পানির কাছে কোন মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই বলে জানানো হয়।

এপেক্স ফুডস: খাদ্য ও আনুষাঙ্গিক খাতের জুন ক্লোজিং ৫ কোটি ৭০ লাখ টাকা মূলধনী এ কোম্পানিটির শেয়ারদর আগস্ট মাসের ১ তারিখে ছিল ১২২ দশমিক ৮০ টাকা। গত ২৮ আগস্ট লেনদেন শেষে এ কোম্পানিটির শেয়ারদর হয়েছে ১৫৬ দশমিক ১০ টাকা। অর্থাৎ মাত্র ১৮কার্যদিবসে কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ২১ দশমিক ৩৩ শতাংশ। ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরের ৯ মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ২ দশমিক ৭৯ টাকা। কোম্পানিটি বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে রয়েছে।

এর আগে চলতি বছরে ডিএসই থেকে অস্বাভাবিক দর বাড়ার কারণ জানতে চাওয়া হয়েছে। কিন্তু এ বিষয়ে কোম্পানির কাছে কোন মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই বলে জানানো হয়।

এমবি ফার্মা: ওসুধ ও রসায়ন খাতের ডিসেম্বর ক্লোজিং ২ কোটি ৪০ লাখ টাকা মূলধনী এ কোম্পানিটির শেয়ারদর আগস্ট মাসের ১ তারিখে ছিল ৩২৬ টাকা। গত কাল ২৮ আগস্ট লেনদেন শেষে এ কোম্পানিটির শেয়ারদর হয়েছে ৫৪৫ দশমিক ৮০ টাকা। অর্থাৎ মাত্র ১৮ কার্যদিবসে কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ৪০ দশমিক ২৭ শতাংশ। অথচ ডিসেম্বর ক্লোজিং এ কোম্পানিটি এখনো ডিভিডেন্ড নির্ধারণী বোর্ড মিটিং করতে পারেনি। ২০১৫ অর্থবছরের ৯ মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৩ দশমিক ১০ টাকা। কোম্পানিটি বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে রয়েছে।

এর আগে চলতি বছরে ডিএসই থেকে অস্বাভাবিক দর বাড়ার কারণ জানতে চাওয়া হয়েছে। কিন্তু এ বিষয়ে কোম্পানির কাছে কোন মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই বলে জানানো হয়।

মডার্ন ডাইং: বস্ত্র খাতের জুন ক্লোজিং ১ কোটি ৩৬ লাখ ৮০ হাজার টাকা মূলধনী এ কোম্পানিটির শেয়ারদর আগস্ট মাসের ১ তারিখে ছিল ১৩৬ দশমিক ৫০ টাকা। গতকাল ২৮ আগস্ট লেনদেন শেষে এ কোম্পানিটির শেয়ারদর হয়েছে ৩১৯টাকা। অর্থাৎ মাত্র ১৮ কার্যদিবসে কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ৫৭ দশমিক ২১ শতাংশ। আর গত ৫২ সপ্তাহে কোম্পানিটির শেয়ার এখন সর্বোচ্চ দরে রয়েছে। বর্তমানে কোম্পানিটির পিই রেশিও ৫৩ দশমিক ৪৫। ২০১৫-২০১৬অর্থবছরের ৯ মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে দশমিক ৪৪ টাকা। কোম্পানিটি বর্তমানে ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে রয়েছে।

শেয়ারবাজারনিউজ/সো

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top