পুঁজিবাজার কি পারবে অর্থনৈতিক অবস্থার প্রতিচ্ছবি হতে?

Editorialবিষয়টি নিয়ে আলোচনার আগেই বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো থেকে নেয়া কিছু তথ্য প্রকাশ করা হলো।

নিচে বিগত ৫ বছরে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির চিত্র:

☛বাংলাদেশের মাথাপিছু গড় আয় (মার্কিন ডলার)

২০০৯-২০১০ সালে ছিল = ৮২৯ ডলার

২০১০-২০১১ সালে ছিল = ৯২৯ ডলার

২০১১-২০১২ সালে ছিল = ৯৫৫ ডলার

     ২০১২-২০১৩ সালে ছিল = ১০৫৮ ডলার

     ২০১৩-২০১৪ সালে ছিল = ১১৮৪ ডলার

   ২০১৪-২০১৫ সালে ছিল = ১৩১৪ ডলার

    ২০১৫-২০১৬ সালে ছিল = ১৪৬৫ ডলার

অর্থাৎ বাংলাদেশের মাথা পিছু গড় আয় গত ৬ বছরে বেড়েছে ৭৮% শতাংশ।

☛দরিদ্রের শতকরা হারঃ-

২০০০ সালে ছিল = ৪৮.৯

২০০৫ সালে ছিল = ৪০

২০১০ সালে ছিল = ৩১.৫

২০১৬ সালে এসে দাঁড়িয়েছে = ২৩.২

অর্থাৎ বাংলাদেশে গত ১৬ বছরে দরিদ্রতার হার কমে গেছে প্রায় ৫০% শতাংশ

☛জিডিপি প্রবিদ্ধির শতকরা হার (GDP Growth Rate)

২০০৯-২০১০ সালে ছিল = ৫.৫৭ শতাংশ

২০১০-২০১১ সালে ছিল = ৬.৪৬ শতাংশ

২০১১-২০১২ সালে ছিল = ৬.৫২ শতাংশ

২০১২-২০১৩ সালে ছিল = ৬.০১ শতাংশ

২০১৩-২০১৪ সালে ছিল = ৬.০৬ শতাংশ

২০১৪-২০১৫ সালে ছিল = ৬.৫৫ শতাংশ

২০১৫-২০১৬ সালে ছিল = ৭.১১ শতাংশ

বর্তমানে বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি যে হারে হচ্ছে তা পৃথিবীর হাতে গুনা কয়েকটি দেশের হচ্ছে।

 

☛চলতি মূল্যে জিডিপি (বিলিয়ন টাকা)

২০০৯-২০১০ সালে ছিল = ৭৯৭৫ বিলিয়ন টাকা

২০১০-২০১১ সালে ছিল = ৯১৫৮ বিলিয়ন টাকা

২০১১-২০১২ সালে ছিল = ১০৫২২ বিলিয়ন টাকা

২০১২-২০১৩ সালে ছিল = ১১৯৮৯ বিলিয়ন টাকা

২০১৩-২০১৪ সালে ছিল = ১৩৪৩৭ বিলিয়ন টাকা

২০১৪-২০১৫ সালে ছিল = ১৫১৫৮ বিলিয়ন টাকা

২০১৫-২০১৬ সালে ছিল = ১৭৩২৯ বিলিয়ন টাকা

গত ৬ বছরে চলতি মূল্যে জিডিপি বৃদ্ধি পেয়েছে ১০০% শতাংশের উপরে।

ইতিমধ্যে বাংলাদেশ মধ্যবিত্ত আয়ের দেশে যে পরিনত হয়েছে উপরের তথ্য গুলোই তার প্রমান করে। একটি দেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধির শতকরা হার ৭% এর উপরে হওয়া চাট্টি খানি কথা নয়। অথচ আমরা আমাদের পুঁজিবাজারকে সেই পর্যায়ে নিয়ে যেতে পারি নাই। ১৯৭১ সালে আমরা মুক্তির জন্য যুদ্ধ করে স্বাধীন হয়েছি। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য যুদ্ধ করে যাচ্ছি। আজ স্বাধীনতার পর সময় কেটে গেছে প্রায় ৪৬ বছর। এই ৪৬ বছরে আমরা আমাদের অর্থনীতিকে নিয়ে গেছি অনেক দূর। আশা করা যায় এই ভাবে চলতে থাকলে খুব তাড়াতাড়ি আমরা এশিয়া মহাদেশের মধ্যে অন্যতম বড় অর্থনৈতিক অঞ্চলে পরিনত হব।

নিম্নে পাকিস্তান স্টক এক্সচেঞ্জের ইনডেক্সের একটি চিত্র দেখানো হলো:

pakistan

এই চিত্র বিশ্লেষণে এ কথাই বলা যায় যে অর্থনীতির সকল সূচক ঊর্ধ্বমুখী থাকলেও একটি জায়গার এসে আমরা ব্যর্থ। আর তা হচ্ছে বাংলাদেশের পুঁজিবাজার। আমরা যেই পাকিস্তানের সঙ্গে যুদ্ধ করে স্বাধীন হয়েছি সেই দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির চেয়ে আমাদের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির হার প্রায় দ্বিগুণ। অথচ যখনি পাকিস্তানের পুঁজিবাজারের ইনডেক্সের দিকে তাকানো হয় তখনি হতাশ হতে হয়। বিগত ৫ বছরে পাকিস্তানের ইনডেক্স ৮০০০(আট হাজার) থেকে চলে গেল ৩৩০০০ (তেত্রিশ হাজার)। আর আমাদের পুঁজিবাজারে ঘটলো তার উল্টো ঘটনা। ৭ বছর আগে আমাদের ইনডেক্স ছিল ৯০০০ আর এখন ৫৫০০।

আমরা কি এই একটি জায়গার কলঙ্ক দূর করতে পারবোনা? আমরা কি এই একটি বিষয়ে পাকিস্তানের চেয়ে পিছিয়ে থাকব? আমরা কি পারবোনা বাংলাদেশের পুঁজিবাজারকে একটি বিশ্ব মানের পুঁজিবাজারে রুপান্তরিত করতে? আমরা কি পারবোনা বাংলাদেশের পুঁজিবাজারকে তার অর্থনীতির দর্পণ হিসেবে তুলে ধরতে? হয়তো সময় এর সবচেয়ে ভালো উত্তর দিতে পারবে।

 

 

 

লেখক: তানভীর আহমেদ

 

 

আপনার মন্তব্য

Top