৪৬ কোম্পানির প্রান্তিক প্রতিবেদন প্রকাশ

Arthik Protibadon_আর্থিক প্রতিবেদনশেয়ারবাজার রিপোর্ট: প্রথম প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বর’১৬) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৪৬ কোম্পানি। সোমবার (১৪ নভেম্বর) এসব কোম্পানির অনুষ্ঠিত পরিচালনা পর্ষদ সভায় এ প্রতিবেদন পর্যালোচনা করা হয়। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

ম্যাকসন স্পিনিং, মেট্রো স্পিনিং, ইমাম বাটন, তিতাস গ্যাস, জাহিন স্পিনিং, জিপিএইচ ইস্পাত, বিডিকম অনলাইন, সাফকো স্পিনিং, সামিট অ্যালায়েন্স পোর্ট, প্রাইম টেক্সটাইল, গ্লোবাল হ্যাভী কেমিক্যালস, এনভয় টেক্সটাইল, আইটিসি, রিজেন্ট টেক্সটাইল, আফতাব অটোমেবাইল, সেন্ট্রাল ফার্মা, নর্দার্ণ জুট, বঙ্গজ লিমিটেড, তাল্লু স্পিনিং, কনফিডেন্স সিমেন্ট, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল, আনলিমা ইয়ার্ন, ওরিয়ন ফার্মাসিউটিক্যাল, বারাকা পাওয়ার, স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স, এ্যাপেক্স স্পিনিং, অ্যাপোলো ইস্পাত, ফাইন ফুডস, আরএসআরএম লিমিটেড, আমরা টেকনোলজিস, দেশ গার্মেন্টস, এ্যাপেক্স ফুডস, অগ্নি সিস্টেমস, নাভানা সিএনজি, বেক্সিমকো লিমিটেড, সায়হাম টেক্সটাইল, সায়হাম কটন, শাইনপুকুর সিরামিক, কেপিপিএল, বেক্সিমকো সিনথেটিক, সিমটেক্স, বেক্সিমকো ফার্মা, ইয়াকিন পলিমার, ইস্টার্ন ক্যাবলস, এএফসি এগ্রো বায়োটেক এবং একটিভ ফাইন কেমিক্যাল।

ম্যাকসন স্পিনিং:

প্রথম প্রান্তিকে ম্যাকসন স্পিনিংয়ের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.১৪ টাকা। গত বছরের একই সময়ে যা ছিল ০.০৫ টাকা। প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৯.৬৩ টাকা। ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১৯.৫০ টাকা। এছাড়া শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৫৪৯ টাকা (নেগেটিভ)। গত অর্থবছরে যার পরিমাণ ছিল ০.১২০ টাকা (নেগেটিভ)।

মেট্রো স্পিনিং:

প্রথম প্রান্তিকে মেট্রো স্পিনিংয়ের শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.০৯ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.০২১ টাকা (নেগেটিভ০ এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৫.৯৬ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.০৬ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ০.০০৮০ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ১৬.১২ টাকা।

ইমাম বাটন ইন্ডাস্ট্রিজ:

প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.২৪ টাকা। যা গত বছরের একই সময়ে ছিল ০.৩৬ টাকা।  সে হিসেবে কোম্পানির লোকসান কমেছে ০.১২ টাকা।

এছাড়া আলোচিত সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ৮.০৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.০৩ টাকা।  যা আগের বছর একই সময় ছিল যথাক্রমে ৮.৯৫ টাকা এবং ০.১৫ টাকা।

তিতাস গ্যাস:

প্রথম প্রান্তিকে তিতাস গ্যাসের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.০৮ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.২৯ টাকা (নেগেটিভ) এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৬৩.৭৩ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১.৫৭ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ১.৩৭ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ৬২.৬৪ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির ইপিএস কমেছে ০.৪৯ টাকা বা ৩১.২০ শতাংশ।

জাহিন স্পিনিং:

প্রথম প্রান্তিকে জাহিন স্পিনিংয়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৫৩ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.১৪ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৫.১১ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৬২ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ১.৭৩ টাকা (নেগেটিভ) এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত এনএভিপিএস ছিল ১৪.৫৮ টাকা।

জিপিএইচ ইস্পাত:

প্রথম প্রান্তিকে জিপিএইচ ইস্পাতের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৩৭ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.৩৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৫.৮২ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৬৫ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ১.৬৯ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ১৫.৪৫ টাকা।

বিডিকম অনলাইন:

প্রথম প্রান্তিকে বিডিকম অনলাইনের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৪২ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৩৭ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৫.৪৮ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৪৩ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ০.৬৭ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ১৫.০৫ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির ইপিএস কমেছে ০.০১ টাকা।

সাফকো স্পিনিং:

প্রথম প্রান্তিকে সাফকো স্পিনিংয়ের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.০৯ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৫৪ টাকা (নেগেটিভ) এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৮.৭৩ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.০৬ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ০.৯২ টাকা এবং এনএভিপিএস ছিল ২০.৫২ টাকা।

সামিট অ্যালায়েন্স পোর্ট:

প্রথম প্রান্তিকে সামিট অ্যালায়েন্স পোর্টের শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.১৪ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সমন্বিত সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২৪.৪৮ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.১৮  টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত এনএভিপিএস ছিল ২৪.৩৪ টাকা।

প্রাইম টেক্সটাইল:

প্রথম প্রান্তিকে প্রাইম টেক্সটাইলের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৬ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৮৫ টাকা (নেগেটিভ) এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৫১.৪০ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.২২ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ০.৪১ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ৫১.০৭ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.০৪ টাকা বা ১৮.১৮ শতাংশ।

গ্লোবাল হ্যাভী কেমিক্যালস:

প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ০.২৩ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৮৯ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৫৩.৪৩ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৫১ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ০.৮৯ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ৫৩.২০ টাকা।

এনভয় টেক্সটাইল:

প্রথম প্রান্তিকে এনভয় টেক্সটাইলের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৩৩ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ২.৯৫ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৩৯.০৮ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৩৭ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ০.৮৭ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত এনএভিপিএস ছিল ৩৮.৭৫ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির ইপিএস কমেছে ০.০৪ টাকা বা ১০.৮১ শতাংশ।

আইটিসি:

প্রথম প্রান্তিকে আইটিসি’র শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.১২ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৩৮ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৮.৮১ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ০.০৬ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ১.১৫ টাকা (নেগেটিভ) এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ১৯.৩৭ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.১৮ টাকা।

রিজেন্ট টেক্সটাইল:

প্রথম প্রান্তিকে রিজেন্ট টেক্সটাইলের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৮ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.০৪ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৩১.৬৭ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৪৫ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ০.০৬ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ৩১.৩৭ টাকা।

আফতাব অটোমেবাইল:

প্রথম প্রান্তিকে আফতাব অটোমেবাইলের শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৮৪ টাকা, শেয়ার প্রতি সমন্বিত কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৯৬ টাকা (নেগেটিভ) এবং শেয়ার প্রতি সমন্বিত সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৫৬.৯২ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৬৭ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ৪.১৪ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত এনএভিপিএস ছিল ৫৬.০৮ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.১৭ টাকা বা ২৫.৩৭ শতাংশ।

সেন্ট্রাল ফার্মা:

প্রথম প্রান্তিকে সেন্ট্রাল ফার্মার শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.১৩ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.০১ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৭.৪৩ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৩০ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ০.০২ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ১৭.৩০ টাকা।

নর্দার্ণ জুট:

প্রথম প্রান্তিকে নর্দার্ণ জুট লিমিটেড শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ৩.০৬ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৫৯.৯৮ টাকা (মাইনাস) এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৮২.৮৮ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ১.০৩ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ৪.২১ টাকা এবং এনএভিপিএস ছিলো ৮৫.৯৪ টাকা।

বঙ্গজ লিমিটেড:

প্রথম প্রান্তিকে বঙ্গজ লিমিটেড শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.১৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২২.৬০ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৭৭ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছর পর্যন্ত এনএভিপিএস ছিলো ২২.৭৬ টাকা।

তাল্লু স্পিনিং:

প্রথম প্রান্তিকে এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.২০ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৪.০২ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১৪.০২ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ১৪.২২ টাকা।

কনফিডেন্স সিমেন্ট:

প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৩০ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে (জুলাই’১৫-সেপ্টেম্বর’১৫) ছিল ০.৫৯ টাকা। এছাড়া আলোচিত সময়ে শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৭৫ টাকা ১৪ পয়সা।

প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল:

প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৪৪ টাকা, এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ২১.৮৭ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৩৭ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ২১.৫৭ টাকা।

আনলিমা ইয়ার্ন:

প্রথম প্রান্তিকে আনলিমা ইয়ার্ন লিমিটেডের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.১৬ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.১৭ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১১.৪২ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.১৪ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ০.১১ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ১১.২৬ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.০২ টাকা।

ওরিয়ন ফার্মাসিউটিক্যাল:

প্রথম প্রান্তিকে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ১৭ পয়সা। এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ৭৩ পয়সা। দেখা যাচ্ছে এক বছরের ব্যবধানে ইপিএস ৬০ শতাংশ বেড়েছে।

এছাড়া আলোচিত সময়ে শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৭১ টাকা ৯ পয়সা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৩৩ পয়সা।

বারাকা পাওয়ার:

প্রথম প্রান্তিকে বারাকা পাওয়ার লিমিটেডের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৯৩ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৭৯ টাকা (নেগেটিভ) এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২০.৭৯ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৮৯ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ৩.৩৫ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ১৯.৮৬ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.০৪ টাকা।

স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স:

প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স। এর মধ্যে প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.০৭ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী  নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ০.০৭ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৭.৯৮ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৮১ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ১.৩২ টাকা এবং এনএভিপিএস ছিল ১৭.৮৬ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস কমেছে ০.৭৪ টাকা।

দ্বিতীয় প্রান্তিকে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.১৮ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী  নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ০.১১ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৮.০৯ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ১.৪৫ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ১.৯৪ টাকা এবং এনএভিপিএস ছিল ১৬.৭৭ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস কমেছে ০.০৭ টাকা।

এছাড়া গত তিন মাসে (এপ্রিল-জুন’১৬) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.১১ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে আয় ছিল ০.৭৩ টাকা।

এবং তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৩২ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী  নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ০.১৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৮.২২ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ১.৮৩ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ০.৪৪ টাকা এবং এনএভিপিএস ছিল ১৭.১৩ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস কমেছে ১.৫১ টাকা।

এছাড়া গত তিন মাসে (জুলাই-সেপ্টেম্বর’১৬) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.১৩ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে আয় ছিল ০.৩৮ টাকা।

এ্যাপেক্স স্পিনিং:

প্রথম প্রান্তিকে এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৪৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৩৪.১৪ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৪৭ টাকা এবং এনওসিএফপিএস ১২.০৫ টাকা (নেগেটিভ)।

অ্যাপোলো ইস্পাত:

প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানির সমন্বিত শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৬১ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ০.৬৫ টাকা। দেখা যাচ্ছে এক বছরের ব্যবধানে ইপিএস কমেছে।

এছাড়া আলোচিত সময়ে সম্পদ পুনর্মূল্যায়নের পর শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ২৪ টাকা ৫ পয়সা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ২২ পয়সা।

ফাইন ফুডস:

প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.১৯৩ টাকা। শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১০.৮০২ টাকা এবং শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.০১৭ পয়সা।

আরএসআরএম লিমিটেড:

প্রথম প্রান্তিকে আরএসআরএম স্টিল লিমিটেডের শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.১১ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.১৩ টাকা (নেগেটিভ) এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৪২.২৭ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১.০৩ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ০.৮৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ৪৬.৯৯ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.০৮ টাকা।

আমরা টেকনোলজিস:

প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর, ১৬) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৩৩ টাকা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ০.১৮ টাকা। এসময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ২২.৪৪ টাকা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ২১.৮১ টাকা।

দেশ গার্মেন্টস:

প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৫২ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৮৯ টাক। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ১.৮৩ টাকা।

এছাড়া আলোচিত সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৬.৫১ টাকা (নেগেটিভ) ও শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২০.৪৩ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে হয়েছিল ৭.৪৯ টাকা (নেগেটিভ) এবং এনএভিপিএস ছিল ১৩.১৬ টাকা।

এ্যাপেক্স ফুডস:

প্রথম প্রান্তিকে এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৮ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নিট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো হয়েছে (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৮.৪৭ টাকা (নেগেটিভ)। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ১.৯০ টাকা এবং এনওসিএফপিএস ছিল ১৩.৬৮ টাকা।

অগ্নি সিস্টেমস:

প্রথম প্রান্তিকে এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৭ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ১৫.৪৭ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ইপিএস ০.২৬ টাকা এবং এনএভিপিএস ১৫.৭৯ টাকা।

নাভানা সিএনজি:

প্রথম প্রান্তিকে নাভানা  সিএনজির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৭৮ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৭৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৩২.১৮ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৭৫ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ০.৬৬ টাকা এবং এনএভিপিএস ছিল ৩১.৪০ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.০৩ টাকা।

বেক্সিমকো লিমিটেড:

প্রথম প্রান্তিকে বেক্সিমকো লিমিটেডের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৩৪ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.৮০ টাকা (নেগেটিভ) এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৮৪.২৭ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.১৬ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ০.৬৬ টাকা (নেগেটিভ) এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ৮৩.৮৪ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.১৮ টাকা বা ১১২.৫০ শতাংশ।

সায়হাম টেক্সটাইল:

প্রথম প্রান্তিকে সায়হাম টেক্সটাইলের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২১ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.৩৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২৭.৮৮ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.১৭ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ৩.২০ টাকা (নেগেটিভ) এবং এনএভিপিএস ছিল ২৮.০৭ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.০৪ টাকা।

সায়হাম কটন:

প্রথম প্রান্তিকে এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ২২.৯৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৭০ টাকা।

শাইনপুকুর সিরামিক:

প্রথম প্রান্তিকে শাইনপুকুর সিরামিক লিমিটেডের শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.১৬ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.০৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২৭.৯২ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ০.১১ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ০.০৬ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ২৮.০৯ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির লোকসানের পরিমাণ বেড়েছে ০.০৫ টাকা।

কেপিপিএল:

প্রথম প্রান্তিকে কেপিপিএল শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.০৬ টাকা (নেগেটিভ)।  যা এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.১৬ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটি মুনাফা থেকে লোকসানে বিরাজ করছে।

এছাড়া আলোচিত সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.১৫ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৭.০৫ টাকা।  যা এর আগের বছর একই সময়ে এনওসিএফপিএস ছিলো ০.৭৯ টাকা (নেগেটিভ) এবং এনএভিপিএস ছিল ১৭.৫৫ টাকা।

বেক্সিমকো সিনথেটিক:

প্রথম প্রান্তিকে বেক্সিমকো সিনথেটিক লিমিটেডের শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.৪৩ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.০৬ টাকা (নেগেটিভ) এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২২.৯১ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ০.২৪ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ০.০৭ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ২৩.৩৪ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির লোকসানের পরিমাণ বেড়েছে ০.১৯ টাকা বা ৭৯.১৭ শতাংশ।

বিডিকম:

প্রথম প্রান্তিকে বিডিকমের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৪২ টাকা।  যা এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৪৩ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটি আয় কমেছে ০.০১ টাকা।

এছাড়া আলোচিত সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৩৭ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৫.৪৮ টাকা।  যা এর আগের বছর একই সময়ে এনওসিএফপিএস ছিলো ০.৪৭ টাকা এবং এনএভিপিএস ছিল ১৫.৮৫ টাকা।

সিমটেক্স:

প্রথম প্রান্তিকে সিমটেক্সের কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৩ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৭৭ টাকা এবং অ্যাডজাস্টটেড ইপিএস ছিল ০.৩৮ টাকা। এছাড়া শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.১৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২৩.৭২ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে এনওসিএফপিএস ছিলো ০.২৬ টাকা এবং এনএভিপিএস ছিল ২৩.২৯ টাকা।

বেক্সিমকো ফার্মা:

প্রথম প্রান্তিকে বেক্সিমকো ফার্মা লিমিটেডের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৩৩ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.৬২ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৬০.৯৭ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১.০৯ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিলো ২.০৯ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ৫৬.৮৪ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির ইপিএস পরিমাণ বেড়েছে ০.২৪ টাকা।

ইয়াকিন পলিমার:

প্রথম প্রান্তিকে ইয়াকিন পলিমারের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৩২ টাকা।  যা এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.২৯ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটি আয় বেড়েছে ০.০৩ টাকা।

এছাড়া আলোচিত সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৭৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৩.৯৯ টাকা।  যা এর আগের বছর একই সময়ে এনওসিএফপিএস ছিলো ১.০৫ টাকা এবং ৩০ জুন ২০১৬ পর্যন্ত এনএভিপিএস হয়েছিলো ১৫.৬২ টাকা।

ইষ্টার্ন ক্যাবলস:

প্রথম প্রান্তিকে ইষ্টার্ন ক্যাবলসের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.০২ টাকা ও শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৩০.৪৪ টাকা।

আর আলোচিত সময়ে শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১১.৬২ টাকা (মাইনাস)।

এএফসি এগ্রো:

প্রথম প্রান্তিকে এএফসি এগ্রোর লিমিটেডের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৯৯ টাকা, এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৭.৭৭ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৮৭ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ১৬.৭৮ টাকা। সে হিসাবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.১২ টাকা।

একটিভ ফাইন কেমিক্যাল:

প্রথম প্রান্তিকে একটিভ ফাইন কেমিক্যালের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.০১ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২৯.৫৩ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৯৬ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) ছিল ২৮.৫২ টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/রু

আপনার মন্তব্য

Top