ব্যবসা বাড়াতে ৩২০০ একর জমি চেয়েছে পুঁজিবাজারের শিল্পগোষ্ঠী

mirsaraiশেয়ারবাজার রিপোর্ট: চট্টগ্রামের মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে (ইজেড) শিল্পকারখানা করার জন্য ৩ হাজার ২০০ একর জমি চেয়েছে পুঁজিবাজারের বড় শিল্পগোষ্ঠীগুলো। ইতিমধ্যে তারা বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) কাছে জমি চেয়ে আবেদন করেছে। জমি পাওয়ার আশ্বাস পেতে এসব গোষ্ঠীর প্রধানেরা সশরীরে বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যানের সঙ্গে দেখাও করেছেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সরকার ২০৩০ সাল নাগাদ যে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠায় কাজ করছে, তার মধ্যে সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক অঞ্চলটি হবে মিরসরাইতে। এর আকার হবে ৩০ হাজার একর। তবে একসঙ্গে নয়, এটি ৩০ হাজার একরে উন্নীত হবে ধাপে ধাপে। এখন সেখানে মাটি ভরাট, রাস্তাঘাট নির্মাণ ও অন্যান্য অবকাঠামো তৈরির কাজ চলছে।

মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলটিতে বিনিয়োগকারীদের আকর্ষণের কারণ সেখানে গ্যাস ও বিদ্যুৎ পাওয়া সহজ হবে। পাশাপাশি বন্দর সুবিধার দিক দিয়ে সেটি হবে সেরা অর্থনৈতিক অঞ্চল। সেখানে জমি নিতে এককালীন ৫০ বছরের ভাড়া পরিশোধের ক্ষেত্রে প্রতি বর্গমিটার অনুন্নত জমির ইজারামূল্য ধরা হয়েছে শূন্য দশমিক ৩০ ডলার এবং উন্নত জমির মূল্য ধরা হয়েছে দশমিক ৬০ ডলার।

পুঁজিবাজারের শিল্পগ্রুপগুলোর মধ্যে বিএসআরএম ৬০০ একর জমি চেয়েছে ৩০০ মেগাওয়াটের একটি বিদ্যুৎকেন্দ্র ও একটি ইস্পাত কারখানা করার জন্য। মেঘনা গ্রুপের ইউনাইটেড সুগার মিলস মিরসরাইয়ে ১ হাজার ২০০ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতার কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র ও তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) প্ল্যান্ট করতে ৫০০ একর জমি চেয়ে আবেদন করেছে। এসিআই মিরসরাইয়ে ৫০০ একর জমিতে চেয়েছে পশু স্বাস্থ্য পণ্য, প্লাস্টিক, হালকা প্রকৌশল ও সংযোজন শিল্প করতে। বেঙ্গল গ্রুপ চেয়েছে ১ হাজার একর জমি, সেখানে তারা বিভিন্ন ধরনের শিল্পকারখানা করবে বলে বেজাকে জানিয়েছে।

এছাড়া রানার গ্রুপ চেয়েছে ১২৫ একর। মিরসরাইয়ে তারা গাড়ি সংযোজনের কারখানা করবে। সামিট করপোরেশন চেয়েছে ১০০ একর। তারা বিদ্যুৎকেন্দ্র ও এলএনজি টার্মিনাল করতে চায়। এনার্জি প্যাক ও ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টের যৌথ কোম্পানি ৫০০ মেগাওয়াটের বিদ্যুৎকেন্দ্র করতে ৩০ একর জমি চেয়েছে। প্রাণ-আরএফএল গ্রুপ ৩০ একর জমি চেয়েছে কারখানা প্রতিষ্ঠার জন্য।

শেয়ারবাজারনিউজ/আ

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top