অর্থবছর পরিবর্তনে বাজারের উন্নতি হয়েছে: মো: নজরুল ইসলাম

alliance1শেয়ারবাজার রিপোর্ট: মো: নজরুল ইসলাম ১০ বছরের বেশি সময় ধরে পুঁজিবাজারে কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে। তিনি বর্তমানে অ্যালায়েন্স ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস লিমিটেডে ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এবং সিইও হিসেবে নিয়োজিত রয়েছে। বর্তমান বাজার পরিস্থিতি ও আইপিওতে কোম্পানি না আনার যে সকল কারণ রয়েছে তা নিয়ে শেয়ারবাজারনিউজ ডটকমের সাথে একান্ত সাক্ষাতকারের চুম্বক অংশ পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হল।

শেয়ারবাজারনিউজ: বর্তমানে বাজার উন্নতির দিকে রয়েছে এর কারন কি হতে পারে বলে মনে করছেন?

মো: নজরুল ইসলাম: ট্যাক্সের সুবিধার জন্য পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান এবং বীমা কোম্পানি ছাড়া সকল প্রতিষ্ঠানকে জুন ক্লোজিং করার জন্য অর্থ আইনে বলা হয়েছে। আর অর্থবছর পরিবর্তন বর্তমান বাজার উন্নয়নের অন্যতম কারণ হতে পারে বলে আমি মনে করছি। অর্থবছর পরিবর্তনে প্রতিটি কোম্পানির পক্ষ থেকে সব সময় ঘোষণা আসছে। আর এই কারণেই বাজার কিছুটা উন্নতির দিকে রয়েছে। আশা করা যায় আগামী এক থেকে দেড় মাস বাজারের আরো উন্নতি হবে এবং এ ধারা পরবর্তীতে বজায় থাকবে।

শেয়ারবাজারনিউজ: তালিকাভূক্ত ৫৪টি মার্চেন্ট ব্যাংকের মধ্যে ১৫-২০টি মার্চেন্ট বাজারে ইস্যু আনাতে পারছে বাকি গুলো আনতে পারছে না। এর কারণ কি হতে পারে বলে আপনি মনে করছেন?

মো: নজরুল ইসলাম: বাজারে আইপিওর মাধ্যেমে নতুন কোম্পানি না আনতে পারার পেছনে অন্যতম কারণ হিসেবে আমি মনে করছি প্রফেশনাল টিমের অভাব। প্রফেশনাল টিম না থাকার কারনেই হয়তো অনেক মার্চেন্ট বাংক বাজারের নতুন কোন কোম্পানি বা ইসু আনতে পারছে না।

শেয়ারবাজারনিউজ: প্রফেশনাল টিম তৈরির জন্য কি করা উচিৎ বলে মনে করছেন?

মো: নজরুল ইসলাম: আসলে চাইলেইতো আর খুব সহজে প্রফেশনাল টিম তৈরী করা যায় না। এর জন্য সময় প্রয়োজন। কমপক্ষে এক থেকে দেড় বছর সময় দিলে একটি প্রফেশনাল টিম তৈরী করা সম্ভব বলে আমার মনে হয়।

শেয়ারবাজারনিউজ: প্রফেশনাল টিম ছাড়াও আইপিওতে কোম্পানি না আনতে পারার পেছনে অন্যান্য আর কি কি কারণ থাকতে পারে?

মো: নজরুল ইসলাম: প্রফেশনাল টিম ছাড়াও আইপিওতে কোম্পানি আনার জন্য আমার মনে হয় কোম্পানির লিডারের দক্ষতা অত্যন্ত জরুরী, যে কর্পোরেট হাউজগুলো আইপিওতে কোম্পানি আনতে চাচ্ছে তাদের কনফিডেন্স। আরো একটি কারন হতে পারে দক্ষ জনবলের অভাব। যার কারণে হয়ত নতুন কোম্পানি বাজারে আনতে পারছে না।

শেয়ারবাজারনিউজ: গত ৩ বছরে কোন কোম্পানি আইপিওতে আনতে না পারায় বিএসইসি আপনাদের চিঠি দিয়েছে তা কিভাবে মূল্যায়ন করছেন?

মো: নজরুল ইসলাম: চিঠির প্রেক্ষিতে আমরাও বিএসিইসিকে চিঠি দিয়ে জানিয়ে দিয়েছি ২০১৪ সালের অক্টোবর মাসে একটি রাইট ইস্যু এনেছি সে হিসেবে এবছরের অক্টোবর পর্যন্ত সময় রয়েছে। রাইট ইস্যু থাকার কারনে হয়তো তারা লক্ষ্য করেনি।

শেয়ারবাজারনিউজ: বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফেরাতে আপনারা কি ধরনের উদ্যোগ নিয়েছেন?

মো: নজরুল ইসলাম: বিনিয়োগকারীদের আস্থা ধরে রাখতে আমরা ভাল কোম্পানি আইপিও’র মাধ্যমে বাজারে আনার জন্য কাজ করছি। লক্ষ্য করলে দেখবেন গত ৯ বছরে আমরা যে কোম্পানিগুলো বাজারে এনেছি তার বেশির ভাগ কোম্পানি বর্তমানে ভালো অবস্থানে রয়েছে। আর ভালো ইস্যু বাজারে আনার জন্য সময় একটু বেশি লাগে।

শেয়ারবাজারনিউজ: বর্তমানে কোন কোম্পানির আইপিও’র কাজ করছেন কিনা?

মো: নজরুল ইসলাম: বর্তমানে আমাদের হাতে কয়েকটি কোম্পানির কাজ রয়েছে। আসা করছি এ বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে দেশের পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাছে আমরা জমা দিতে পারবো।

শেয়ারবাজারনিউজ: আপনারা কোন প্রতিষ্ঠানের আর্থিক উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করছেন কিনা?

মো: নজরুল ইসলাম: শুধু আইপিও ইস্যু দিয়ে একটি মার্চেন্ট ব্যাংকের পরিচালনা করা কঠিন। সকল মার্চেন্ট ব্যাংক আর্থিক উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করে। আমরাও কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের আর্থিক উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করছি।

শেয়ারবাজারনিউজ: সময় দেয়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

মো: নজরুল ইসলাম: আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ।

শেয়ারবাজারনিউজ/সো

আপনার মন্তব্য

Top