ই-মেইল ইস্যুতে বিব্রত অবস্থায় হিলারি ক্লিনটন

hilariশেয়ারবাজার ডেস্ক: ই-মেইল ইস্যুতে আবারও বিব্রত অবস্থায় পড়েছেন হিলারি ক্লিনটন। এ ইস্যুকে কাজে লাগিয়ে নির্বাচনে ফায়দা তুলতে উঠেপড়ে লেগেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। শুক্রবার এফবিআই নতুন করে ই-মেইল ইস্যুতে কথা বললে চটজলদি হিলারি পূর্ণাঙ্গ তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের আহ্বান জানিয়েছেন। আর ট্রাম্প বলেছেন, হিলারির এই বিশাল দুর্নীতি সম্পর্কে আগে কখনো আমরা শুনিনি।

নিরাপত্তা সূত্রের বরাত দিয়ে সিএনএন জানিয়েছে, হিলারির সহযোগী হুমা আবেদিনের প্রাক্তন স্বামী অ্যান্থনি ওয়েইনারের ওপর তদন্তের সময় এফবিআই নতুন ই-মেইল পেয়েছে, যেগুলোর সঙ্গে হিলারির সম্পর্ক রয়েছে বলে মনে করছে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় এই তদন্ত সংস্থা। তবে হিলারির বিশ্বাস, এসব ই-মেইলে এমন কোনো তথ্য উঠে আসবে না, যা আগের সিদ্ধান্তকে পরিবর্তন করবে অর্থাৎ তাকে অপরাধী প্রমাণ করবে।

শুক্রবার এফবিআইয়ের পরিচালক জেমস কমে কংগ্রেসের আইনপ্রণেতাদের উদ্দেশে এক চিঠিতে জানিয়েছেন, তাদের হাতে নতুন কিছু ই-মেইল এসেছে, যেগুলো সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারির ব্যক্তিগত সার্ভার ব্যবহারবিষয়ক তদন্তের সঙ্গে সংগতিপূর্ণ। এগুলো পর্যালোচনা করে দেখা হচ্ছে।

আর ১০ দিন পরে যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। ঠিক এই সময়ে নতুন করে ই-মেইল ইস্যু সামনে আসায় চরম বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন হিলারি ও তার প্রচারশিবির। চার মাস আগে এফবিআইয়ের এই পরিচালক জেমস কমে বলেছিলেন, হিলারির ই-মেইল ব্যবহারের বিষয়ে তিনি ক্রিমিন্যাল চার্জ আনবেন না। কেননা, তাতে রাষ্ট্রের এমন কোনো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য (ক্লাসিফাইড ইনফরমেশন) তথ্য ছিল না, যা রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি হতে পারে।

চার মাস আগের সেই অবস্থান থেকে নাটকীয়ভাবে নির্বাচনের মাত্র ১০ দিন আগে ই-মেইল ইস্যু নিয়ে কংগ্রেসকে চিঠি দিয়েছেন জেমস কমে। প্রায় দুই সপ্তাহ আগে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগাম ভোট শুরু হয়েছে। অনলাইনে ভোট গ্রহণ চলছে। এতে এগিয়ে আছেন হিলারি। ঠিক এমন সময় ই-মেইল ইস্যু নিয়ে এফবিআইয়ের ঘাঁটাঘাঁটি ঘুম হারাম করবে হিলারির।

হিলারির ঘুম হারাম হলেও ফুর্তি মেজাজে আছেন রিপাবলিকান পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। নিউ হ্যাম্পশায়ার রাজ্যের ম্যানচেস্টারে এক সমাবেশে হিলারির উদ্দেশে ট্রাম্প বলেন, ‘আমরা তাকে তার ক্রিমিন্যাল স্কিম নিয়ে ওভাল অফিসে যেতে দিতে পারি না।’

এদিকে, আইওয়াতে এক সমাবেশে হিলারি এফবিআইয়ের উদ্দেশে বলেছেন, ‘ভোট গ্রহণ চলছে। এ মুহূর্তে আমেরিকার জনগণ পূর্ণাঙ্গ তথ্য পেতে চায়।’ তিনি আরো বলেন, ‘দেরি না করে এফবিআইয়ের উচিত এ ইস্যুতে যে প্রশ্ন উঠেছে, তার ব্যাখ্যা দেওয়া।’

ডোনাল্ড ট্রাম্প গত কয়েক সপ্তাহ রক্ষণাত্মক ভূমিকায় নির্বাচনী প্রচার চালান। কিন্তু শুক্রবার তার হাতে হিলারিকে ঘায়েলের নতুন অস্ত্র এসেছে। এর যথাযথ ব্যবহার করে ভোটের ফলাফলে বাজিমাত করতে চান ট্রাম্প।

হিলারি অভিযোগ করেছেন, এফবিআইয়ের পরিচালক শুধু কংগ্রেসে রিপাবলিকান সদস্যদের কাছে চিঠি পাঠিয়েছেন। এর জবাবে ট্রাম্প বলেছেন, তদন্ত নিয়ে রাজনীতি করার চেষ্টা করছেন হিলারি। আট সদস্যের কংগ্রেশনাল কমিটির চেয়ারম্যানের কাছে পাঠানো চিঠিতে জেমস কমে লিখেছেন, অন্য একটি মামলার তদন্তের সময় এমন কিছু ই-মেইল বেরিয়ে এসেছে, যা হিলারির ব্যক্তিগত সার্ভার ব্যবহারবিষয়ক তদন্তের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত।

শেয়ারবাজারনিউজ/সো

আপনার মন্তব্য

Top