ডিএসই’তে লেনদেনের শীর্ষে ইফাদ অটো, সিএসই’তে গ্রামীন ফোন

লেনদেনের শীর্ষে_Turn overশেয়ারবাজার ডেস্ক: সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসে (৬ ডিসেম্বর) দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেনের শীর্ষে উঠে এসেছে প্রকৌশল খাতের কোম্পানি ইফাদ অটোকার্স লিমিটেড। অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) একই অবস্থানে রয়েছে গ্রামীন ফোন লিমিটেড। ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

মঙ্গলবার ডিএসই’তে ইফাদ অটোসের মোট ৬৮ লাখ ৮৯ হাজার ৯৩৫টি শেয়ার ৫ হাজার ২৩৫ বার হাতবদল হয়। যার বাজার মূল্য ৬১ কোটি ৮৮ লাখ ১৮ হাজার টাকা।

আজ ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে থাকা অন্যান্যের মধ্যে বিবিএসের শেয়ারে লেনদেন হয়েছে ৩১ কোটি ১৪ লাখ ৪ হাজার টাকা, ব্র্যাক ব্যাংকের ২৯ কোটি ২১ লাখ ৯৫ হাজার টাকা, শাশা ডেনিমসের ২২ কোটি ৫৫ লাখ ৯ হাজার টাকা, আর্গন ডেনিমসের ১৯ কোটি ৫০ লাখ ৭ হাজার টাকা, গ্লোবাল হেভির ১৬ কোটি ৫০ লাখ ৮ হাজার টাকা, অলিম্পিক এক্সেসরিজের ১২ কোটি ৬৩ লাখ ৮৮ হাজার টাকা, বিডিকমের ১২ কোটি ৭ লাখ ৯৩ হাজার টাকা, স্কয়ার ফার্মার ১১ কোটি ৪৪ লাখ ৮৯ হাজার টাকা, কাশেম ড্রাইসেলের ১১ কোটি ২১ লাখ ১০ হাজার টাকা, আরএসআরএম স্টিলের ১০ কোটি ৩৪ লাখ ৫৩ হাজার টাকা, অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজের ১০ কোটি ২১ লাখ ৩২ হাজার টাকা, ন্যাশনাল টিউবসের ৯ কোটি ৪৩ লাখ ১৫ হাজার টাকা, সিটি ব্যাংকের ৯ কোটি ৩৪ লাখ ২৮ হাজার টাকা, ডোরিন পাওয়ারের ৯ কোটি ১০ লাখ ১৯ হাজার টাকা, ড্যাফডিল কম্পিউটার্সের ৯ কোটি ৭ লাখ ২ হাজার টাকা, ফরচুন সুজের ৮ কোটি ৯৬ লাখ ১৩ হাজার টাকা, বেক্সিমকো ফার্মার ৮ কোটি ৯৩ লাখ ৯৯ হাজার টাকা, সাইফ পাওয়ারের ৮ কোটি ৮৯ লাখ ৮১ হাজার টাকা এবং বেক্সিমকো লিমিটেডের শেয়ারে লেনদেন হয়েছে ৮ কোটি ৭২ লাখ ৯৪ হাজার টাকা।

আজ সিএসই’তে গ্রামীন ফোনের মোট লাখ ১ লাখ ৮৮ হাজার ৬৬৩টি শেয়ার হাতবদল হয়ে লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে। যার বাজারমূল্য ৫ কোটি ৪১ লাখ ৪২ হাজার টাকা।

সিএসই’তে লেনদেনের শীর্ষে থাকা অন্যান্যের মধ্যে স্কয়ার ফার্মার শেয়ারে লেনদেন হয়েছে ৪ কোটি ৮৭ লাখ ৩৪ হাজার টাকা, বার্জার পেইন্টসের ৩ কোটি ২৯ লাখ টাকা, ব্র্যাক ব্যাংকের ৩ কোটি ৫৫ হাজার টাকা, বিবিএসের ১ কোটি ৬০ লাখ ৪৩ হাজার টাকা, ইফাদ অটোসের ১ কোটি ৪৮ লাখ ৯৭ হাজার টাকা, সিটি ব্যাংকের ১ কোটি ৪৪ লাখ ৮৭ হাজার টাকা, এমজেএল বিডির ১ কোটি ৩৪ লাখ ৬৮ হাজার টাকা, কেয়া কসমেটিক্সের ১ কোটি ১৮ লাখ ৩৬ হাজার টাকা, ডেল্টা স্পিনিংয়ের ১ কোটি ১৩ লাখ ৫২ হাজার টাকা, আর্গন ডেনিমসের ১ কোটি ১১ লাখ ৭৪ হাজার টাকা, বেক্সিকো লিমিটেডের ৯৪ লাখ ৬৫ হাজার টাকা, ন্যাশনার টিয়ের ৯২ লাখ ৭২ হাজার টাকা, পেনিনসুলার ৯১ লাখ ৩৫ হাজার টাকা, এবি ব্যাংকের ৮৯ লাখ ১৩ হাজার টাকা, অলিম্পিক এক্সেসরিজের ৮৮ লাখ ৫৫ হাজার টাকা, আরডি ফুডের ৮৭ লাখ ৭ হাজার টাকা, ফচুন সুজের ৮৩ লাখ ৮৯ হাজার টাকা, লংকাবাংলা ফাইন্যান্সের ৭৪ লাখ ৭০ হাজার টাকা এবং সেন্ট্রাল ফার্মার শেয়ারে লেনদেন হয়েছে ৭১ লাখ ৩৭ হাজার টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/সো

আপনার মন্তব্য

২ Comments

  1. Md. Rezaul Alam said:

    Excessisve transactions in speculative shares pose a serious threat to the prospect in the capital markets progress. It requires governments special attention to the developments in the market. It is very likely that many greedy and innocent chasrers will burn their fingers again and obligate the govt for the failure.

  2. Md. Rezaul Alam said:

    Excessisve transactions in speculative shares pose a serious threat to the prospect in the capital markets progress. It requires governments special attention to the developments in the market. It is very likely that many greedy and innocent chasers will burn their fingers again and obligate the govt for the failure.

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top