১১ কোম্পানির আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ

Arthik Protibadon_আর্থিক প্রতিবেদনশেয়ারবাজার রিপোর্ট: গত সপ্তাহে (২২ অক্টোবর সমাপ্ত) পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ১১ কোম্পানির আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছে। কোম্পানিগুলো হলো: যমুনা ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক, ম্যারিকো, আইডিএলসি, পিপলস ইন্স্যুরেন্স, আইপিডিসি, উত্তরা ব্যাংক, প্রাইম ইসলামী লাইফ, বার্জার পেইন্টস, গ্রামীণ ফোন এবং শমরিতা হসপিটাল। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এর মধ্যে ব্যাংক খাতের কোম্পানি যমুনা ব্যাংক তৃতীয় প্রান্তিকের অনীরিক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী উত্তরা ব্যাংকের তিন প্রান্তিকে অর্থাৎ ৯ মাসে (জানুয়ারী১৬ থেকে সেপ্টেম্বর১৬) সমন্বিত শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.২৪ টাকা যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ১.১৩ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ০.১১ টাকা বা ৯.৭৩ শতাংশ। এছাড়া শুধুমাত্র তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানির সমন্বিত ইপিএস হয়েছে ০.২৪ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ০.৩৮ টাকা।

এছাড়া তিন প্রান্তিক মিলে কোম্পানির সমন্বিত শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাড়িয়েছে ২৪.২৯ টাকা, যা আগের বছর ছিল ২৩.৭১ টাকা। একই সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমান দাড়িয়েছে ৯.৯৩ টাকা (নেগেটিভ), যা আগের বছর ছিল ৪.৯০ টাকা।

ইস্টার্ণ ব্যাংকের লিমিটেড তৃতীয় প্রান্তিকের(জানু’১৬ থেকে মার্চ’১৬) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশকরেছে। প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ০.০৯ টাকা বা ৩.০৬ শতাংশ বেড়েছে। তৃতীয় প্রান্তিকে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি সম্মনিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩.০৩ টাকা। যা আগেরবছরের একই সময়ে ২.৯৪ টাকা ছিল। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ০.০৯ টাকা বা ৩.০৬ শতাংশ বেড়েছে।

এছাড়া কোম্পানির শেয়ার প্রতি সম্মনিত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ২৮.৮০ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্মনিত কার্যকরি নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৭.০২ টাকা (নেগেটিভ)।

ম্যারিকো বাংলাদেশ লিমিটেড বিনিয়োগকারীদের জন্য ৩০০ শতাংশ অন্তবর্তীকালীন ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। চলতি হিসাব বছরের ৬ মাসের (এপ্রিল-সেপ্টেম্বর ১৬) আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনার ভিত্তিতে এই ডিভিডেন্ড ঘোষণা করা হয় বলে কোম্পানি সূত্রে জানা গেছে। আর ডিভিডেন্ড সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ১০ নভেম্বর।

এর আগে কোম্পানিটি প্রথম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ১৫০ শতাংশ অর্ন্তবর্তীকালীন লভ্যাংশ দিয়েছিল। এই হিসাবে সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য কোম্পানির অন্তবর্তীকালীন ডিভিডেন্ড পরিমাণ দাঁড়াল ৪৫০ শতাংশ।

এদিকে, দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-সেপ্টেম্বর ১৬) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২৭.৯০ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ২৫.২১ টাকা এবং ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৬৬.৮৬ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ২৭.১৭ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ৫১.৮৭ টাকা এবং ৩১ মার্চ ২০১৫ পর্যন্ত এনএভিপিএস ৫৪.২৫ টাকা।

আর গত তিন মাসে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ১৬) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১৩.৬১ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল ১২.৭৫ টাকা।

আইডিএলসি ফাইন্যান্স শেয়ারবাজার ডেস্ক: তৃতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত (জানু ১৬- সেপ্টেম্বর-১৬) আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত আর্থিক খাতের কোম্পানি আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেড। তৃতীয় প্রান্তিকে আইডিএলসি ফাইন্যান্সের শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫.৩৪ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ১১.৫৯ টাকা (নেগেটিভ) এবং শেয়ার প্রতি সমন্বিত সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৩৩.৮২ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ৪.৫৮ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ১৯.০২ টাকা এবং ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৫ এনএভিপিএস ছিলো ৩০.৯৭ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.৭৬ টাকা বা ১৬.৫৯ শতাংশ।

গত তিন মাসে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ১৬) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৮৩ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে সমন্বিত আয় ছিল ১.৩৩ টাকা।

পিপলস ইন্স্যুরেন্স: তৃতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত (জানু ১৬- সেপ্টেম্বর-১৬) আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে পিপলস ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড।

তৃতীয় প্রান্তিকে পিপলস ইন্স্যুরেন্সের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৬১ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ৩.০২ টাকা । যা আগের বছরে একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ১.৫৩ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ২.৫১ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.০৮ টাকা বা ৫.২৩ শতাংশ।

এছাড়া গত তিন মাসে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ১৬) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৫৬ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে আয় ছিল ০.৪৩ টাকা।

আইপিডিসি ফাইন্যান্স: তৃতীয় প্রান্তিকের (জানু১৬ থেকে সেপ্টেম্বর১৬) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে পুঁজিবাজারে আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড। প্রতিবেদন অনুযায়ী তৃতীয় প্রান্তিকে আইপিডিসি’র শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৬৭ টাকা, যা আগের বছরে একই সময়ে ছিল ১.০৫ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.৬২ টাকা বা ৫৯ শতাংশ। এই ৯ মাসে  কোম্পানির কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ২৫ কোটি ২৫ লাখ ৬৭ হাজার টাকা। আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ১৫ কোটি ৯৩ লাখ ৪৭ হাজার টাকা।

অন্যদিকে, গত তিন মাসে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ১৬) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৪৮ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে আয় ছিল ০.৫০ টাকা। আর এ সময়ে কোম্পানির কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ৭ কোটি ২৪ লাখ ১০ হাজার টাকা। গতবছরের একই সময়ে যা ছিল ৭ কোটি ৫৭ লাখ ৪ হাজার টাকা।

উত্তরা ব্যাংক: তৃতীয় প্রান্তিকের অনীরিক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংক খাতের কোম্পানি উত্তরা ব্যাংক লিমিটেড। চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিক অর্থাৎ জানুয়ারি’১৬ থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর’১৬ পর্যন্ত এ নয় মাসে ব্যাংকটির কর পরিশোধের পর প্রকৃত মুনাফা হয়েছে ১১০ কোটি টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৭৫ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে ব্যাংকটির প্রকৃত মুনাফা ছিল ১১৬ কোটি ৫১ লাখ টাকা এবং ইপিএস ছিল ২.৯১ টাকা। দেখা যাচ্ছে এক বছরের ব্যাবধানে ব্যাংকটির মুনাফা ৬ কোটি ৫০ লাখ টাকা কমেছে।

এছাড়া চলতি হিসাব বছরের ৯ মাসে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) ৩২.৯৭ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১৬.৮৬ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে এনএভি ৩২.৮৯ টাকা এবং এনওসিএফপিএস ১৩.৮২ টাকা ছিল।

প্রাইম ইসলামী লাইফ: পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত বিমা খাতের কোম্পানি প্রাইম ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর’১৬) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানির প্রিমিয়াম আদায় বেড়েছে ৫.৮২ শতাংশ।

তৃতীয় প্রান্তিকে প্রাইম ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের প্রিমিয়াম আদায় হয়েছে ৭২৬ কোটি ৪৭ লাখ ২০ হাজার টাকা। যা আগের বছর একই সময় ছিল ৬৮৬ কোটি ৪৯ লাখ ৪০ হাজার টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির প্রিমিয়াম আদায় বেড়েছে ৩৯ কোটি ৯৭ লাখ ৮০ হাজার টাকা।

এছাড়া গত তিন মাসে (জুলাই-সেপ্টম্বর’১৬) কোম্পানির প্রিমিয়াম আদায় হয়েছে ৬ কোটি ৮৩ লাখ ৯০ হাজার টাকা। যা আগের বছর একই সময় ছিল ৫ কোটি ৪৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

বার্জার পেইন্টস: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বার্জার পেইন্টসের তিন প্রান্তিকে অর্থাৎ ৯ মাসে (জানুয়ারী১৬ থেকে সেপ্টেম্বর১৬) সমন্বিত শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬২.৫১ টাকা যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ৪৫.৩৫ টাকা। এছাড়া শুধুমাত্র তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানির সমন্বিত ইপিএস হয়েছে ১৩.৫৮ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ১০.৫৩ টাকা।

এছাড়া তিন প্রান্তিক মিলে কোম্পানির সমন্বিত শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাড়িয়েছে ২২১.৯৩ টাকা, যা আগের বছর ছিল ১৮৬.৪২ টাকা। একই সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমান দাড়িয়েছে ৬৮.৬৩ টাকা, যা আগের বছর ছিল ৬০.২৩ টাকা।

গ্রামীণ ফোন: টেলিকমিউনিকেশন খাতের কোম্পানি গ্রামীণ ফোনের তিন প্রান্তিকে অর্থাৎ ৯ মাসে (জানুয়ারী১৬ থেকে সেপ্টেম্বর১৬) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১২.৭০ টাকা যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ১০.৮৩ টাকা। এছাড়া শুধুমাত্র তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ৪.৭৮ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ৩.০৭ টাকা।

এছাড়া তিন প্রান্তিক মিলে কোম্পানির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাড়িয়েছে ২১.০১ টাকা, যা আগের বছর ছিল ১৯.৫৫ টাকা। একই সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমান দাড়িয়েছে ২৪.৩৫ টাকা (নেগেটিভ), যা আগের বছর ছিল ২১.৫৮ টাকা।

শমরিতা হসপিটাল: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি শমরিতা হসপিটালের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই১৬ থেকে সেপ্টেম্বর১৬) সমন্বিত শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৫ টাকা যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ০.৬৫ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস কমেছে ০.৪০ টাকা।

এছাড়া প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানির সমন্বিত শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাড়িয়েছে ৫৬.২০ টাকা, যা আগের বছর ছিল ৫৬.৩৪ টাকা। একই সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমান দাড়িয়েছে ০.৭৮ টাকা, যা আগের বছর ছিল ০.৬১ টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/রু

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top