রেকর্ড পরিমাণ কোম্পানির লেনদেন বন্ধ আজ

suspendশেয়ারবাজার রিপোর্ট: বৃহস্পতিবার ১৭ নভেম্বর, লেনদেন বন্ধ রাখবে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৩১ কোম্পানি। ক্যালেন্ডারের পাতার অন্য দিনগুলোর মতোই স্বাভাবিক দিনটিই দেশের শেয়ারবাজারের জন্য একটি বিশেষ উল্লেখযোগ্য দিন হয়ে উঠতে যাচ্ছে। এই দিনে একসঙ্গে রেকর্ড পরিমাণ কোম্পানির লেনদেন বন্ধ থাকবে। নিকট অতীতে এক দিনে এত অধিকসংখ্যক তালিকাভুক্ত কোম্পানির লেনদেন বন্ধের ঘটনা ঘটেনি।

এমন খবরে হয়তো আঁতকে উঠতে পারেন বিনিয়োগকারীরা। তবে বিষয়টি দুশ্চিন্তায় পড়ার মতো নয়। তালিকাভুক্তির নিয়ম মানতে গিয়েই এ বছর ঘটনাটি ঘটেছে। শেয়ারের মালিকানা নির্ধারণের জন্য ঘোষিত রেকর্ড ডেটের কারণে ১৭ নভেম্বর, ৩১টি কোম্পানির লেনদেন বন্ধ থাকবে, যা গত কয়েক বছরের মধ্যে ঘটেনি।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) তথ্য অনুযায়ী, ১৭ নভেম্বর যেসব কোম্পানির লেনদেন বন্ধ থাকবে, সেগুলো হলোঃ- ঝিলবাংলা সুগার মিলস, শ্যামপুর সুগার মিলস, রেনউইক যজ্ঞেশ্বর, আরামিট লিমিটেড, আরামিট সিমেন্ট, হাক্কানি পাল্প, সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজ, এম আই সিমেন্ট, হা ওয়েল টেক্সটাইল, লঙ্কাবাংলা ফিন্যান্স, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, আমান ফিড, প্রাণ (এএমসিএল), রংপুর ফাউন্ড্রি, বেঙ্গল উইন্ডসর, ইয়াকিন পলিমার, ন্যাশনাল পলিমার, বাংলাদেশ অটো কারস, সায়হাম কটন, ইফাদ অটোস, জাহিন স্পিনিং, জিকিউ বলপেন ইন্ডাস্ট্রিজ, অ্যাপেক্স ফুডস, অ্যাপেক্স স্পিনিং অ্যান্ড নিটিং মিলস, বারাকা পাওয়ার, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক, বিডিকম অনলাইন, তিতাস গ্যাস, লিবরা ইনফিউশনস, দেশ গার্মেন্টস এবং লংকাবাংলা ফাইন্যান্সের বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট।

সূত্র মতে, বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) কোম্পানিগুলোর বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) সংক্রান্ত  রেকড ডেট এবং লংকাবাংলা ফাইন্যান্সের বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট। আর এ কারণে লেনদেন স্থগিত রাখবে কোম্পানিগুলো। আগামী ২০ নভেম্বর, রোববার থেকে এসব কোম্পানিটির লেনদেন স্বাভাবিক নিয়মে চলবে।

জানা গেছে, এর আগে ২০১৫ সালের ২১ মে রেকর্ড ডেটের কারণে এক দিনে একসঙ্গে তালিকাভুক্ত ২১টি কোম্পানির লেনদেন বন্ধ ছিল। আর ২০১৪ সালের ১৫ মে এক দিনে ১৩টি কোম্পানির লেনদেন বন্ধ ছিল। সেই হিসাবে গত কয়েক বছরের মধ্যে ১৭ নভেম্বর সর্বোচ্চ ৩০টি কোম্পানির লেনদেন বন্ধ থাকবে।

একসঙ্গে ৩১টি কোম্পানির লেনদেন বন্ধের প্রভাব পড়বে বাজারে। সেই প্রভাবটি কেমন হতে পারে, জানতে চাইলে বেসরকারি ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়ের বাণিজ্য অনুষদের ডিন মোহাম্মদ মুসা বলেন, একসঙ্গে এতগুলো কোম্পানির লেনদেন এক দিনে বন্ধ থাকলে অবশ্যই এর নেতিবাচক একটি প্রভাব বাজারে পড়বে। যেদিন লেনদেন বন্ধ থাকবে, সেদিন সূচকে একধরনের প্রভাব পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

ডিএসইর ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী, ১৭ নভেম্বর যে ৩১টি কোম্পানির রেকর্ড ডেট রয়েছে, তার মধ্যে ২১টি কোম্পানিই ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে।

ডিএসইর পরিচালক শাকিল রিজভী বলেন, কম হোক আর বেশি হোক, তালিকাভুক্ত কোম্পানির প্রতিদিনই কিছু না কিছু লেনদেন হয়। সেখানে এক দিনে ৩১টি কোম্পানির লেনদেন বন্ধ থাকলে বাজারের সার্বিক লেনদেনও কমে যাওয়ার আশঙ্কা বেশি।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top