জর্ডানের প্রথম পারমানবিক চুল্লি বানাচ্ছে রাশিয়া

rosatomশেয়ারবাজার ডেস্ক: জর্ডানের প্রথম পারমানবিক চুল্লি নির্মানের কাজ শুরু হতে যাচ্ছে। বৃহস্পতিবার দেশটির রাজধানী আম্মানে রাশিয়ার সাথে ১০ বিলিয়ন ডলারের এ সংক্রান্ত একটি চুক্তি সাক্ষর করে দেশটির সরকার। চুল্লিটি দেশটির উত্তরাঞ্চলের আমরায় নির্মান করা হবে। সূত্র: আল-জাজিরা।

জ্বালানি সংকটে ধুঁকতে থাকা জর্ডানের বিদ্যুৎ খাত মূলত আমদানি নির্ভর। প্রায় ৯৬ শতাংশ জ্বালানিই আমদানি করা হয়। দেশটির আঞ্চলিক ও জাতীয় বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যাবস্থা প্রায় ভঙ্গুর। এর মধ্যে দেশটির প্রতিবেশি দুই দেশ ইরান, ইরাক ও মিশরের চলমান সংকটে আমদানি ব্যাবস্থাও হুমকির মধ্যে পড়েছে।

দেশটির রাষ্ট্রিয় সংবাদ সংস্থা পেট্রা জানায়, ২০২২ সালের মধ্যে এ বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মানের কাজ শেষ হবে। ১০ বিলিয়ন ডলারের এ চুক্তিতে রাশিয়া ১ হাজার মেগাওয়াটের দুইটি রি-এক্টর স্থাপন করবে।

পারমানবিক চুল্লি নির্মানের চুক্তির কারন হিসেবে দেশটির পারমানবিক শক্তি কমিশনের প্রধান খালিদ তুকান বলেন, ‘আমরা ইরাক থেকে তেল ও মিশর থেকে গ্যাসের সরবরাহ হারিয়েছি। এর কারনে প্রতিবছর জর্ডান ৩ বিলিয়ন ডলারের রাজস্ব হারাচ্ছে। এখন পারমানবিক শক্তি উৎপাদন একটি সমাধান হতে পারে। এক্ষেত্রে, মূল কাঁচামালগুলো দেশের ভেতর থেকেই সরবরাহ করা যাবে।’

jordan-russia

২০০৭ সালে দেশটিতে ইউরেনিয়ামের যথেষ্ট মজুদ আবিষ্কৃত হলেও দেশটি তা কাজে লাগাতে পারেনি।

রাশিয়ান পারমানবিক প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান রোসাটমের পরিচালক সের্গেই কিরিয়েনকো জর্ডানের পারমানবিক চুল্লির নিরাপত্তা সম্পর্কে বলেন, ‘রাশিয়ার ৭০ বছরের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে এ চুল্লি নির্মান করবে। এ ক্ষেত্রে ফুকুশিমার ঘটনাকেও শিক্ষা হিসেবে কাজে লাগানো হবে। আর এ চুক্তি হচ্ছে দেশটির সাথে সম্পূর্ণ কৌশলগত চুক্তি।’

জানা যায়, চুক্তির অধিনের ৪৯ শতাংশ মালিকানা থাকবে রোসাটমের এবং বাকি ৫১ ভাগ মালিকানা থাকবে জর্ডান সরকারের। প্রথম ১০ বছর জর্ডান সরকার রি-এক্টরের উৎপাদিত জ্বালানি ক্রয় করবে। এর পর অন্য সরবরাহকারিদেরকেও এর দায়িত্ব দেয়া যাবে।

 

শেয়ারবাজার/ও

 

 

 

আপনার মন্তব্য

Top