ফিন্যান্সিয়াল লিটারেসি- পর্ব ৩: বিনিয়োগকারীদের যা জানা প্রয়োজন

Financial-Litaracy-1শেয়ারবাজার রিপোর্ট:  বিনিয়োগ শিক্ষা অর্জনের জন্য ফিন্যান্সিয়াল লিটারেসির কার্যক্রম শুরু করেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। ফিন্যান্সিয়াল লিটারেসির মাধ্যমে বিনিয়োগকারীরা যেন সঠিক বিনিয়োগ জ্ঞান অর্জন করে নিজেরা লাভবান হতে পারেন সেজন্য যাবতীয় কাজ হাতে নেয়া হয়েছে। বিএসইসির যুগপোযোগী এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়ে শেয়ারবাজারনিউজ ডটকম পত্রিকা ফিন্যান্সিয়াল লিটারেসির বিভিন্ন বিষয় প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিনিয়োগকারীদের জন্য এখন থেকে ধারাবাহিকভাবে ফিন্যান্সিয়াল লিটারেসির বিভিন্ন দিক তুলে ধরা হবে। আজ প্রকাশিত হলো তৃতীয় পর্ব : বিনিয়োগকারীদের যা জানা প্রয়োজন

১.  কোম্পানির ব্যবসার ধরন, মার্কেটের আকার, মার্কেটে শেয়ার ব্যবসার স্তর ( নতুন/বর্ধনশীল/ পরিপক্ক/অবনতিশীল)।

২. পরিচালনা পর্ষদের আকার ও গঠন-সকল সদস্য একই পরিবারভুক্ত নাকি পরিবার বহির্ভূত, পরিচালকগণের যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা।

৩. ব্যবস্থাপনার যোগ্যতা।

৪. মুনাফা অর্জন ক্ষমতা, লভ্যাংশ প্রদানের হার।

৫. নগদ অর্থ প্রবাহের অবস্থা।

৬.  পরিশোধিত শেয়ার মূলধনের পরিমান।

৭.  মূলধন, দায়, বিক্রয় ও সম্পদ।

৮. মূলধন ও দায়ের অনুপাত।

৯. কোম্পানির উদ্যোক্তা/পরিচালক/কর্মকর্তাদের কোম্পানির সাথে লেনদেনের পরিমান।

১০. কোম্পানি কোনো মামলার সাথে জড়িত কিনা।

১১. শেয়ারে বাজার দরের সাথে সম্পদ-ভিত্তিক মূল্যের পার্থক্য।

১২. বাজার দরের ভিত্তিতে লভ্যাংশের প্রকৃত আয় হার (dividend yield)।

১৩. পুঁজিবাজারে বিক্রয়যোগ্য শেয়ারের পরিমান।

১৪. শেয়ারের চাহিদা ও যোগানের অবস্থা।

১৫. ঝুঁকি বিবেচনায় মুনাফা ও রিটার্নের পর্যাপ্ততা

১৬. কোম্পানির ক্রেডিট রেটিং ‍রিপোর্ট।

শেয়ারবাজারনিউজ/মা

আপনার মন্তব্য

Top