১০ কোম্পানিকে সতর্ক করলো বিএসইসি

BSECশেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক একচেঞ্জসহ (ডিএসই) ১০ কোম্পানিকে গতমাসে সতর্ক করেছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।  অন্যান্য কোম্পানিগুলো হলো- রাজলঙ্কা পাওয়ার, ওরগানিক হেলথ কেয়ার, ফারইস্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টেমেন্ট, ন্যাশনাল ব্যাংক, তাল্লু স্পিনিং, জাহিনটেক্স ইন্ড্রাস্ট্রিজ, সুহৃদ ইন্ড্রাস্ট্রিজ, সোনালী পেপার অ্যান্ড বোর্ড মিলস লিমিটেড। বিএসইসির এনফোর্সমেন্ট বিভাগ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র মতে, আইন পরিপালনে ব্যর্থতা হওয়ায় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জকে (ডিএসই) সতর্ক করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। এ নিয়ে গত ৩১ আগস্ট ডিএসই’র চিফ রেগুলেটরি অফিসারকে (সিআরও) সতর্ক করে চিঠি দিয়েছে বিএসইসি।

বিএসইসি’র এনফোর্সমেন্ট বিভাগের উপ-পরিচালক মুসতারি জাহান স্বাক্ষরিত সতর্ক পত্রে বলা হয়েছে, লিস্টিং রেগুলেশন অমান্য করে নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে কিছু না জানিয়ে ডিএসই ২০১৪ সালে তালিকাভুক্ত ঔষধ ও রসায়ন খাতের ফার্মা এইড কোম্পানির কারখানা ও অফিস আকষ্মিক তদন্তের উদ্যোগ নিয়েছিল। পাশাপাশি কারসাজির অভিযোগে কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেনও স্থগিত করা হয়েছিল। অথচ লিস্টিং রেগুলেশনের পুরাতন আইনে ডিএসই-কে এ ক্ষমতা দেওয়া হয়নি।

এর আগে গত ২৯ জুন, ২০১৬ তারিখে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন পালন না করায় কারণ দর্শানোর জন্য নোটিশ দিয়েছিল কমিশন।কারণ দর্শানোর জন্য গত ১৬ জুলাই এর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

ঐ দিনের শুনানিতে প্রতিষ্ঠানটি আইন লঙ্ঘনের কারণ লিখিত আকারে কমিশনে দাখিল করে। সে প্রেক্ষিতে সার্বিক দিক বিবেচনা করে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন যথাযথভাবে পালনে সতর্ক থাকার জন্য নির্দেশনা দেয় কমিশন।

এদিকে সম্পদ বাড়ানোর আইন প্রতিপালন না করায় রাজলঙ্কা পাওয়ার কোম্পানিকে নিয়ন্ত্রক সংস্থা সতর্ক করে চিঠি পাঠিয়েছে। গত ৮ আগস্ট এ জন্য কোম্পানির ব্যাবস্থাপনা পরিচালকের কাছে একটা সতর্ক চিঠি পাঠায় বিএসইসি।

এর আগে গত ২০ জুলাই, ২০১৬ তারিখে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন পালন না করায় কারণ দর্শানোর জন্য নোটিশ দিয়েছিল কমিশন।কারণ দর্শানোর জন্য গত ২৭ জুলাই এর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

ঐ দিনের শুনানিতে প্রতিষ্ঠানটি আইন লঙ্ঘনের কারণ লিখিত আকারে কমিশনে দাখিল করে। এই প্রেক্ষিতে সার্বিক দিক বিবেচনা করে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন যথাযথভাবে পালনে সতর্ক থাকার জন্য নির্দেশনাও দিয়েছে কমিশন।

একই আইন প্রতিপালন না করায় ওরগানিক হেলথ কেয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের কাছে একটা সতর্ক চিঠি পাঠায় নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি।

এর আগে গত ১৮ জুলাই, ২০১৬ তারিখে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন পালন না করায় কারণ দর্শানোর জন্য নোটিশ দিয়েছিল কমিশন। কারণ দর্শানোর জন্য ওইদিনই এর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

সেই শুনানিতে প্রতিষ্ঠানটি আইন লঙ্ঘনের কারণ লিখিত আকারে কমিশনে দাখিল করে। এই প্রেক্ষিতে সার্বিক দিক বিবেচনা করে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন যথাযথভাবে পালনে সতর্ক থাকার জন্য নির্দেশনাও দিয়েছে কমিশন।

রেকর্ড ডেট আইন প্রতিপালন না করায় ফারইস্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও-কে  গত ৩১ আগস্ট একটা চিঠি পাঠায় বিএসইসি।

এর আগে গত ১৩ জুলাই, ২০১৬ তারিখে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন পালন না করায় কারণ দর্শানোর জন্য নোটিশ দিয়েছিল কমিশন। কারণ দর্শানোর জন্য গত ২৯ জুলাই এর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

সেই শুনানিতে প্রতিষ্ঠানটি আইন লঙ্ঘনের কারণ লিখিত আকারে কমিশনে দাখিল করে। এই প্রেক্ষিতে সার্বিক দিক বিবেচনা করে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন যথাযথভাবে পালনে সতর্ক থাকার জন্য নির্দেশনাও দিয়েছে কমিশন।

এছাড়া প্রাইস সেন্সসেটিভ আইন প্রতিপালন না করায় ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড এবং তাল্লু স্পিনিং মিলসের পরিচালক, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও এবং কোম্পানি সে্রেকটারিকে একটি সতর্ক চিঠি পাঠায় বিএসইসি। গত ২৬ জুন, ২০১৬ তারিখে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন পালন না করায় কারণ দর্শানোর জন্য নোটিশ দিয়েছিল কমিশন। কারণ দর্শানোর জন্য গত ১৩ জুলাই এর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

সেই শুনানিতে প্রতিষ্ঠানটি আইন লঙ্ঘনের কারণ লিখিত আকারে কমিশনে দাখিল করে। এই প্রেক্ষিতে সার্বিক দিক বিবেচনা করে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন যথাযথভাবে পালনে সতর্ক থাকার জন্য নির্দেশনাও দিয়েছে কমিশন।

এদিকে শেয়ার পজিশন আইন প্রতিপালন না করায় জাহিনটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজের কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালকে একটি সর্তক চিঠি দেয় বিএসইসি। গত ১৩ জুলাই, ২০১৬ তারিখে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন পালন না করায় কারণ দর্শানোর জন্য নোটিশ দিয়েছিল কমিশন। কারণ দর্শানোর জন্য গত ২৬ জুলাই এর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

সেই শুনানিতে প্রতিষ্ঠানটি আইন লঙ্ঘনের কারণ লিখিত আকারে কমিশনে দাখিল করে। এই প্রেক্ষিতে সার্বিক দিক বিবেচনা করে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন যথাযথভাবে পালনে সতর্ক থাকার জন্য নির্দেশনাও দিয়েছে কমিশন।

একই আইন প্রতিপালন না করায় ফাইন ফুড কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালকে একটি সর্তক চিঠি দেয় বিএসইসি। গত ১৩ জুলাই, ২০১৬ তারিখে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন পালন না করায় কারণ দর্শানোর জন্য নোটিশ দিয়েছিল কমিশন। কারণ দর্শানোর জন্য গত ২৭ জুলাই এর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

সেই শুনানিতে প্রতিষ্ঠানটি আইন লঙ্ঘনের কারণ লিখিত আকারে কমিশনে দাখিল করে। এই প্রেক্ষিতে সার্বিক দিক বিবেচনা করে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন যথাযথভাবে পালনে সতর্ক থাকার জন্য নির্দেশনাও দিয়েছে কমিশন।

অন্যদিকে প্রাইস সেন্সসেটিভ আইন পালন না করায় সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালকে সর্তক করে একটি চিঠি দেয় বিএসইসি। গত ২৬ জুন, ২০১৬ তারিখে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন পালন না করায় কারণ দর্শানোর জন্য নোটিশ দিয়েছিল কমিশন। কারণ দর্শানোর জন্য গত ২৬ জুলাই এর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

সেই শুনানিতে প্রতিষ্ঠানটি আইন লঙ্ঘনের কারণ লিখিত আকারে কমিশনে দাখিল করে। এই প্রেক্ষিতে সার্বিক দিক বিবেচনা করে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন যথাযথভাবে পালনে সতর্ক থাকার জন্য নির্দেশনাও দিয়েছে কমিশন।

এদিকে কর্পোরেট গভর্ন্যাস গাইড লাইন (সিজিজি) আইন প্রতিপালন না করায় সোনালী পেপার অ্যান্ড বোর্ড মিলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালকে সতর্ক করে একটি চিঠি দেয় বিএসইসি। গত ২৯ জুন, ২০১৬ তারিখে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন পালন না করায় কারণ দর্শানোর জন্য নোটিশ দিয়েছিল কমিশন। কারণ দর্শানোর জন্য গত ১৪ জুলাই এর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

সেই শুনানিতে প্রতিষ্ঠানটি আইন লঙ্ঘনের কারণ লিখিত আকারে কমিশনে দাখিল করে। এই প্রেক্ষিতে সার্বিক দিক বিবেচনা করে সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত আইন যথাযথভাবে পালনে সতর্ক থাকার জন্য নির্দেশনাও দিয়েছে কমিশন।

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top