স্বল্পমেয়াদি বিনিয়োগ স্থিতিশীলতার অন্তরায়!

dse-cseশেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে দীর্ঘমেয়াদি স্থিতিশীলতার পথে স্বল্পমেয়াদি বিনিয়োগই প্রধান অন্তরায় বলে মনে করেন বাজার সংশ্লিষ্টরা। তারা বলছেন,বর্তমান পুঁজিবাজারের অস্থিতিশীলতার পেছনে অন্যতম সমস্যা তারল্য সংকট। আর বিনিয়োগকারীদের স্বল্প মেয়াদী বিনিয়োগের প্রবণতা এ সমস্যাকে আরো ত্বরান্বিত করছে। তাই বাজারের স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে ট্রেড বেইস নয় বরং ইনভেস্ট বেইস মার্কেট গঠনে জোর দিতে হবে। এজন্য বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি),ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জকে (সিএসই) বিনিয়োগকারীদের সচেতনতা বাড়াতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করতে হবে বলে মনে করেন তারা।

তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, টানা দরপতনের পর বাজার একটু ভালো হওয়ার ইঙ্গিত দিলেই বিনিয়োগকারীরা নতুন বিনিয়োগ করেছে। তবে বাজারে আস্থা ফিরে না আসায় স্বল্প সময়ে বেরিয়ে যাচ্ছে। অর্থাৎ অল্প একটু দর বাড়লেই তারা কম লাভেই শেয়ার ছেড়ে মুনাফা করার চেষ্টা করছে। সামান্য বিনিয়োগ করে শেয়ারের দর বাড়িয়ে হাতে থাকা ম্যাচিউরড শেয়ার বিক্রি করেও মুনাফা করছেন অনেকে। অথচ তাদের এই স্বল্প বিনিয়োগ বাজারের কোনো কাজে আসছে না। বরং বাজারের স্থিতিশীলতা পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে। তাই এ ব্যাপারে বিনিয়োগকারীদের আরো সচেতন হওয়া উচিত বলে পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের। তাদের মতে, মুনাফা করতে চাইলে বিনিয়োগকারীরা অবশ্যই করবেন। কারণ এ জন্যই তারা পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করেছেন। তবে বাজারের বর্তমান পরিস্থিতিতে এ স্বল্পমেয়াদি বিনিয়োগ বন্ধ রাখা প্রয়োজন।

এ ব্যাপারে ডিএসইর পরিচালক শাকিল রিজভী শেয়ারবাজারনিউজ ডটকমকে জানান, ডে ট্রেডিং এ পারদর্শী না হলে পুঁজি হারানোর সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে। কোনো কিছু না বুঝে নতুন বিনিয়োগকারীদের Day Trading এ অংশগ্রহণ করা যথেষ্ট ঝুঁকিপূর্ণ। আগে Day Trading এর বিষয় বুঝে, রপ্ত করে বেচা-কেনা করা উচিত। এজন্য দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগে একদিকে বিনিয়োগকারীরা লাভবান হবেন অন্যদিকে শেয়ারবাজারেও দীর্ঘমেয়াদি স্থিতিশীলতা ফিরে আসবে বলে মনে করেন তিনি। তিনি আরো বলেন, শেয়ারবাজারে উত্থান-পতন আছে এবং প্রতিদিন প্রতি মুহূর্তে চাহিদা-জোগানের মাধ্যমে দাম পরিবর্তন হয়। সুতরাং বিনিয়োগের পূর্বে অনেক সতর্কতার সঙ্গে বিনিয়োগ করতে হবে। বিনিয়োগের পূর্বে ঠিক করতে হবে আপনি কোন ধরনের বিনিয়োগকারী হতে চান। সেভাবেই আপনার Port folio ঠিক করতে হবে। সাধারণত বাজারে তিন ধরনের বিনিয়োগকারী ও Day Traders দেখা যায়। ০১. Growth Investors 02.Balance Investors 03. Income Investors ও Day Traders / Speculator। একজন বিনিয়োগকারীকে বিনিয়োগের পূর্বে সংক্ষেপে যে সমস্ত কোম্পানির শেয়ার আপনার Port folio তে রাখতে চান সে সমস্ত কোম্পানির EPS, NAV, P/E কোম্পানির অতীত ট্রেক রেকর্ড এবং ভবিষ্যতে কোম্পানির Growth আছে কিনা Dividend Pay Out Ratio অতীতে কেমন ছিল বাজারে অন্যান্য শেয়ারের সঙ্গে তুলনামূলক বিশ্লেষণ করে বর্তমানে যে দামে বিনিয়োগ করতে যাচ্ছেন তা যুক্তিযুক্ত কিনা বিচার করে শেয়ার ক্রয় করতে হবে।

বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স এসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) সাবেক সভাপতি মো. এ হাফিজ শেয়ারবাজারনিউজ ডটকমকে বলেন, যদি সুযোগ থাকে তাহলে বিনিয়োগকারীরা অবশ্যই স্বল্পমেয়াদে মুনাফা তুলবে। তবে শুধুমাত্র এ ধরনের মনোভাব নিয়ে বিনিয়োগ করলে বাজারে স্থিতিশীলতা ফিরবেনা। যেহেতু বাজার ভালোর দিকে যাচ্ছে, তাই এ ব্যাপারে বিনিয়োগকারীদেরও আন্তরিকতার সঙ্গে এগিয়ে আসতে হবে বলে মনে করেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, স্বল্প মুনাফা পেয়ে বিনিয়োগকারীরা ট্রেড বেস বিনিয়োগে ঝুঁকছেন। অবশ্য ইনভেস্ট বেস বা দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগের মত আস্থাও তারা পাচ্ছেনা। কিন্তু বাজারের স্থায়ী স্থিতিশীলতার জন্য দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগের বিকল্প নেই।

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

One Comment;

*

*

Top