১০ কোম্পানির কলঙ্ক মুছার সময় এসেছে

dseশেয়ারবাজার রিপোর্ট: ইতিবাচক ধারায় ফিরেছে দেশের পুঁজিবাজার। এর ফলে দেশের বাজার বিনিয়োগ উপযোগী হয়ে উঠেছে। যার কারণে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের পাশাপাশি বিদেশিরাও বিনিয়োগে সক্রিয় হচ্ছেন। এর ফলশ্রুতিতে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আস্থা সংকট কাটার পাশাপাশি স্বস্তি ফিরতে শুরু করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় বেশির ভাগ কোম্পানির শেয়ার দরে প্রভাব পরতে শুরু করেছে। তবে বাজারে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ থাকা সত্তেও তালিকাভুক্ত ১০ কোম্পানির শেয়ার দর ফেসভ্যালুর নিচে রয়ে গেছে। আর এখনই সময় কোম্পানিগুলোর কলঙ্ক মুছে নিজেদের অবস্থান পরিবর্তন করার।

এগুলো হলো: বেক্সিমকো সিনথেটিক, দুলামিয়া কটন, আইসিবি ইসলামী ব্যাংক, ঢাকা ডায়িং, ইউনাইটেড এয়ার, ফ্যামিলি টেক্স বিডি, জেনারেশন নেক্সট, ম্যাকসন স্পিনিং, বিডি সার্ভিস এবং মেট্রো স্পিনিং মিলস লিমিটেড।

বাজারের সাথে তাল মিলিয়ে নিজেদের অবস্থান পরিবর্তন করতে পারছে না এ সকল কোম্পানি। আর এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন বিনিয়োগকারীরা। এসব কোম্পানিতে বিনিয়োগ করার কারণে এখন প্রতিনিয়ত ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন তারা। বাইব্যাক আইন বাস্তবায়ন করা হলে বিনিয়োগকারীদের এ ক্ষতির মুখে পড়তে হতো না বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা। তাই বিনিয়োগকারী তথা পুঁজিবাজারের স্বার্থে  বাইব্যাক আইন প্রণয়ন করা উচিত বলে মনে করেন তারা।

এ বিষয়ে পুঁজিবাজার বিশেষজ্ঞ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আবু আহমেদ বলেন, মহাধসের পর দেশের পুঁজিবাজার নানা সংকট থেকে বেরিয়ে ছন্দে ফিরে আসছে। গত কয়েক মাসের বাজারচিত্র এমন ইঙ্গিত দিচ্ছে। বর্তমানে বাজার একটা স্বাভাবিক পর্যায়ে রয়েছে। যা বিনিয়োগকারীদের মনোবল বৃদ্ধিতে সহায়তা করছে।

তিনি আরও বলেন, বাজারের সাথে তাল মিলিয়ে অনেক স্বল্প মূলধনী ও লোকসানী কোম্পানি নিজেদের অবস্থা পরিবর্তন করে ফেসভ্যলু অতিক্রম করেছে। বাজারের চলমান উত্থান অব্যহত থাকলে এসকল কোম্পানিও ফেসভ্যালুতে চলে আসবে।

তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, চলতি বছরের দ্বিতীয় কার্যদিবস ২ জানুয়ারি, ২০১৭ পর্যন্ত ৪ খাতের ১০টি কোম্পানির শেয়ার দর ফেস ভ্যালুর নিচে অবস্থান করছে। ফেসভ্যালুর নিচে থাকা কোম্পানিগুলো খাত ভিত্তিক নিন্মে তুলে ধরা হলো:

বস্ত্র খাত:

বস্ত্র খাতের ৪৫টি কোম্পানির মধ্যে ৬টি কোম্পানির শেয়ারের দর ফেস ভ্যালুর নিচে থাকা ঢাকা ডাইংয়ের সর্বশেষ শেয়ার দর ৯.৩০ টাকা, দুলামিয়া কটনের ৯.৯০ টাকা, ফ্যামিলি টেক্স বিডির ৯.৬০ টাকা, জেনারেশন নেক্সটের ৯.৮০ টাকা, ম্যাকসন স্পিনিংয়ের ৯.৩০ টাকা এবং মেট্রো স্পিনিংয়ের সর্বশেষ শেয়ার দর অবস্থান করছে ৮.৯০ টাকা।

ব্যাংক খাত:

ব্যাংক খাতের ৩০টি কোম্পানির মধ্যে ১টি কোম্পানি ফেসভ্যালুর নিচে থাকা আইসিবি ইসলামি ব্যাংকের শেয়ার দর ৪.৯০ টাকা।

ওষুধ ও রসায়ন:

ওষুধ ও রসায়ন ২৮টি কোম্পানির মধ্যে ফেস ভ্যালুর নিচে থাকা বেক্সিমকো সিনথেটিকের সর্বশেষ শেয়ার দর  ৯.০০ টাকা।

ভ্রমন ও অবকাশ:

ভ্রমন ও অবকাশ খাতের ৪ কোম্পানির মধ্যে ফেস ভ্যালুর নিচে থাকা ইউনাইটেড এয়ারের সর্বশেষ শেয়ার দর ৬.৭০ টাকা এবং বিডি সার্ভিসের ৫.৫০ টাকা।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের সভাপতি এ.কে.এম মিজান-উর-রশিদ চৌধুরী শেয়ারবাজারনিউজ ডটকমকে বলেন, এসব কোম্পানিগুলো মধ্যে বেশিরভাগ স্বল্প মূলধনী এবং লোকসানী। ক্রমাগত লোকসান এবং ডিভিডেন্ড দিতে ব্যর্থ  হওয়ায় এ সমস্ত কোম্পানি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন বিনিয়োগকারীরা।

তিনি আরও বলেন, বাজারে তালিকাভুক্ত যে সকল কোম্পানি লেকসান দেখিয়ে বিনিয়োগকারীদের ডিভিডেন্ড থেকে বঞ্চিত করছে সেসব কোম্পানির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে এবং লোকসান থাকলেও বিনিয়োগকারীদের বাধ্যতামূলক ১০ শতাংশ ডিভিডেন্ড দিতে হবে। কারণ কোম্পানিগুলো তাদের ব্যবসা বাড়ানোর জন্য বাজার থেকে টাকা উত্তোলন করে। তাহলে তালিকাভুক্তির পর কোম্পানিগুলোর লোকসান হচ্ছে কিভাবে? ব্যাংক থেকে ঋন নিয়ে ব্যবসা করলে ডাবল ডিজিটে সুদ দিতে হয়। তাহলে বিনিয়োগকারীরা কেন সর্বনিম্ন ১০ শতাংশ ডিভিডেন্ড পাবে না।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

Top