৭ খাতের দাপটে শেষ ভাগে চমক

bazarশেয়ারবাজার রিপোর্ট: সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে দেশের উভয় শেয়ারবাজারে দিনের শেষভাগে চমক দেখালো সূচক। এদিন সূচকের উর্ধ্বমুখী প্রবণতায় শেষ হয় লেনদেন। এর ফলে একদিন পর ফের উত্থানে ফিরলো বাজার। এদিন শুরুতে বিক্রয় চাপে পড়তে থাকে সূচক এবং শেষভাগে ৭ খাতের ক্রয় চাপে টানা বাড়ে। খাতগুলো হলো: ব্যাংক, প্রকৌশল, আর্থিক, জ্বালানী ও বিদ্যুৎ, বিবিধ, বীমা এবং ওষুধ ওরসায়ন। সোমবার সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বেশীরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। আর টাকার অংকে উভয় বাজারে আগের দিনের তুলনায় লেনদেন কিছুটা বেড়েছে। আলোচিত সময় পর্যন্ত ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৫৪০ কোটি টাকা।

গতকাল সূচকের পাশাপাশি কিছুটা কমেছিলো লেনদেন। আর এটা স্বাভাবিক চিত্র। কেননা শেয়ারবাজারে একদিন সূচক কমবে আর একদিন বাড়বে এমনটাই স্বাভাবিক। তবে ধারবাহিক বা মাত্রারিক্ত পতন-উত্থান শেয়ার বাজারের জন্য সুখবর নয়। তাই শেয়ার হোল্ডারের জেনে বুঝে বিনিয়োগের পরামর্শ দিয়েছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

দিনশেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ১৭ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৫৪৭৮ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১২৬২ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ১ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ২০৩২ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩২৮টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৮৩টির, কমেছে ৯১টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৪টি কোম্পানির শেয়ার দর। যা টাকায় লেনদেন হয়েছে ৫৪০ কোটি ৮৮ লাখ ৯২ হাজার টাকা।

এর আগে রোববার ডিএসই ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৬ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ৫৪৬১ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১২৬০ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ০.২৮ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ২০৩১ পয়েন্টে। ওইদিন লেনদেন হয় ৪৭৩ কোটি ৩৯ লাখ ৯০ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ৬৭ কোটি ৯০ লাখ ২ হাজার টাকা বা ১৪.২৬ শতাংশ।

এদিকে দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সাধারণ মূল্যসূচক ৩১ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১০ হাজার ২৬৯ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২৩৭টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৩০টির, কমেছে ৬৯টির ও দর অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৮টির। যা টাকায় লেনদেন হয়েছে ৫১ কোটি ৪৩ লাখ ৭৪ হাজার টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

*

*

Top