চতুর্থ দেশ হিসেবে নিজেদের শততম টেস্টে বিজয় ছিনিয়ে এনেছে বাংলাদেশ

bd_test joyশেয়ারবাজার রিপোর্ট: অস্ট্রেলিয়া, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তানের পর ইতিহাসের চতুর্থ দেশ হিসেবে নিজেদের শততম টেস্টে বিজয় ছিনিয়ে এনেছে বাংলাদেশ। আর এই জয়ের মধ্যদিয়ে সাদা পোশাকে নিজেদের নবম জয়টি তুলে নিয়েছে টাইগাররা। এছাড়া ১৮তম বারের চেষ্টায় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম জয়টি পেল টাইগাররা।

টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়ার পর দেড় যুগে অনেকবারই শ্রীলঙ্কা সফরে গেছে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কাও এসেছে বাংলাদেশে। তবে টেস্টে কখনই লঙ্কানদের হারাতে পারেনি লাল-সবুজের দল। অবশেষে শততম টেস্টেই কলম্বোতে শ্রীলঙ্কাকে ৪ উইকেটে হারাল বাংলাদেশ। স্বপ্ন নিয়ে শুরু হয়েছিল শেষ দিনের সকাল। চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে, আশা আর শঙ্কার দোলাচল শেষে বিকেলে ধরা ছিল সেই স্বপ্ন। শততম টেস্টের মাহেন্দ্রক্ষণে অসাধারণ এক জয়! সিরিজে পিছিয়ে থাকা, ম্যাচের আগে মাঠের বাইরের হাজারো বিতর্ক, তুমুল আলোচনা-সমালোচনা, সব পেছনে ফেলে ৪ উইকেটের জয়। বিদেশের মাটিতে টেস্ট জয়ের বিরল স্বাদ দিলো বাংলাদেশ। এই জয়ে হেরাথদের সঙ্গে সিরিজটা ভাগাভাগি করে নিলেন মুশফিকরা।

কলম্বোতে টসে জিতে প্রথম ইনিংসে ব্যাটিং করে ৩৩৮ রান সংগ্রহ করে স্বাগতিক দল। জবাবে বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস শেষ হয় ৪৬৭ রানে। ১২৯ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ৩১৯ রান সংগ্রহ করে শ্রীলঙ্কা। ফলে জয়ের জন্য বাংলাদেশের সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৯১ রান।  ৬ উইকেট হারিয়েই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ।

জবাবে হেরাথের ঘূর্ণিতে শুরুতেই ফিরে যান সৌম্য সরকার ও ও ইমরুল কায়েস। হেরাথের বলে এগিয়ে এসে উইকেট বিলিয়ে দেন সৌম্য সরকার। পরের বলেই ইমরুল কায়েসকে স্লিপে গুনারত্নের তালুবন্দি করান লঙ্কান অধিনায়ক। এরপর তামিম ইকবাল ও সাব্বির রহমানের ১০৯ রানের জুটিতে দ্বিতীয় সেশনেই জয়ের সুবাস পাচ্ছিল বাংলাদেশ। ১০৯ রানের জুটি গড়ার পর ধৈর্য হারিয়ে বসেন তামিম। দলীয় ১৩১ রানে দিলরুয়ান পেরেরার বল উড়িয়ে মারতে গিয়ে আউট হন বাংলাদেশি ওপেনার। আউট হওয়ার আগে ১২৫ বলে ৮২ রান করেন তিনি। তামিম আউট হওয়ার পর খুব বেশিক্ষণ উইকেটে থাকতে পারেননি সাব্বিরও। তিন ওভার পরেই ফিরেছেন সাজঘরে। এরপর সাকিব আল হাসান ফিরে গেলে কিছুটা অনিশ্চয়তায় পড়ে যায় বাংলাদেশ। তবে মুশফিকুর রহিম ও মোসাদ্দেক হোসেনের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে শেষ পর্যন্ত জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ।

এর আগে দ্বিতীয় ইনিংসে লঙ্কানদের ৩১৯ রানে অলআউট করে দেয় বাংলাদেশ। আজ পঞ্চম দিনে ব্যাট হাতে মাঠে নেমে দিনের প্রথম এক ঘণ্টা বাংলাদেশের বোলারদের সামনে বুক চিতিয়ে লড়াই করেছেন শ্রীলঙ্কার লোয়ার অর্ডারের ব্যাটসম্যান দিলরুয়ান পেরেরা ও সুরঙ্গা লাকমল। অবশেষে রানআউট হয়ে ফিরছেন পেরেরা। অর্ধশত পূর্ণ হওয়ার পরপরই রানআউট হন পেরেরা।

দিলরুয়ান পেরেরা আউট হওয়ার পর বেশিক্ষণ টেকেননি লাকমলও। সাকিবের বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে আউট হন লাকমল। ৪২ রান করেন এই পেসার।

এর আগে আজ সকালে ব্যাট হাতে নামার সময় ২ উইকেট হাতে রেখে লঙ্কানদের লিডটা ছিল ১৩৯ রানের। ২ উইকেট নিয়ে আজ আরো ৫১ রান যোগ করে স্বাগতিকরা।

শনিবার টেস্টের চতুর্থ দিন লাঞ্চ বিরতির আগপর্যন্ত ভালো অবস্থায় ছিল শ্রীলঙ্কা। একটা সময় এক উইকেটে ১৪০ ছিল লঙ্কানদের স্কোর। তবে লাঞ্চ থেকে ফিরেই দিনটা বাংলাদেশের করে নেন মুস্তাফিজুর রহমান। পরপর তিন উইকেট তুলে নিয়ে লঙ্কানদের বিপদে ফেলে দেন শ্রীলঙ্কাকে। এরপর বাংলাদেশের প্রধান বাধা সেঞ্চুরিয়ান দিমুথ করুনারত্নেকে ফিরিয়ে দেন সাকিব আল হাসান। ১২৬ রান করেন করুনারত্নে।

এরপর হেরাথ আউট হলে জয়ের সুবাস পেতে থাকে মুশফিকের দল। তবে সুরঙ্গা লাকমল ও দিলরুয়ান পেরেরার অদ্যম মানসিকতায় শেষ পর্যন্ত কিছুটা হলেও লড়াইয়ে টিকে ছিল স্বাগতিকরা। তবে আজ সকালের সেশনে লঙ্কানদের বাকি দুটি উইকেট তুলে নিয়ে ঐতিহাসিক শততম টেস্টে বাংলাদেশের জয়টা খুব কাছে নিয়ে চলে আসেন বাংলাদেশের বোলাররা।

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

আপনার মন্তব্য

*

*

Top