ঝুলে আছে ১১ কোম্পানির রাইট ইস্যু

BSECশেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ১১ কোম্পানি রাইট শেয়ার ছাড়ার অনুমোদন ঝুলে রয়েছে। রাইট ইস্যুর ঘোষণা দিয়ে  কোম্পানিগুলো বিশেষ সাধারণ সভায় (ইজিএম) শেয়ারহোল্ডারদের দিয়ে এ বিষয় পাশ করিয়ে নিয়েছে। বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য কোম্পানিগুলো রাইট ইস্যুর আবেদন জমা দিয়েছে। নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদনের পর কোম্পানিগুলো রাইট শেয়ার ছাড়ার পরবর্তীতে কার্যক্রম শুরু করবে।

তবে কিছু কোম্পানির আর্থিক ভীত দুর্বল, রাইট ইস্যু সংক্রান্ত আইনের পরিপূর্ণ পরিপালন না করা ইত্যাদি কারণে অনুমোদন দিচ্ছে না নিয়ন্ত্রক সংস্থা। ইতিমধ্যে একাধিক রাইট ইস্যু বাতিলও করে দেয়া হয়েছে। তবে কোম্পানিগুলোর পক্ষ থেকে পুনরায় রাইট পাওয়ার জন্য চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে জানা গেছে।

বিএসইসি সূত্রে জানা যায়, তালিকাভুক্ত ১১ কোম্পানি বিভিন্ন অনুপাতে রাইট শেয়ার ছাড়ার অনুমোদনের পাইপলাইনে রয়েছে। কোম্পানিগুলো হলো: এবি ব্যাংক, বিচ হ্যাচারি, সেন্ট্রাল ফার্মা, ঢাকা ডাইং, দেশবন্ধু পলিমার, ইস্টল্যান্ড ইন্স্যুরেন্স, গোল্ডেন সন,  জেএমআই সিরিঞ্জ, ম্যাকসন্স স্পিনিং, রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স এবং সাফকো স্পিনিং মিলস লিমিটেড।

গত বছরের ২৭ এপ্রিল প্রিমিয়ামসহ ৫টি শেয়ারের বিপরীতে ৪টি শেয়ার রাইট ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছে এবি ব্যাংক লিমিটেড। সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদ। ১০ টাকা ফেসভ্যালুর সঙ্গে ২.৫০ টাকা প্রিমিয়ামসহ সাড়ে ১২ টাকায় রাইট শেয়ার ছাড়তে চায় এবি ব্যাংক। এর জন্য কোম্পানির বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) গত বছরের ১২ জুলাই অনুষ্ঠিত হয়। তবে অনুষ্ঠিত ইজিএমে প্রিমিয়াম বাদ দিয়ে রাইট অনুমোদিত হয়। অর্থাৎ কোম্পানিটি এখন প্রিমিয়াম ছাড়া রাইট শেয়ার ইস্যুর আবেদন করেছে।

২০১৪ সালের ১০ এপ্রিল বিচ হ্যাচারি ২R:১ অনুপাতে ৭ কোটি ৮৮ হাজার ৫৯ লাখ ৮৮টি রাইট শেয়ার ছাড়ার ঘোষণা দেয়। কোম্পানিটির এ সংক্রান্ত ইজিএম ওই বছরের ১৪ মে অনুষ্ঠিত হয়।

২০১৪ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর সেন্ট্রাল ফার্মা ২R:৫ অনুপাতে ৩ কোটি ২৭ লাখ ৯৮ হাজার রাইট শেয়ার ছাড়ার ঘোষণা দেয়। কোম্পানিটির এ সংক্রান্ত ইজিএম ২৩ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হয়।

২০১৫ সালের ৯ নভেম্বর ঢাকা ডাইং কোন প্রকার প্রিমিয়াম ছাড়া ১.৫R:১ অনুপাতে পরিশোধিত মূলধন বাড়ানোর লক্ষ্যে বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৩ কোটি ৭ লাখ ৩০ হাজার ১৭৯টি রাইট শেয়ার ছাড়ার ঘোষণা দেয়। কোম্পানিটির এ সংক্রান্ত ইজিএম ২৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়।

২০১৪ সালের ৮ সেপ্টেম্বর দেশবন্ধু পলিমার ১R:১ অনুপাতে ৫ কোটি ৫৭ লাখ ৮৬ হাজার ৫০০টি রাইট শেয়ার ছাড়ার ঘোষণা দেয়। কোম্পানিটির এ সংক্রান্ত ইজিএম ১৯ অক্টোবর ২০১৪ অনুষ্ঠিত হয়।

বীমা খাতের ইস্টল্যান্ড ইন্স্যুরেন্স ১R:৩ অনুপাতে ১ কোটি ৯৮ লাখ ৩০ হাজার ৫১২টি রাইট শেয়ার ছাড়ার অনুমোদনের জন্য বিএসইসির কাছে আবেদন করেছে।

২০১৫ সালের ১৫ মে গোল্ডেন সন লিমিটেড ২০ টাকা প্রিমিয়াম ও ১০ টাকা ফেসভ্যালুসহ মোট ৩০ টাকায় ১R:২ অনুপাতে ৮ কোটি ৫৮ লাখ ৬৪ হাজার ৮৮৬টি রাইট শেয়ার ছাড়ার ঘোষণা দেয়। কোম্পানিটির এ সংক্রান্ত ইজিএম ২৭ মে অনুষ্ঠিত হয়।

২০১৪ সালের ১৩ জুলাই জেএমআই সিরিঞ্জ অ্যান্ড মেডিকেল ডিভাইসেস লিমিটেড ২R:১ অনুপাতে ২ কোটি ২০ লাখ রাইট শেয়ার ছাড়ার ঘোষণা দেয়। কোম্পানিটির এ সংক্রান্ত ইজিএম ২২ জুলাই অনুষ্ঠিত হয়।

২০১৪ সালের ১৪ মে ম্যাকসন্স স্পিনিং রাইট শেয়ার মাধ্যমে ১৬২ কোটি ১১ লাখ টাকা উত্তোলনের সিদ্ধান্ত নেয়। এ সংক্রান্ত আবেদনপত্র বিএসইসিতে জমা রয়েছে।

২০১৪ সালের ১৮ মে রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স ১R:১ অনুপাতে ২ কোটি ৭৬ লাখ ৭১ হাজার ৪৯০টি রাইট শেয়ার ছাড়ার ঘোষণা দেয়। কোম্পানিটির এ সংক্রান্ত ইজিএম ১৬ এপ্রিল ২০১৪ সালে অনুষ্ঠিত হয়।

২০১৪ সালের ১০ মে সাফকো স্পিনিং ৩R:২ অনুপাতে ৪ কোটি ৭ লাখ ৬০ হাজার ৫৪৪টি রাইট শেয়ার ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কোম্পানিটির এ সংক্রান্ত ইজিএম ১২ এপ্রিল ২০১৪ সালে অনুষ্ঠিত হয়।

এ ব্যাপারে বিএসইসির একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা শেয়ারবাজারনিউজ ডটকমকে জানান, যেসব কোম্পানি রাইট শেয়ারের অনুমোদনের জন্য আবেদন করেছে সেগুলোর বিষয়ে বিএসইসি পর্যবেক্ষণ করছে। বিশেষ করে আর্থিক প্রতিবেদন, কোম্পানির পরিচালকদের কার্যক্রম ইত্যাদি নিরীক্ষা করছে। ধারাবাহিকভাবে রাইট পাওয়ার যোগ্য কোম্পানিকে অনুমোদন দেয়া হবে বলে জানান তিনি।

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top