১৫ কোম্পানির ৫২ কোটি শেয়ার আইসিবির দখলে


icb-আইসিবিশেয়ারবাজার রিপোর্ট:  পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রায় সব কোম্পানিতেই ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশের (আইসিবি) বিনিয়োগ রয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি শেয়ার ধারণের তালিকায় রয়েছে ১৫ কোম্পানি। এসব কোম্পানির মোট ৫২ কোটি ১৩ লাখ ৯৭ হাজার ১১৮টি শেয়ার আইসিবির হাতে রয়েছে।

কোম্পানিগুলো হলো: ব্যাংক খাতের আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া, সিটি ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক, সাউথইস্ট ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটিজ ইসলামী ব্যাংক, মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, জ্বালানী ও বিদ্যুৎ খাতের তিতাস গ্যাস, সামিট পাওয়ার, পাওয়ার গ্রিড লিমিটেড, সিমেন্ট খাতের লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট এবং বিবিধ খাতের বেক্সিমকো লিমিটেড। আইসিবি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এ ব্যাপারে আইসিবির একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা শেয়ারবাজারনিউজ ডটকমকে জানান, শেয়ার কেনার ক্ষেত্রে আইসিবি সবসময় অপেক্ষাকৃত বেশি মৌলভিত্তির কোম্পানির প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করে। যদিও আইসিবির পোর্টফলিওতে অনেক দুর্বল কোম্পানির শেয়ার রয়েছে; কিন্তু এসব কোম্পানিতে বিনিয়োগ করা হয়েছে ভারসাম্য রক্ষা করার জন্য। আগের যেকোনো সময়ের মতো আইসিবি সবসময় বাজার উন্নয়নে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর ভূমিকা পালন করে।

সূত্র মতে, উল্লেখিত কোম্পানিগুলোর মধ্যে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের ৪ কোটি ৬০ লাখ ১২ হাজার ৪৩৯টি বা ৪.৬২ শতাংশ শেয়ার রয়েছে আইসিবি হাতে। এর মধ্যে ১ম পোর্টফলিওতে রয়েছে ৪ কোটি ১৯ লাখ ৮২ হাজার ৩৮৫টি শেয়ার। ২য় পোর্টফলিওতে রয়েছে ৩১ লাখ ৪৪ হাজার ৮০৬টি শেয়ার। রাজশাহী ব্রাঞ্চে রয়েছে ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৯৬৩টি শেয়ার। সিলেট ব্রাঞ্চে রয়েছে ৯২ হাজার ২৬টি শেয়ার। আর লোকাল অফিসে আছে ১ লাখ ১৪ হাজার ২৫৯ শেয়ার।

আইসিবির কাছে ব্যাংক এশিয়ার শেয়ার রয়েছে মোট ৩ কোটি ৮৪ লাখ ৯৫ হাজার ২৭০টি বা ৪.৪৬ শতাংশ। এর মধ্যে ১ম পোর্টফলিওতে রয়েছে ৩ কোটি ৬৬ লাখ ১৬ হাজার ৪৮৯টি শেয়ার। ২য় পোর্টফলিওতে রয়েছে ১৭ লাখ ২৫ হাজার ০৭৯টি শেয়ার। সিলেট ব্রাঞ্চে রয়েছে ৯২ হাজার ২৩৪টি শেয়ার। আর লোকাল অফিসে আছে ৬১ হাজার ৪৬৮ শেয়ার।

সিটি ব্যাংকের মোট ৩ কোটি ৯৭ লাখ ৪৭ হাজার ২০৬টি বা ৪.৫৩ শতাংশ শেয়ার আইসিবি ধরে রেখেছে। এর মধ্যে ১ম পোর্টফলিওতে রয়েছে ৩ কোটি ৩৪ লাখ ৪৩ হাজার ৩৫৩টি শেয়ার। ২য় পোর্টফলিওতে রয়েছে ৬০ লাখ ৮ হাজার ৮১০টি শেয়ার। সিলেট ব্রাঞ্চে রয়েছে ২ লাখ ২২ হাজার ৯৭১টি শেয়ার। আর লোকাল অফিসে আছে ৭২ হাজার ৭২ শেয়ার।

প্রাইম ব্যাংকে রয়েছে মোট ৩ কোটি ৭৫ লাখ ৭৯ হাজার ৮৩৩টি বা ৩.৬৫ শতাংশ শেয়ার। এর মধ্যে ১ম পোর্টফলিওতে রয়েছে ৩ কোটি ৩০ লাখ ৫৮ হাজার ৭৪৭টি শেয়ার। ২য় পোর্টফলিওতে রয়েছে ৪০ লাখ ৯৪ হাজার ১৯৩টি শেয়ার। চট্টগ্রাম ব্রাঞ্চে রয়েছে ৪৯ হাজার ৯৬৫টি শেয়ার। রাজশাহী ব্রাঞ্চে রয়েছে ৭০ হাজার ৪৫০টি শেয়ার। বরিশাল ব্রাঞ্চে রয়েছে ৭৫ হাজার ৫৬৪টি শেয়ার। সিলেট ব্রাঞ্চে রয়েছে ৬৮ হাজার ৯৪০টি শেয়ার। বগুড়া ব্রাঞ্চে রয়েছে ৭ হাজার ৮৭৬টি শেয়ার। আর লোকাল অফিসে রয়েছে ১ লাখ ১৪ হাজার ৯৮টি শেয়ার।

সাউথইস্ট ব্যাংকের মোট ৩ কোটি ৯৮ লাখ ৫২ হাজার ৪৭টি বা ৪.৩৪ শতাংশ শেয়ার আইসিবির হাতে রয়েছে। এর মধ্যে ১ম পোর্টফলিওতে রয়েছে ৩ কোটি ২৪ লাখ ২৫ হাজার ২৫টি শেয়ার। ২য় পোর্টফলিওতে রয়েছে ৬৭ লাখ ৭১ হাজার ৩৫৮টি শেয়ার। চট্টগ্রাম ব্রাঞ্চে রয়েছে ৬৫ হাজার শেয়ার। রাজশাহী ব্রাঞ্চে রয়েছে ৫৭ হাজার ৭৪৭টি শেয়ার। খুলনা ব্রাঞ্চে রয়েছে ১ লাখ ৮ হাজার ৪৩৭টি শেয়ার। বরিশাল ব্রাঞ্চে রয়েছে ৫১ হাজার শেয়ার। সিলেট ব্রাঞ্চে রয়েছে ১ লাখ ৬৬ হাজার ৪৩টি শেয়ার। বগুড়া ব্রাঞ্চে রয়েছে ৫০ হাজার শেয়ার। আর লোকাল অফিসে রয়েছে ১ লাখ ৫৭ হাজার ৪৩৭টি শেয়ার।

আইসিবির হাতে তিতাস গ্যাসের মোট ৩ কোটি ৪৯ লাখ ৯২ হাজার ৫২০টি বা ৩.৫৩ শতাংশ শেয়ার রয়েছে। এর মধ্যে ১ম পোর্টফলিওতে রয়েছে ৩ কোটি ২৪ লাখ ৩১ হাজার ২৩৫টি শেয়ার। ২য় পোর্টফলিওতে রয়েছে ২০ লাখ ৩৬ হাজার ৪৮৫টি শেয়ার। চট্টগ্রাম ব্রাঞ্চে রয়েছে ১ লাখ ৫৫ হাজার শেয়ার। খুলনা ব্রাঞ্চে রয়েছে ৩০ হাজার ৬০০টি শেয়ার। বরিশাল ব্রাঞ্চে রয়েছে ১৫ হাজার ৫০০টি শেয়ার। সিলেট ব্রাঞ্চে রয়েছে ৩৬ হাজার ৫০০টি শেয়ার। আর লোকাল অফিসে রয়েছে ১ লাখ ৪৭ হাজার ৭০০টি শেয়ার।

সামিট পাওয়ারের মোট ৩ কোটি ৬০ লাখ ৭৩ হাজার ৮৫১টি বা ৩.৩৭ শতাংশ শেয়ার ধরে রেখেছে আইসিবি। এর মধ্যে ১ম পোর্টফলিওতে রয়েছে ৩ কোটি ২৩ লাখ ১২ হাজার ৬১২টি শেয়ার। ২য় পোর্টফলিওতে রয়েছে ৩১ লাখ ৭৮ হাজার ৪১৭টি শেয়ার। চট্টগ্রাম ব্রাঞ্চে রয়েছে ৩ লাখ ২৭ হাজার ৪১২টি শেয়ার। রাজশাহী ব্রাঞ্চে রয়েছে ৪০ হাজার ৫৪৮টি শেয়ার। খুলনা ব্রাঞ্চে রয়েছে ২৮ হাজার ৮৪৩টি শেয়ার। বরিশাল ব্রাঞ্চে রয়েছে ৮৪ হাজার ৩২৮টি শেয়ার। বগুড়া বাঞ্চে রয়েছে ৩৪ হাজার ৯৪১টি শেয়ার। আর লোকাল অফিসে রয়েছে ৬৬ হাজার ৭৫০টি শেয়ার।

বেক্সিমকো লিমিটেডের মোট ৩ কোটি ৭৮ লাখ ৯৪ হাজার ১৪৫টি বা ৫.৪৮ শতাংশ শেয়ার আইসিবির হাতে রয়েছে। এর মধ্যে ১ম পোর্টফলিওতে রয়েছে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৯২ হাজার ৭২৩টি শেয়ার। ২য় পোর্টফলিওতে রয়েছে ৫১ লাখ ৮২ হাজার ৭৩টি শেয়ার। চট্টগ্রাম ব্রাঞ্চে রয়েছে ৩ লাখ ৭০ হাজার শেয়ার। রাজশাহী ব্রাঞ্চে রয়েছে ২ লাখ ৫৩ হাজার ৩১৮টি শেয়ার। খুলনা ব্রাঞ্চে রয়েছে ২ লাখ ৬ হাজার ৪৮২টি শেয়ার। বরিশাল ব্রাঞ্চে রয়েছে ২ লাখ ৩৫ হাজার ১৫৪টি শেয়ার। সিলেট ব্রাঞ্চে রয়েছে ৩৫ হাজার ৬৪৩টি শেয়ার। বগুড়া বাঞ্চে রয়েছে ৬৩ হাজার ১৯১টি শেয়ার। আর লোকাল অফিসে রয়েছে ৩ লাখ ৯৭ হাজার ১৯৭টি শেয়ার।

ফার্স্ট সিকিউরিটিজ ইসলামী ব্যাংকের ৩ কোটি ৯ লাখ ৪৭ হাজার ৯৭৭টি বা ৪.৫৫ শতাংশ শেয়ার আইসিবির হাতে রয়েছে। এর মধ্যে ১ম পোর্টফলিওতে রয়েছে ৩ কোটি ৬ লাখ ৯ হাজার ৬৬৬টি শেয়ার। যার সিলেট বাঞ্চে রয়েছে ১ লাখ ২৮ হাজার ৫৮৫টি শেয়ার। আর লোকাল অফিসে আছে ২ লাখ ৯ হাজার ৭২৬টি শেয়ার রয়েছে।

পাওয়ার গ্রিডের ৩ কোটি ৩ লাখ ১২ হাজার ২০১টি বা ৬.৬৭ শতাংশ শেয়ার ধরে রেখেছে আইসিবি। এর মধ্যে ১ম পোর্টফলিওতে রয়েছে ২ কোটি ৯৯ লাখ ৪৬ হাজার ৫৫৪টি শেয়ার। রাজশাহী ব্রাঞ্চে রয়েছে ১ লাখ ১ হাজার ২০০টি। খুলনা ব্রাঞ্চে রয়েছে ৬৩ হাজার ৮২২টি শেয়ার। বরিশাল ব্রাঞ্চে রয়েছে ৩৭ হাজার শেয়ার। সিলেট ব্রাঞ্চে রয়েছে ১০ হাজার টাকা। আর লোকাল অফিসে আছে ১ লাখ ৫৩ হাজার ৬২৫টি শেয়ার।

মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের রয়েছে ২ কোটি ৯৫ লাখ ৫৭ হাজার ৫২২টি বা ৬.৬৬ শতাংশ শেয়ার রয়েছে আইসিবির হাতে। এর মধ্যে ১ম পোর্টফলিওতে রয়েছে ২ কোটি ৯০ লাখ ৫৮ হাজার ৪৭৪টি শেয়ার। রাজশাহী ব্রাঞ্চে রয়েছে ২ লাখ ২৪ হাজার ৫২০টি। খুলনা ব্রাঞ্চে রয়েছে ৬৩ হাজার ৮২২টি শেয়ার। সিলেট ব্রাঞ্চে রয়েছে ১ লাখ ৫৬ হাজার ৪০২ টাকা। আর লোকাল অফিসে আছে ৫৪ হাজার ৩০৪টি শেয়ার।

এছাড়া আইসিবির নিয়ন্ত্রণে রয়েছে ওয়ান ব্যাংকের ২ কোটি ৯৪ লাখ ১১ হাজার ৪০৯টি বা ৪.৪৩ শতাংশ শেয়ার। এর মধ্যে ১ম পোর্টফলিওতে রয়েছে ২ কোটি ৭০ লাখ ৪১ হাজার ১১৯টি শেয়ার। ২য় পোর্টফলিওতে রয়েছে ১৯ লাখ ৬৭ হাজার ৭১০টি শেয়ার। চট্টগ্রাম ব্রাঞ্চে রয়েছে ১ লাখ ২০ হাজার ২৩৪টি শেয়ার। খুলনা ব্রাঞ্চে রয়েছে ২২ হাজার ২০০টি শেয়ার। সিলেট ব্রাঞ্চে রয়েছে ১ লাখ ১৯ হাজার ৩৪৭ টাকা। আর লোকাল অফিসে আছে ১ লাখ ৪০ হাজার ৭৯৯টি শেয়ার।

লাফার্জ সুরমা সিমেন্টের ৩ কোটি ৬১ লাখ ৬৮ হাজার ৭৯৮টি বা ৩.১১ শতাংশ শেয়ার ধরে রেখেছে আইসিবি। এর মধ্যে ১ম পোর্টফলিওতে রয়েছে ১ কোটি ১৯ লাখ ৯১ হাজার ৪৬৬টি শেয়ার। ২য় পোর্টফলিওতে রয়েছে ২ কোটি ৪০ লাখ ৫ হাজার ২৩২টি শেয়ার। চট্টগ্রাম ব্রাঞ্চে রয়েছে ৩৫ হাজার শেয়ার। বরিশাল ব্রাঞ্চে রয়েছে ৪৪ হাজার ৯০০টি শেয়ার। সিলেট ব্রাঞ্চে রয়েছে ৪৬ হাজার ৫০০ টাকা। বগুড়া ব্রাঞ্চে রয়েছে ২৪ হাজার ২০০টি শেয়ার। আর লোকাল অফিসে আছে ২১ হাজার ৫০০টি শেয়ার।

স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের ২ কোটি ৫৬ লাখ ৮৫ হাজার ৭১৫টি বা ৩.৪০ শতাংশ শেয়ার ধরে রেখেছে আইসিবি। এর মধ্যে ১ম পোর্টফলিওতে রয়েছে ২ কোটি ৫২ লাখ ৬০ হাজার ২৮৭টি শেয়ার। চট্টগ্রাম ব্রাঞ্চে রয়েছে ২৬ হাজার ৪৫০টি শেয়ার। রাজশাহী ব্রাঞ্চে রয়েছে ১১ হাজার ৫০০টি শেয়ার। খুলনা ব্রাঞ্চে ১ লাখ ৩৩ হাজার ৯২টি শেয়ার। বরিশাল ব্রাঞ্চে রয়েছে ৫৮ হাজার ৭৫৫টি শেয়ার। সিলেট ব্রাঞ্চে রয়েছে ১ লাখ ২০ হাজার ৫৭২টি শেয়ার। বগুড়া ব্রাঞ্চে রয়েছে ২৪ হাজার ২০০টি শেয়ার। আর লোকাল অফিসে আছে ৫০ হাজার ৮৫৯টি শেয়ার।

সর্বশেষ মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেডের ৩ কোটি ২৬ লাখ ৯৬ হাজার ২৩৯টি বা ৪.৪২ শতাংশ শেয়ার আইসিবি নিয়ন্ত্রণ করছে। এর মধ্যে ১ম পোর্টফলিওতে রয়েছে ২ কোটি ৪৬ লাখ ৯৯ হাজার ৪২৬টি শেয়ার। ২য় পোর্টফলিওতে রয়েছে ৭৭ লাখ ৫৬ হাজার ৩৬৪টি শেয়ার। চট্টগ্রাম ব্রাঞ্চে রয়েছে ৩৯ হাজার ৫০০টি শেয়ার। খুলনা ব্রাঞ্চে ৪৮ হাজার ৩৭২টি শেয়ার। সিলেট ব্রাঞ্চে রয়েছে ১ লাখ ২ হাজার ৩৬০টি শেয়ার। আর লোকাল অফিসে আছে ৫০ হাজার ২১৭টি শেয়ার।

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top