৫ বছরে বাজার মূলধন বেড়েছে ৩০ শতাংশ

Market Capitalizationশেয়ারবাজার রিপোর্ট: ধারাবাহিকভাবে বাড়ছে শেয়ারবাজারের বাজার মূলধন। দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) বাজার মূলধন গত ৫ বছরে বেড়েছে ২৯.৫৬ শতাংশ। বিষয়টিকে ইতিবাচক বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।যার কারণে তারা মনে করছেন- এ মূহুর্তে পুঁজিবাজারে দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগের পাশাপাশি পুঁজিবাজার সম্পর্কে বিনিয়োগকারীদের সচেতনতা বৃদ্ধি প্রয়োজন।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স এ্যাসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) সভাপতি ছায়েদুর রহমান বলেন- পুঁজিবাজারে দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগের জন্য সচেতনতার কোন বিকল্প নেই। পুঁজিবাজার সর্বদা পরিবর্তনশীল।সেই পরিবর্তনের সঙ্গে খাপ খাওয়ানোর জন্য প্রস্তুতি প্রয়োজন। সেই প্রস্তুতি ও সচেতনতাই নিয়ে আসতে পারে সফলতা।

বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, বিনিয়োগ আপনাদের; ঝুঁকিও আপনাদের। মার্কেটের হঠাৎ উত্থান বা হঠাৎ পতন আমাদের কেউই প্রত্যাশা করে না। তাই গুজবে কান না দিয়ে সঠিক তথ্যের উপর ভিত্তি করে বিনিয়োগ করুন।

গত ৫ বছরের বাজারচিত্র পর্যালোচনায় দেখা যায় যে, ইয়ারএন্ড ক্লোজিং মার্কেট ক্যাপিটাল অনুযায়ী ২০১২ সালে ডিএসই’র বাজারমূলধন ছিল ২ লাখ ৪০ হাজার ৩৫৫ কোটি ৫৬ লাখ ২০ হাজার টাকা। যা ২০১৩ সালে ৯.২২ শতাংশ বেড়ে দাড়িয়েছে ২ লাখ ৬৪ হাজার ৭৭৯ কোটি ৮ লাখ ৩০ হাজার টাকায়। ২০১৪ সালে ১৮.৭৬ শতাংশ বেড়ে দাড়িয়েছে ৩ লাখ ২৫ হাজার ৯২৪ কোটি ৬৭ লাখ ৬০ হাজার টাকায়। ২০১৫ সালে বাজারমূলধন ৩.০৫ শতাংশ কমে দাড়িয়েছে ৩ লাখ ১৫ হাজার ৯৭৫ কোটি ৭৭ লাখ ৫০ হাজার টাকায়। আর সর্বশেষ ২০১৬ সালে এর বাজারমূলধন ৮ শতাংশ বেড়ে দাড়িয়েছে ৩ লাখ ৪১ হাজার ২৪৪ কোটি ১৪ লাখ ৯০ হাজার টাকায়।

অন্যদিকে, ২০১২ সালে ডিএসই’তে মোট লেনদেন হয়েছে ১ লাখ ১০৮ কোটি ৪৯ লাখ টাকা, যা আগের বছরের তুলনায় ৩৫.৮৭ শতাংশ কম। ২০১৩ সালে লেনদেন হয়েছে ৯৫ হাজার ২৭৪ কোটি ২০ লাখ ৮০ হাজার টাকা, যা আগের বছরের তুলনায় ৪.৮৩ শতাংশ কম। ২০১৪ সালে লেনদেন হয়েছে ১ লাখ ১৮ হাজার ৮৫২ কোটি ১৫ লাখ ৪০ হাজার টাকা, যা আগের বছরের তুলনায় ২৪.৭৫ শতাংশ বেশি। ২০১৫ সালে লেনদেন হয়েছে ১ লাখ ৩ হাজার ১৩৯ কোটি ৮৬ লাখ ৪০ হাজার টাকা, যা আগের বছরের তুলনায় ১৩.২২ শতাংশ কম। সর্বশেষ ২০১৬ সালে ডিএসই’তে মোট লেনদেন হয়েছে ১ লাখ ১৯ হাজার ১৫৭ কোটি ১২ লাখ ৭০ হাজার টাকা এবং তা আগের বছরের মোট লেনদেনের তুলনায় ১৫.৫৩ শতাংশ বেশি।

আগামীতে বাজার আরও ভালো হবে এমনই আশাবাদ ব্যাক্ত করে বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, আগের তুলনায় বর্তমান পুঁজিবাজার সব দিক থেকেই ভালো অবস্থানে আছে।একটা সময় ট্রানজেকশন বন্ধ ছিল।এছাড়াও বিনিয়োগকারী পরিপন্থি আরও কিছু রুলস ছিল; যেগুলোর কারণে গত কয়েক বছর মার্কেট খারাপ ছিল। কিন্তু এখন বিনিয়োগকারী পরিপন্থি প্রায় সব রুলস উঠিয়ে নেয়া হয়েছে। মার্জিন ঋণধারীরা আগে লেনদেন করতে পারতেন না। কিন্তু এখন পারেন। বাংলাদেশ ব্যাংকের কারনে ব্যাংকগুলো ইন্টারেস্টের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নিয়ে আসাতে বাধ্য হয়েছে। এছাড়াও কমিশন, ডিএসই, সিএসইসহ নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলো বিনিয়োগবান্ধব বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে।আর সবকিছু মিলিয়েই মার্কেট বর্তমানে ভালো রয়েছে বলে জানান তারা।

শেয়ারবাজারনিউজ/রু

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top