বাংলাদেশের পুঁজিবাজারের গন্তব্য অনেক দূর

Pathok_2একটি গতিশীল পুজিবাজারের যে কয়টি লক্ষণ থাকে তার সবগুলো বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে বিদ্যমান। বর্তমানে বাংলাদেশের পুঁজিবাজার যে আচরণ করছে তা একটি সুস্থ এবং গতিশীল পুঁজিবাজারের প্রতিচ্ছবি।
.
ইনডেক্সের উঠানামা পুঁজিবাজারের একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। শেয়ারের দাম বেড়ে গেলে দাম সংশোধন হবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু যে বিষয়টি লক্ষণীয় তা হচ্ছে শেয়ার গুলোর দাম যে হারে বাড়ছে সেই হারে কি সংশোধন হচ্ছে? না, দাম যদি ২০% বৃদ্ধি পায় দেখা যায় ৫% সংশোধন হচ্ছে। তারপর আবার দাম বৃদ্ধি পেয়ে আগের সর্বোচ্চ সীমা কে অতিক্রম করছে। এটি একটি ঊর্ধ্বমুখী পুঁজিবাজারের লক্ষণ।
.
✔️ বাজারের ইনডেক্স এক সময় ৪২০০ থেকে ৪৮০০ মধ্যে ঘুরাঘুরি করতো। লক্ষ্য করুন ইনডেক্স ৪২০০ তে চলে আসলেই লেনদেন ২০০ কোটি থেকে ৩০০ কোটিতে আটকে যেত। কিন্তু এখন ইনডেক্স ৫৪০০ থেকে ৫৮০০ মধ্যে ঘুরাঘুরি করছে। লক্ষ্য করুন ইনডেক্স ৫৪০০ চলে আসলেই লেনদেন কিন্তু একেবারে কমে যাচ্ছে।ইনডেক্স এর নিচে নামার জন্য যে শক্তির দরকার তা সে পাচ্ছে না অর্থাৎ ইনডেক্স ৫৪০০ আসলেই শেয়ার বিক্রি করার লোকের অভাব দেখা দিচ্ছে।
✔️ বাজারের অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ার হজম করা হয়ে গেছে। যাকে আমরা শেয়ার ” Dry ” বলে থাকি। সামনের দিন গুলোতে কোম্পানির শেয়ার গুলো তার দামের সর্বোচ্চ সীমা ভাঙ্গা-গড়ার খেলায় ব্যস্ত থাকবে।
.
✔️ বাংলাদেশের পুঁজিবাজারের গন্তব্য অনেক দূর। আর এই দূরের গন্তব্যে কম দামের শেয়ার গুলো সর্বোচ্চ মুনাফা দেবে। কম দামের শেয়ার গুলো কেন সর্বোচ্চ মুনাফা দেবে তা পরে বিস্তারিত লিখব।

তানভীর আহমেদ

শেয়ার বিনিয়োগকারী

উত্তরা,ঢাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top