১৭ কোম্পানিতে আইপিও’র হাজার কোটি টাকা অব্যবহৃত

ipoশেয়ারবাজার রিপোর্ট: শেয়ারবাজার থেকে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের মাধ্যমে (আইপিও) উত্তোলিত টাকা সম্পূর্ণ খরচ করতে পারেনি ১৭ কোম্পানি। যদিও আইপিও’র টাকা খরচের জন্য কোম্পানিগুলোর হাতে সময় রয়েছে। এগুলো হলো- রিজেন্ট টেক্সটাইল, ইভিন্স টেক্সটাইল, ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিভিউশন কোম্পানি, প্যাসিফিক ডেনিমস, ইয়াকিন পলিমার, একমি ল্যাবরেটরিজ, আমান ফিড, শাশা ডেনিমস, দ্যা পেনিনসুলা চিটাগাং, শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজ, ফরচুন সু লিমিটেড, ড্রাগণ সোয়েটার অ্যান্ড স্পিনিং মিলস, তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ, সিমটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ, জিপিএইচ ইস্পাত, বাংলাদেশ থাই অ্যালুমিনিয়াম এবং জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশন লিমিটেড।

সূত্র মতে, আইপিওর মাধ্যমে শেয়ারবাজার থেকে ১ হাজার ৯৭৩ কোটি ৩৯ লাখ ১৫ হাজার টাকা তুলেছে ১৭ কোম্পানি। এর মধ্যে কোম্পানিগুলো খরচ করেছে ৯৬৪ কোটি ৮৬ লাখ ৩৮ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ১ হাজার ৯ কোটি ৪০ লাখ ২৫ হাজার টাকা।

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের মাধ্যমে শেয়ারবাজার থেকে রিজেন্ট টেক্সটাইল ১২৫ কোটি টাকা উত্তোলন করেছে। ১৯ জুন, ২০১৭ এর মধ্যে টাকা খরচের সময়সীমা রয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত খরচ করেছে ৪ কোটি ৯৮ লাখ ৪ হাজার টাকা। আর চলতি মাসেই খরচ করতে হবে ১২০ কোটি ১ লাখ ৯৫ হাজার টাকা।

ইভিন্স টেক্সটাইল ১৭ কোটি টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ১২ কোটি ৪৭ লাখ ৩১ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ৪ কোটি ৫২ লাখ ৬৮ হাজার টাকা। কোম্পানিটির হাতে ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৭ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিভিউশন কোম্পানি ২৩৭ কোটি ৬০ লাখ টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ২৩১ কোটি ৮৩ লাখ ২০ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ৫ কোটি ৭৬ লাখ ৭৯ হাজার টাকা। কোম্পানিটির হাতে ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৭ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

প্যাসিফিক ডেনিমস ৭৫ কোটি টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ১৫ কোটি ২৪ লাখ ৪৮ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ৫৯ কোটি ৭৫ লাখ ৫১ হাজার টাকা। কোম্পানিটির হাতে ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

ইয়াকিন পলিমার ২০ কোটি টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ৭ কোটি ৭৩ লাখ ৯৯ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ১২ কোটি ২৬ লাখ টাকা। কোম্পানিটির হাতে ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

একমি ল্যাবরেটরিজ ৪৫৪ কোটি ১৫ লাখ ২০ হাজার টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ১৭৭ কোটি ৭৪ লাখ ৫৪ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ২৭৬ কোটি ৪০ লাখ ৬৫ হাজার টাকা। কোম্পানিটির হাতে ২০ অক্টোবর, ২০১৯ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

আমান ফিড ৭২ কোটি টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ৪৭ কোটি ৭ লাখ ৪২ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ২৪ কোটি ৯২ লাখ ৫৭ হাজার টাকা। কোম্পানিটির হাতে ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

শাশা ডেনিমস ১৭৫ কোটি টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ১৩১ কোটি ৫৬ লাখ ৯৪ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ৪৩ কোটি ৪৩ লাখ ৫ হাজার টাকা। কোম্পানিটির হাতে ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

দ্যা পেনিনসুলা চিটাগাং ১৬৫ কোটি টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ৪৯ কোটি ৬০ লাখ ২৮ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ১১৫ কোটি ৩৯ লাখ ৭১ হাজার টাকা। কোম্পানিটির হাতে ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৮ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজ ২০ কোটি টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ৫ কোটি ৯৪ লাখ ৬৪ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ১৪ কোটি ৫ লাখ ৩৫ হাজার টাকা। কোম্পানিটির হাতে ৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

ফরচুন সুজ ২২০ কোটি টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ১৩ কোটি ১১ লাখ ৬৬ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ৮ কোটি ৮৮ লাখ ৩৩ হাজার টাকা। কোম্পানিটির হাতে ২০ এপ্রিল, ২০১৮ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

ড্রাগণ সোয়েটার অ্যান্ড স্পিনিং মিলস ৪০ কোটি টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ৩৯ কোটি ৭৮ লাখ ৯৩ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ২১ লাখ ৬ হাজার টাকা। কোম্পানিটির হাতে ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ ৬৩ কোটি ৮৭ লাখ ২১ হাজার টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ৫৯ কোটি ৯৮ লাখ ৪৪ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ৪ কোটি ৭৬ লাখ ২৪ হাজার টাকা। কোম্পানিটির হাতে ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

সিমটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ ৬০ কোটি টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ৩২ কোটি ৫ লাখ ৪৯ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ২৭ কোটি ৯৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা। কোম্পানিটির হাতে ২৩ অক্টোবর, ২০১৭ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

জিপিএইচ ইস্পাত ২৬১ কোটি ৯৫ লাখ ৪০ হাজার টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ১৩৪ কোটি ৯১ লাখ ৭৬ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ২৪৮ কোটি ৪৬ লাখ ২২ হাজার টাকা। কোম্পানিটির হাতে ৩১ মে, ২০১৮ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

বাংলাদেশ থাই অ্যালুমিনিয়াম ৫২ কোটি ৩৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ৩৬ কোটি ৮৯ লাখ ৪১ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ১৫ কোটি ৪৪ লাখ ৮ হাজার টাকা। কোম্পানিটির হাতে ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৭ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশন ১১২ কোটি ৪৭ লাখ ৮৪ হাজার টাকা উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে খরচ করেছে ৮৫ কোটি ৩২ লাখ ৩৫ হাজার টাকা। আর এখনও খরচ করতে পারেনি ২৭ কোটি ১৫ লাখ ৪৮ হাজার টাকা। কোম্পানিটির হাতে ৩০ জুন, ২০১৮ পর্যন্ত সময় রয়েছে।

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

আপনার মন্তব্য

*

*

Top