বিদেশিদের আগ্রহের তালিকায় ৩৪ কোম্পানি

dseশেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ২৯৭ কোম্পানির মধ্যে ১২৩ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ রয়েছে। এর মধ্যে গত জুন মাসে ৩৪ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে। এছাড়া বিদেশে বিনিয়োগ কমেছে ২৯ কোম্পানিতে আর ৬০ কোম্পানিতে অপরিবর্তীত রয়েছে বিদেশি বিনিয়োগ।

গত জুন মাসে বিদেশি বিনিয়োগ বাড়া কোম্পানিগুলো হলো- একটিভ ফাইন কেমিক্যাল, এ্যাপোলো ইস্পাত, বেলিজিং অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট, বার্জার পেইন্ট বাংলাদেশ, বেক্সিমকো লিমিটেড, বেক্সিমকো ফার্মাসিটিক্যাল, সিটি ব্যাংক, ঢাকা ডাইং, ড্যাফোডিল কম্পিউটার, ডেল্টা ব্রাক হাউজিংফাইন্যান্স, ঢাকা ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক, ফারইস্ট ফাইন্যান্স, গ্রামীণফোন, আইডিএলসি ফাইন্যান্স, ইফাদ অটোস, আইএফআইসি ব্যাংক, মালেক স্পিনিং মিলস, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক, ওরিয়ন ইনফিউশন, পদ্মা ওয়েল, প্রাইম ব্যাংক, সামিট অ্যালায়েন্স পোর্ট লিমিটেপড, সিঙ্গার বাংলাদেশ, সাউথইস্ট ব্যাংক, স্কয়ার টেক্সাটাইল, স্কয়ার ফার্মাসিটিক্যাল, তিাতস গ্যাস, ট্রাস্ট ব্যাংক, ইউনিক হোটেল এবং উত্তরা ব্যাংক লিমিটেড।

ডিএসই তথ্যানুযায়ী, উল্লেখিত কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে সামিট অ্যালায়েন্স পোর্টের। গত মে মাসে কোম্পানিটির বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ০.১৪ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩.৮৬ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ৩.৭২ শতাংশ।

এছাড়া একটিভ ফাইন কেমিক্যালের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৩ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩.০৬ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.০৬ শতাংশ।

এ্যাপোলো ইস্পাতের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৩.২১ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩.২২ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.০১শতাংশ।

বেলিজিং অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্টের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ০.১৫ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ০.৩৬ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.২১ শতাংশ।

বার্জার পেইন্টের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ১.৫২ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২.০৩ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.৫১ শতাংশ।

বেক্সিমকো লিমিটেডের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৯.৪৫ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৯.৬৫ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.২০ শতাংশ।

বেক্সিমকো ফার্মাসিটিক্যালের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৪১.১৮ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪১.৪৫ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.২৭ শতাংশ।

সিটি ব্যাংকের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৮.২৯ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৮.৭৪ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.৪৫ শতাংশ।

ঢাকা ডাইংয়ের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল  শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৯.৬৫ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.২০ শতাংশ।

ড্যাফোডিল কম্পিউটারের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ১.০৫ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১.০৮ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.০৩ শতাংশ।

ডেল্টা ব্রাক হাউজিংফাইন্যান্সের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৩৭.৭১ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩৮.৫৫ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.৮৪ শতাংশ।

ঢাকা ব্যাংকের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ০.১৫ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ০.১৭ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.০২ শতাংশ।

এক্সিম ব্যাংকের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৩.৭২ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩.৮৯ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.১৭ শতাংশ।

ফারইস্ট ফাইন্যান্সের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ০.১১ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ০.০৯ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.০২ শতাংশ।

গত মে মাসে গ্রামীণফোনের বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৩.০৭ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩.১৪ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.০৭ শতাংশ।

আইডিএলসি ফাইন্যান্সের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৫.১৯ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৫.৯৮ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.৭৯ শতাংশ।

ইফাদ অটোসের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল শূণ্য। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ০.০৫ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.০৫ শতাংশ।

আইএফআইসি ব্যাংকের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ২.৩৪ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২.৯৯ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.৬৫ শতাংশ।

মালেক স্পিনিং মিলসের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৫.০৮ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৫.১৬ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.০৮ শতাংশ।

মার্কেন্টাইল ব্যাংকে গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ২.০৪ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২.৪৮ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.৪৪ শতাংশ।

ন্যাশনাল ব্যাংকে গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৩.৫২ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩.৯৭ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.২৫ শতাংশ।

এনসিসি ব্যাংকে গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ০.৮৮ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ০.৯৬ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.০৮ শতাংশ।

ওয়ান ব্যাংকে গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৬.৭৯ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৬.৮৪ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.০৫ শতাংশ।

ওরিয়ন ইনফিউশনের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ০.১৯ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ০.২৬ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.০৭ শতাংশ।

পদ্মা ওয়েলের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ১.৭৫ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১.৮৬ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.১১ শতাংশ।

প্রাইম ব্যাংকে গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ২.১২ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২.৩০ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.১৮ শতাংশ।

সিঙ্গার বাংলাদেশের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৭.৩৯ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৮.২৭ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.৮৮ শতাংশ।

সাউথইস্ট ব্যাংকে গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৬.২৬ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৬.৭৩ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.৪৭ শতাংশ।

স্কয়ার টেক্সাটাইলের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ৬.৭১ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৬.৭৪ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.০৩ শতাংশ।

স্কয়ার ফার্মাসিটিক্যালের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ১৯.২০ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১৯.৭৫ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.৪৫ শতাংশ।

গত মে মাসে তিাতস গ্যাসের বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ২.৫০ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২.৫১ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.০১ শতাংশ।

ট্রাস্ট ব্যাংকে গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ১.৮৩ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১.৮৪ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.০১ শতাংশ।

ইউনিক হোটেলের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ১.৬৮ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১.৭৫ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে ০.০৭ শতাংশ।

উত্তরা ব্যাংকের গত মে মাসে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ ছিল ১.৮৬ শতাংশ। সেখানে জুন মাস শেষে বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২.০৩ শতাংশ। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এ কোম্পানিতে ০.১৭ শতাংশ বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে।

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

 

Tags , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , , ,

আপনার মন্তব্য

One Comment;

  1. Mir Mohammad Saiful Islam said:

    I would like to know about the share distribution percentage of United Airways (BD) Limited. They are showing in their company profile that 12% of their total share are holding 2 foreign institutions.pls, clarify if possible from ur end.

*

*

Top