২১ কোম্পানির প্রান্তিক প্রতিবেদন প্রকাশ

Arthik Protibadon Reportশেয়ারবাজার ডেস্ক: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ২১ কোম্পানির তাদের তৃতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। কোম্পানিগুলো হলো: হাইডেল বার্গ সিমেন্ট, শাহজালাল ইসলামি ব্যাংক, আজিজ পাইপস, বেঙ্গল উইন্ডসর থার্মোপ্লাস্টিক,শাশা ডেনিমস, আল-হাজ্ব টেক্সটাইল, যমুনা অয়েল, এপেক্স ট্যানারি, লিবরা ইনফিউশন, দুলামিয়া কটন, বিডিকম অনলাইন, এনভয় টেক্সটাইল, মেট্রো স্পিনিং মিলস, মোজাফ্ফর হোসেন স্পিনিং মিলস, সায়হাম টেক্সটাইল, নর্দার্ণ জুট ম্যানুফ্যাকচারিং, ইনফরমেশন টেকনোলজি কনসালট্যান্টস, সাভার রিফ্যাক্টরিজ, এমবি ফার্মা, আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক এবং ম্যাকসন স্পিনিং মিলস লিমিটেড। নিম্নে কোম্পানিগুলোর প্রান্তিক প্রতিবেদনের বিস্তারিত তুলে ধরা হলো:

হাইডেল বার্গ সিমেন্ট

সিমেন্টে খাতের এ কোম্পানির প্রথম প্রান্তিকে (জানুয়ারি’১৭-মার্চ’১৭) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬.৩১ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ১০.৩০ টাকা। অর্থাৎ প্রথম প্রান্তিকে এ কোম্পানির ইপিএস কমেছে ৩.৯৯ টাকা বা ৩৮.৭৪ শতাংশ। প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানির শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১৫.০২ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ২১.০৩ টাকা। ৩১ মার্চ,২০১৭ পর্যন্ত কোম্পানির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১০৫.২৭ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে এনএভিপিএস ছিল ১১২.৫৮ টাকা।

শাহজালাল ইসলামি ব্যাংক লি:

জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত প্রথম প্রান্তিকে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে সমন্বিত ০.৫১ টাকা এবং এককভাবে ০.৪০ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে সমন্বিত ইপিএস ছিল ০.৩৮ টাকা এবং এককভাবে ০.৩৬ টাকা।

আলোচিত সময়ে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে সমন্বিত ১৮.২১ টাকা এবং এককভাবে ১৭.৯০ টাকা।

এছাড়া শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে সমন্বিত ১.৭৫ টাকা এবং এককভাবে ১.৬৩ টাকা।

আজিজ পাইপস: তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই’১৬-মার্চ’১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৩৭ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ০.৭২ টাকা।

এদিকে শেষ তিন মাসে অর্থাৎ জানুয়ারি’১৭ থেকে মার্চ’১৭ পর্যন্ত কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ০.০৬ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ০.০৩ টাকা।

এছাড়া ৯ মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি দায় (এনএভি) হয়েছে ৫৩.৯০ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৯.৩০ টাকা।

বেঙ্গল উইন্ডসর থার্মোপ্লাস্টিক: তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই’১৬-মার্চ’১৭) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২.১০ টাকা। গত বছরের একই সময়ে যা ছিল ২.৩০ টাকা। অর্থাৎ ইপিএস ২০ পয়সা বা ৯ শতাংশ কমেছে।

শেষ তিন মাসে (জানুয়ারি থেকে মার্চ) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ০.৯৫ টাকা। গত বছর একই সময়ে যা ছিল 0.৫৭ টাকা। আলোচিত সময়ের ব্যবধানে কোম্পানিটির ইপিএস ৬৭ শতাংশ বেড়েছে।

শাশা ডেনিমস: তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই’১৬-মার্চ’১৭)  ইপিএস হয়েছে ৩.৭৯ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ৩.৬৩ টাকা।

এদিকে ৯ মাসে শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৪৫.৮৯ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.৪৫ টাকা।

আল-হাজ্ব টেক্সটাইলতৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই’১৬-মার্চ’১৭) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১.৪৪ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ১.০৮ টাকা। আলোচিত সময়ের ব্যবধানে কোম্পানিটির ইপিএস ৩৩ শতাংশ বেড়েছে।

শেষ তিন মাসে (জানুয়ারি থেকে মার্চ) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ০.৬৯ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ০.৪২ টাকা।

এদিকে ৯ মাসে শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৩.৩০ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১ টাকা।

যমুনা অয়েল: তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই’১৬-মার্চ’১৭) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১৫.৬৩ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ১১.৪২ টাকা। আলোচিত সময়ের ব্যবধানে কোম্পানিটির ইপিএস ৩৭ শতাংশ বেড়েছে।

শেষ তিন মাসে (জানুয়ারি থেকে মার্চ) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৩.১৭ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ৩.০৪ টাকা।

এদিকে ৯ মাসে শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৫৮.৯০ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৪৯.৫৪ টাকা।

এপেক্স ট্যানারি: তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই’১৬-মার্চ’১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৫২ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১.৫৯ টাকা।

শেষ তিন মাসে (জানুয়ারি থেকে মার্চ) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.৩১ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৭৭ টাকা।

এদিকে এছাড়া ৯ মাসে শেয়ার প্রতি দায় (এনএভি) হয়েছে ৭২.৩৭ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৯.৩২ টাকা।

লিবরা ইনফিউশন: তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই’১৬-মার্চ’১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪.৮৮ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৫.৬৪ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির আয় কমেছে ০.৮০ টাকা।

এছাড়া ৯ মাসে শেয়ার প্রতি দায় (এনএভি) হয়েছে ১৫৮০.৪৭ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৬.৬৬ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে এনএভি ছিল ১৫৭৭.১৪ টাকা এবং এনওসিএফপিএস ছিল ৩৫.২১ টাকা।

দুলামিয়া কটন:  তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই’১৬-মার্চ’১৭)  কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ২.৬৪ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ২.৫৯ টাকা।

শেষ তিন মাসে (জানুয়ারি থেকে মার্চ) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.৮৪ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ০.৯২ টাকা। আলোচিত সময়ের ব্যবধানে কোম্পানিটির লোকসান কমেছে।

এদিকে এছাড়া ৯ মাসে শেয়ার প্রতি দায় (এনএভি) হয়েছে ২৭.৪২ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.২৫ টাকা (মাইনাস)।

বিডিকম অনলাইন: তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই’১৬-মার্চ’১৭) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১.২০ টাকা। শেষ তিন মাসে (জানুয়ারি থেকে মার্চ) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ০.৫৪ টাকা। এদিকে এছাড়া ৯ মাসে শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৫.১৮ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.৫৮ টাকা।

এনভয় টেক্সটাইল: তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই’১৬-মার্চ’১৭)  কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১.৪১ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ২.৩৯ টাকা। আলোচিত সময়ের ব্যবধানে কোম্পানিটির ইপিএস ৪১ শতাংশ কমেছে।

শেষ তিন মাসে (জানুয়ারি থেকে মার্চ) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ০.৫৩ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ০.৯৩ টাকা। আলোচিত সময়ের ব্যবধানে কোম্পানিটির ইপিএস ৪৩ শতাংশ কমেছে।

এদিকে এছাড়া ৯ মাসে শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৩৭.৮৭ টাকা। যা ৩০ জুন ২০১৬ পর্যন্ত এনএভি হয়েছিল ৩৮.৭৫ টাকা।

এছাড়া ৯ মাসে শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৪৮ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ৩.২৭ টাকা।

মেট্রো স্পিনিং মিলস: তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই’১৬-মার্চ’১৭) মেট্রো স্পিনিংয়ের শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.৪৬ টাকা। যা আগের বছর একই সময় শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.১০ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটি লোকসানে অবস্থান করছে।

এছাড়া নয় মাসে কোম্পানির শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ১.৬৮৯ টাকা (নেগেটিভ) এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৬.২১ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে এনওসিএফপিএস ছিল ০.০০১ টাকা (নেগেটিভ) এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত এনএভিপিএস ছিলো ১৬.১২ টাকা।

এদিকে গত তিন মাসে (জানুয়ারি-মার্চ ১৭) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.১৭ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে লোকসান ছিল ০.০০৭ টাকা।

মোজাফ্ফর হোসেন স্পিনিং মিলস: তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই’১৬-মার্চ’১৭) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী এ কোম্পনির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) শেষ তিন মাসে (জানুয়ারি থেকে মার্চ) ৬৬ শতাংশ বেড়েছে।

জানা যায়, ২০১৬-২০১৭ হিসাব বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি থেকে মার্চ) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ০.৮৩ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ০.৫০ টাকা। আলোচিত সময়ের ব্যবধানে কোম্পানিটির ইপিএস ৬৬ শতাংশ বেড়েছে।

এদিকে ২০১৬-২০১৭ হিসাব বছরের ৯ মাসে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২.০৫ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ১.৯২ টাকা। আলোচিত সময়ের ব্যবধানে কোম্পানিটির ইপিএস ৭ শতাংশ বেড়েছে।

এছাড়া ৯ মাসে শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৮.০৭ টাকা। যা ৩০ জুন ২০১৬ পর্যন্ত এনএভি হয়েছিল ১৬.৩২ টাকা।

এছাড়া ৯ মাসে শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.৮৩ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ১.৬৫ টাকা।

সায়হাম টেক্সটাইল: তৃতীয় প্রান্তিকে সায়হাম টেক্সটাইলের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৮৬ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ১.৫৪ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২৮.৫৩ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ০.৬৫ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ৪.৩৫ টাকা (নেগেটিভ) এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত এনএভিপিএস ছিলো ২৭.৬৭ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.২১ টাকা বা ৩২.৩১ শতাংশ।

গত তিন মাসে (জানুয়ারি-মার্চ ১৭) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৩১ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে আয় ছিল ০.২৭ টাকা।

নর্দার্ণ জুট ম্যানুফ্যাকচারিং: তৃতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত (জুলাই ১৬- মার্চ-১৭) আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির নয় মাসে ইপিএস বেড়েছে ১১২ শতাংশ। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

তৃতীয় প্রান্তিকে নর্দার্ণ জুট লিমিটেডের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৫৩ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ৩৫.১৮ টাকা (নেগেটিভ) এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৮৫.৯৭ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ০.২৫ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ৫.১৪ টাকা (নেগেটিভ) এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত এনএভিপিএস ছিলো ৮৫.৯৪ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.২৮ টাকা বা ১১২ শতাংশ।

গত তিন মাসে (জানুয়ারি-মার্চ ১৭) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪.৭৬ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে লোকসান ছিল ০.৩৪ টাকা।

ইনফরমেশন টেকনোলজি কনসালট্যান্টস: তৃতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত (জুলাই ১৬- মার্চ-১৭) আর্থিক প্রতিবেদন কোম্পানিটির নয় মাসে ইপিএস বেড়েছে ৬৮ শতাংশ। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

তৃতীয় প্রান্তিকে আইটিসির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৮৪ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ১.৪৬ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৮.১৮ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ০.৫০ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ২.৪৫ টাকা (নেগেটিভ) এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত এনএভিপিএস ছিলো ১৯.৩৭ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ০.৩৪ টাকা বা ৬৮ শতাংশ।

গত তিন মাসে (জানুয়ারি-মার্চ ১৭) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৩৭ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে আয় ছিল ০.৩২ টাকা।

সাভার রিফ্যাক্টরিজ: তৃতীয় প্রান্তিকে সাভার রিফ্যাক্টরিজের শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ১.১৬ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ১.৬৮ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ৫.১২ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ০.৯২ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ২.৫৮ টাকা (নেগেটিভ) এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত এনএভিপিএস ছিলো ৬.২৮ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির লোকসান বেড়েছে ০.৭০ টাকা।

গত তিন মাসে (জানুয়ারি-মার্চ ১৭) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.৪৪ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে লোকসান ছিল ০.৩০ টাকা।

এমবি ফার্মা: তৃতীয় প্রান্তিকে এমবি ফার্মার শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.৩২ টাকা, শেয়ার প্রতি কার্যকারী নগদ প্রবাহের পরিমাণ হয়েছে (এনওসিএফপিএস) ৮.৩৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২৪.৫৪ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ২.৫৬ টাকা, এনওসিএফপিএস ছিল ৫.৮৯ টাকা এবং ৩০ জুন, ২০১৬ পর্যন্ত এনএভিপিএস ছিলো ২৪.৮২ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস কমেছে ০.২৪ টাকা।

গত তিন মাসে (জানুয়ারি-মার্চ ১৭) এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৯২ টাকা। যা আগের বছরে একই সময়ে আয় ছিল ০.৫৭ টাকা।

আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক: জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত প্রথম প্রান্তিকে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.১২ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ০.১১ টাকা।

আলোচিত সময়ে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি দায় (এনএভি) হয়েছে ১৫.২৪ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময় শেয়ার প্রতি দায় ছিল ১৪.৮২ টাকা।

এছাড়া শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৪৬ টাকা (মাইনাস)। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ০.৭৪ টাকা (মাইনাস)।

ম্যাকসন স্পিনিং মিলস লিমিটেড: ২০১৬-২০১৭ হিসাব বছরের ৯ মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৯.৭৩ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.২৪ টাকা এবং ৩০ জুন ২০১৬ পর্যন্ত এনএভি হয়েছিল ১৯.৫০ টাকা।

এদিকে গত তিন মাসে (জানুয়ারী-মার্চ’১৭) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ০.০৬ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ০.১১ টাকা।

এছাড়া ৯ মাসে শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.২৪৩ টাকা (মাইনাস)। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ০.৭২৯ টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top