১০ শতাংশের নিচে সম্মিলিত শেয়ার ধারন করছে ৮ কোম্পানি

dse-cseশেয়ারবাজার রিপোর্ট: বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নির্দেশনা অনুযায়ী তালিকাভুক্ত কোম্পানির পরিচালকদের সম্মলিতভাবে ৩০ শতাংশ শেয়ার ধারণের নির্দেশ থাকলেও ৪৪টি কোম্পানি তা মানছে না। এর মধ্যে ৮ কোম্পানির পরিচালকদের হাতে ১০ শতাংশের নিচে অবস্থান করছে।

জানা যায়, পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ফাইন ফুডস, এটলাস বাংলাদেশ, ইনটেক লিমিটেড, ফুয়াং ফুডস, ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ, বিডি ওয়েল্ডিং, আইএফআইসি ব্যাংক এবং সুহৃদ ইন্ডাষ্ট্রিজ লিমিটেডের পরিচালকদের সম্মিলিতভাবে শেয়ার ধারণ মোট শেয়ারের ১০ শতাংশের নিচে অবস্থান করছে।

ফাইন ফুডের পরিচালনা পর্ষদের কাছে রয়েছে ১.০৬ শতাংশ শেয়ার। বাকি শেয়ারগুলোর মধ্যে প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ০.৫২ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ৯৮.৪২ শতাংশ শেয়ার।

এটলাস বাংলাদেশের পরিচালনা পর্ষদের কাছে রয়েছে ১.২২ শতাংশ শেয়ার। বাকি শেয়ারগুলোর মধ্যে  সরকারের কাছে ৫১ শতাংশ, প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ২১.১৭ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ২৬.৬১ শতাংশ শেয়ার।

ইনটেক লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদের কাছে রয়েছে ২.৫৫ শতাংশ শেয়ার। বাকি শেয়ারগুলোর মধ্যে প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ২৭.৪৫ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ৭০ শতাংশ শেয়ার।

ফুয়াং ফুডসের পরিচালনা পর্ষদের কাছে রয়েছে ৪.৭৬ শতাংশ শেয়ার। বাকি শেয়ারগুলোর মধ্যে প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ১৮.১৪ শতাংশ, বিদেশীদের কাছে ০.০১ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ৭৭.০৯ শতাংশ শেয়ার।

ইউনাইটেড এয়ারের পরিচালনা পর্ষদের কাছে রয়েছে ৫.০২ শতাংশ শেয়ার। বাকি শেয়ারগুলোর মধ্যে প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ১৭.৪৩ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ৭৭.৫৫ শতাংশ শেয়ার।

বিডি ওয়েল্ডিংয়ের পরিচালনা পর্ষদের কাছে রয়েছে ৫.০৪ শতাংশ শেয়ার। বাকি শেয়ারগুলোর মধ্যে প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ২৮.১৩ শতাংশ, বিদেশীদের কাছে ০.৭২ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ৬৬.১১ শতাংশ শেয়ার।

আইএফআইসি ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের কাছে রয়েছে ৮.৪৮ শতাংশ শেয়ার। বাকি শেয়ারগুলোর মধ্যে সরকারের কাছে ৩২.৭৫ শতাংশ, প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ২৪.২৪ শতাংশ, বিদেশীদের কাছে ০.৪২ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ৩৪.১১ শতাংশ শেয়ার।

সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালনা পর্ষদের কাছে রয়েছে ৯.৪১ শতাংশ। আর বাকি ৯০.৫৯ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে।

তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, ২০১১ সালের ২২ নভেম্বর বিএসইসির ধারা ২সিসি অর্পিত ক্ষমতাবলে অধ্যাদেশ, ১৯৬৯ (১৯৬৯ এর xvii) প্রজ্ঞাপন জারিতে বলা হয় পরিচালকদের ৩০ শতাংশ শেয়ার ধারণের বাধ্য-বাধকতা পূরণ করতে হবে। তারপরেও তালিকাভুক্ত ৪৪ কোম্পানির পরিচালকরা ৩০ শতাংশের কোটা পূরণ করছে না। এর মধ্যে উল্লেখিত ৮ কোম্পানির অবস্থা খুবই করুণ। যদিও এসব কোম্পানির পরিচালকরা  শেয়ার ধারণে ব্যর্থ হওয়ায় মূলধন বৃদ্ধি করতে রাইট শেয়ার বা রিপিট পাবলিক অফারের (আরপিও) আবেদন করতে পারবে না। কিন্তু বন্ড ছাড়ার মাধ্যমে মূলধন উত্তোলনের সুযোগ রয়েই গেছে।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/সো

আপনার মন্তব্য

Top