জুনকে কেন্দ্র করে ১১ কোম্পানির বাড়তি ডিভিডেন্ড

Dividend_ডিভিডেন্ডশেয়ারবাজার রিপোর্ট: এনবিআরের নির্দেশনা অনুযায়ী ২০১৬-১৭ অর্থবছরের মধ্যে ব্যাংক, বীমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান ছাড়া সকল কোম্পানি জুন ক্লোজিং করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। এববিআরের নির্দেশনা অনুযায়ী ৮৯টি কোম্পানি জুন ক্লোজিং করতে হবে। এর মধ্যে অনেক কোম্পানির অর্থবছর জুন ক্লোজিং করা হয়েছে এবং কিছু কোম্পানি এর প্রক্রিয়ায় রয়েছে।

সেই ধারাবাহিকতায় ইতিমধ্যে ১১ কোম্পানি ৩০ জুন সমাপ্ত অর্থবছরে বিনিয়োগকারীদের জন্য বাড়তি ডিভিডেন্ড ঘোষনা করেছে।

কোম্পানিগুলো হলো: ন্যাশনাল ফিড, ইবনে সিনা, ইভেন্স টেক্সটাইল, আরগন ডেনিমস, বেক্সিমকো ফার্মা, এমজেএল বিডি, আরডি ফুড, স্টাইল ক্রাফট, ইউনাইটেড পাওয়ার, রিজেন্ট টেক্সটাইল এবং স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস।

ন্যাশনাল ফিড লিমিটেড

বিবিধ খাতের ন্যাশনাল ফিড লিমিটেড ১৮ মাসের জন্য ১৫ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা দিয়েছে। গত ৩১ ডিসেম্বর’১৪ অর্থবছরে কোম্পানিটি ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড দিয়েছিল। এক্ষেত্রে জুন ক্লোজিংয়ের ফলে বাড়তি ৬ মাসের জন্য ৫ শতাংশ বেশি ডিভিডেন্ড ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

জানা যায়, ১৮ মাসে (জানুযারি ১৫- জুন’১৬) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৭৯ টাকা।

আলোচিত সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) যথাক্রমে ০.১২ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত ১৪.৭১ টাকা।

ইবনে সিনা

ঔষধ ও রসায়ন খাতের কোম্পানি জানুয়ার’১৬-জুন’১৬ পর্যন্ত ছয় মাসের জন্য বিনিয়োগকারীদের ১২.৫০ শতাংশ ক্যাশ এবং ৫ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে।

রোববার ২ অক্টোবর অনুষ্ঠিত এ কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে কোম্পানি সূত্রে জানা গেছে।

এর আগে জানুয়ারি, ২০১৫ থেকে ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৫ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ২৫ শতাংশ ক্যাশ ও ১০ শতাংশ স্টকসহ মোট ৩৫ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছিল।

অর্থাৎ ১৮ মাসের হিসাব নিরীক্ষা শেষে কোম্পানিটি বিনিয়োগকারীদের জন্য মোট ৩৭.৫০ শতাংশ ক্যাশ ও ১৫ শতাংশ স্টকসহ সর্বমোট ৫২.৫ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে।

জানা যায়, জানুয়ারি, ২০১৫ থেকে জুন, ২০১৬ পর্যন্ত ১৮ মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১১.৪৪ টাকা। শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৩৮.৭২ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১৯.৪০ টাকা।

এর মধ্যে জানুয়ারি, ২০১৬ থেকে জুন, ২০১৬ পর্যন্ত ছয় মাসে ইপিএস হয়েছে ৩.৫১ টাকা, এনএভি হয়েছে ৩৮.৭২ টাকা এবং এনওসিএফপিএস হয়েছে ৯.৮০ টাকা। অপরদিকে, জানুয়ারি, ২০১৫ থেকে ডিসেম্বর, ২০১৫ পর্যন্ত ইপিএস ৭.৯৩ টাকা, এনএভি ৩৭.১০ টাকা এবং এনওসিএফপিএস ৯.৬০ টাকা।

ইভেন্স টেক্সটাইল

পুঁজিবাজারে সদ্য তালিকাভুক্ত ইভেন্স টেক্সটাইল ১৮ মাসের জন্য ১০ শতাংশ ক্যাশ ও ২০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ডসহ মোট ৩০ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে।

জানা যায়, বস্ত্র খাতের কোম্পানি ইভেন্স টেক্সটাইল ১ জানুয়ারী ২০১৫ থেকে ৩০ জুন ২০১৬ পর্যন্ত সময়ের (১৮ মাস) জন্য এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.২৫ টাকা। এছাড়া শেয়ার প্রতি সম্পদ মুল্য (এনএভিপিএস) ১৭.১৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের (এনওসিএফপিএস) পরিমাণ  হয়েছে ৫.৬৯ টাকা। এ কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ২৪ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। তবে এজিএমের সময় এবং স্থান পরে জানানো হবে। এ সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট ৩ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে।

আরগন ডেনিমস

বস্ত্র খাতের আরগন ডেনিমস ৩১ ডিসেম্ব’১৪ অর্থবছরের জন্য ২০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড দিয়েছিল। জুন ক্লোজিং করায় চলতি অর্থবরের ১৮ মাসের জন্য ১০ শতাংশ ক্যাশ এবং ১৫ শতাংশ স্টকসহ মোট ২৫ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এক্ষেত্রে জুন ক্লোজিংয়ের ফলে বাড়তি ৬ মাসের জন্য ৫ শতাংশ বেশি ডিভিডেন্ড ঘোষণা দেয়া হয়েছে। সোমবার ৩ অক্টোবর অনুষ্ঠিত কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

আর্গন ডেনিমস ১ জানুয়ারী ২০১৫ থেকে ৩০ জুন ২০১৬ পর্যন্ত সময়ের (১৮ মাস) জন্য এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪.৩৯ টাকা। এছাড়া শেয়ার প্রতি সম্পদ মুল্য (এনএভিপিএস) ২৭.১০ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের (এনওসিএফপিএস) পরিমাণ হয়েছে ৫.৬৯ টাকা।

বেক্সিমকো ফার্মা লিমিটেড

ঔষধ ও রসায়ন খাতের কোম্পানি জানুয়ারি, ২০১৬ থেকে জুন, ২০১৬ পর্যন্ত ছয় মাসের জন্য বিনিয়োগকারীদের ৫ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। বৃহস্পতিবার ৬ অক্টোবর অনুষ্ঠিত এ কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে কোম্পানি সূত্রে জানা গেছে।

এর আগে জানুয়ারি, ২০১৫ থেকে ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৫ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ১০ শতাংশ ক্যাশ ও ৫ শতাংশ স্টকসহ মোট ১৮ মাসের জন্য ২০ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে।

জানা যায়, জানুয়ারি, ২০১৫ থেকে জুন, ২০১৬ পর্যন্ত ১৮ মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৭.৬৩ টাকা। শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৫৯.৭০ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৮.২১ টাকা।

এর মধ্যে জানুয়ারি, ২০১৬ থেকে জুন, ২০১৬ পর্যন্ত ছয় মাসে ইপিএস হয়েছে ২.৫৭ টাকা। অপরদিকে, জানুয়ারি, ২০১৫ থেকে ডিসেম্বর, ২০১৫ পর্যন্ত ইপিএস ৫.০৫ টাকা।

এমজেএল বাংলাদেশ লিমিটেড

জ্বালানী ও বিদ্যুৎ খাতের কোম্পানি এমজেএল বাংলাদেশ (এমজেএল বিডি) বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৮ মাসের অর্থাৎ জানু’১৫-জুন’১৬ অর্থবছরের জন্য মোট ৭০ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে।  এর মধ্যে গত ৩১ ডিসেম্বর ২০১৫ সমাপ্ত অর্থবছরের কোম্পানিটি ৩০ ক্যাশ এবং ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছিলো। আর জানু-জুন১৬ বাকী ৬ মাসে ৩০ শতাংশ অন্তবর্তীকালীন ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে।

জানা যায়, ১৮ মাসে এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৭.৭২ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ৩৫.৫১ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১৪.৯৮ টাকা।

আরডি ফুড:

খাদ্য ও আনুষাঙ্গিক খাতের কোম্পানি আরডি ফুড লিমিটেড শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১৮ মাসের  জন্য ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা দিয়েছে। এর মধ্যে ১২ মাসের জন্য ৫ শতাংশ স্টক এবং বাকী ৬ মাসের জন্য ৫ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। উল্লেখ্য, আরডি ফুড ২০১৪ অর্থবছরে কোন ডিভিডেন্ড ঘোষনা করেনি।

জানা যায়, ১৮ মাসে (জানুযারি ১৫- জুন’১৬) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৯২ টাকা এবং জানুয়ারি, ২০১৬ থেকে জুন, ২০১৬ পর্যন্ত এ ছয় মাসে ইপিএস হয়েছে ০.৩১ টাকা।

আলোচিত সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) যথাক্রমে ১.৭০ টাকা এবং ০.৬২  টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত ১৭.৭৯ টাকা এবং ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৫ পর্যন্ত হয়েছে ১৭.৪৭ টাকা।

ঘোষিত ডিভিডেন্ড অনুমোদনের জন্য কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ৩ নভেম্বর, ২০১৬ কোম্পানির ফ্যাক্টরি প্রাঙ্গনে সকাল ১১টায় অনুষ্ঠিত করবে। এর জন্য রেকর্ড নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ১৮ অক্টোবর।

স্টাইলক্রাফট:

বস্ত্র খাতের কোম্পানি স্টাইলক্রাফট লিমিটেড ১৫ মাসের হিসাব অনুযায়ী শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৭৫ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এপ্রিল, ২০১৫ থেকে মার্চ, ২০১৬ পর্যন্ত ১২ মাসের জন্য ৬০ শতাংশ ক্যাশ এবং পরবর্তী তিন মাস (এপ্রিল থেকে জুন’১৬) এর জন্য ১৫ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। প্রসঙ্গত, অর্থ আইন অনুযায়ী কোম্পানিটি হিসাব বছর জুন ক্লোজিং করেছে। তাই মার্চ ক্লোজিং কোম্পানিটিকে চলতি বছর ১৫ মাসের হিসাব করতে হয়েছে।

জানা যায়, ১৫ মাসে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৯৫.৪২ টাকা। শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৪৬২.৯০ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ২১৯ টাকা।

ইউনাইটেড পাওয়ার:

বিদ্যুৎ ও জ্বালানী খাতের কোম্পানি ইউনাইটেড পাওয়ার জানুয়ারী ২০১৫ থেকে ৩০ জুন ২০১৬ পর্যন্ত ১৮ মাসের জন্য ৪৫ শতাংশ চূড়ান্ত ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এর আগে কোম্পানিটি ৮০ শতাংশ অন্তবর্তীকালীন ক্যাশ ডিভিডেন্ড দিয়েছে। এ সময়ে কোম্পানির মোট ডিভিডেন্ডের পরিমান দাড়িয়েছে ১২৫ শতাংশ।

জানা যায়, সমাপ্ত অর্থবছরে এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৫.৫৭ টাকা। এছাড়া শেয়ার প্রতি সম্পদ মুল্য (এনএভিপিএস) ৩৪.৫০ টাকা ও শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১৬.১০ টাকা। এ কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ২৯ অক্টোবর সকাল ১০টায় রাজধানীর আর্মি গলফ ক্লাবে অনুষ্ঠিত হবে। এ সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ অক্টোবর।

রিজেন্ট টেক্সটাইল:

বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৮ মাসের অর্থাৎ জানু’১৫-জুন’১৬ অর্থবছরের জন্য মোট ১৫ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে রিজেন্ট টেক্সটাইল লিমিটেড।  এর মধ্যে গত ৩১ ডিসেম্বর ২০১৫ সমাপ্ত অর্থবছরের কোম্পানিটি ৫ শতাংশ ক্যাশ এবং ৫ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছিলো। আর জানু-জুন১৬ বাকী ৬ মাসে ৫ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে।

জানা যায়,  ১৮ মাসে এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৯৪ টাকা,  শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ৩১.৩৭ টাকা এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ২.৯২ টাকা।

স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ওষুধ ও রসায়ন খাতের স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড ৩০ জুন ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরে (১৫ মাসের জন্য) ৪০ শতাংশ ক্যাশ ও ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এর আগে ২০১৫ অর্থ বছরে ৩০ শতাংশ ক্যাশ এবং ১২.৫০ শতাংশ ঘোষনা করেছিল। এক্ষেত্রে জুন ক্লোজিংয়ের ফলে বাড়তি ৬ মাসের জন্য ৭.৫০ শতাংশ বেশি ডিভিডেন্ড ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

রোববার ১৬ অক্টোবর অনুষ্ঠিত কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র মতে, ১৫ মাসে (এপ্রিল’১৫-জুন’১৬) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৪.৮০ টাকা। তার আগের ১৫ মাসে (জানুয়ারি’১৪-মার্চ’১৫) কোম্পানির ইপিএস ছিল ১০.৪৬ টাকা। এর শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ৫৭.০৮ টাকা। তার আগের বছরের ১৫ মাসে এনএভিপিএস ছিল ৪৪.৯৫ টাকা। ১৫ মাসে স্কয়ার ফার্মার শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো’র পরিমান (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১৫.৮৮ টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/সো

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top