বেড়েছে সূচক: লেনদেন চলতি বছরের সর্বনিম্ম

price-up-downশেয়ারবাজার রিপোর্ট: সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে দেশের উভয় শেয়ারবাজারে টানা বিপর্যয় কাটিয়ে সূচক বাড়লেও লেনদেনে লেগেছে ভাটা। বৃহস্পতিবার লেনদেন শুরু থেকেই সূচকে উত্থান লক্ষ্য করা গেছে। এদিন সূচকে পাশাপাশি বেড়েছে বেশীরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। আর টাকার অংকে লেনদেন গেছে তলানিতে। ফলে ডিএসইতে আজকের লেনদেন চলতি বছরের সর্বনিম্ম।

বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের আনন্দে ভাসছে সারদেশে। আর এ আনন্দের হাওয়া সূচকে লাগলেও লেনদেনে পড়ছে ভাটা। বিশেষকরে চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে বাজারের দৈন্যতা কাটছে না বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

দিনশেষে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ২৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৪৪৬৮ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩০৬টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৭৮টির, কমেছে ৯৫টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৩টি কোম্পানির শেয়ার দর। যা টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ১৬৬ কোটি ৬১ লাখ ৪০ হাজার টাকা। আর চলতি বছরের সর্বনিম্ম লেনদেন। গত বছরের ২৮ ডিসেম্বর ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ১৫৬ কোটি ৭৪ লাখ ৪১ হাজার টাকা। এরপর এটাই এখন পর্যন্ত সর্বনিম্ম লেনদেন।

এর আগে বুধবার ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স অবস্থান করে ৪৪৪২ পয়েন্টে। ওই দিন লেনদেন হয় ৩১৩ কোটি ৩৪ লাখ ৭৬ হাজার টাকা। সে হিসেবে বুধবার ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ১৪৬ কোটি ৭৩ লাখ ৩৬ হাজার টাকা বা ৪৬.৮৩ শতাংশ।

এদিকে দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সাধারণ মূল্যসূচক ৩৮ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৮২৯৪ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২১৩টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৩২টির, কমেছে ৫৩টির ও দর অপরিবর্তিত রয়েছে ২৮টির। যা টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ১৪ কোটি ৯৯ লাখ ৪৯ হাজার টাকা। আর এটাই সাড়ে তিন মাসের সর্বনিম্ম লেনদেন। চলতি বছরের ৫ জানুযারিতে সিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ১৪ কোটি ৯৫ লাখ ৯০ হাজার টাকা। এরপর এটাই এখন পর্যন্ত সর্বনিম্ম লেনদেন।

এর আগে বুধবার সিএসইর সাধারণ মূল্য সূচক অবস্থান করে ৮২৫৫ পয়েন্টে। ওইদিন লেনদেন হয় ২২ কোটি ২১ লাখ ৬৩ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ সিএসইতে লেনদেন কমেছে ৭ কোটি ২২ লাখ ১৪ হাজার টাকা বা ৩২.৫০ শতাংশ।

শেয়ারবাজার/অ

 

আপনার মন্তব্য

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top