৫ মাসের সর্বোচ্চ লেনদেন

price_upশেয়ারবাজার রিপোর্ট: সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে দেশের উভয় শেয়ারবাজারে সূচকের উত্থানে শেষ লেনদেন। এদিন শুরু থেকে উত্থানের গতি কিছুটা বেশী থাকলেও দিনশেষে সামান্য বেড়েছে সূচক। বৃহস্পতিবার সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বেশীরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। আর টাকার অংকে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) হয়েছে ৫ মাসের  সর্বোচ্চ লেনদেন। ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দেশের বিরজমান রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে। যার ছোঁয়া পুঁজিবাজারে লেগেছে। আর এভাবে সূচক ও লেনদেন বৃদ্ধির ধারা অব্যাহত থাকলে বিনিয়োগকারীরা আস্থা ফিরে পাবেন বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

দিনশেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স ১২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৪৩৭৩ পয়েন্টে। আর ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১০৬০ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৬৬৮ পয়েন্টে। দিনভর ডিএসইতে মোট ৩১০টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৪২টির, কমেছে ১৩৬টির আর অপরিবর্তীত রয়েছে ৩২টি কোম্পানির শেয়ার দর। যা টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ৫৩৮ কোটি ৫২ লাখ ৩১ হাজার টাকা। যা ৫ মাসের সর্বোচ্চ লেনদেন। এর আগে গত বছরের ১৯ নভেম্বর ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৫৭৬ কোটি ৩২ লাখ ৯৪ হাজার টাকা।

এর আগে বুধবার ডিএসই’র ব্রড ইনডেক্স ৬৮ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৪৩৬০ পয়েন্টে। ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ১০ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ১০৬৫ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ১৭ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৬৭০ পয়েন্ট। ওই দিন লেনদেন হয়েছিল ৪৬৯ কোটি ৭৪ লাখ ২০ হাজার টাকা। সে হিসেবে বৃহস্পতিবার ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ৬৮ কোটি ৭৮ লাখ ১১ হাজার টাকা বা ১২.৭৭ শতাংশ।

এদিকে দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সিএসসিএক্স সূচক ৫২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৮২০২ পয়েন্টে। দিনভর সিএসইতে মোট ২৪২টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১১৪টির, কমেছে ১০২টির আর অপরিবর্তীত রয়েছে ২৬টি কোম্পানির শেয়ার দর। যা টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ৩৯ কোটি ৫৪ লাখ ১৭ হাজার টাকা।

এর আগে বুধবার সিএসইএক্স সূচক ১২১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৮১৫০ পয়েন্ট। ওই দিন সিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৩৯ কোটি ০৬ লাখ ৮৭ হাজার টাকা।

শেয়ারবাজার/অ

 

আপনার মন্তব্য

Top