আগামী মাসেই উৎপাদনে যাবে তসরিফার আইপিও প্রজেক্ট

Tosrifa-Industriesশেয়ারবাজার রিপোর্ট: আগামী মাসে অর্থাৎ সেপ্টেম্বরে উৎপাদনে যাবে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ লি: এর সদ্যসমাপ্ত নতুন কারখানা। আইপিও’র টাকা দিয়ে কারখানাটি তৈরি করা হয়েছে। শিগগিরই উৎপাদন শুরুর তারিখ ঘোষণা এবং স্টক এক্সচেঞ্জগুলোকে অবহিত করা হবে বলে জানিয়েছেন কোম্পানিটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

কোম্পানিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুহিম হাসান শেয়ারবাজারনিউজ ডটকমকে বলেন, আমাদের নতুন কারখানার নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। স্টক এক্সচেঞ্জের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে সকলকেই উৎপাদন শুরুর তারিখ জানানো হবে। কিন্তু এর আগে এ প্রসঙ্গে আর কোন মন্তব্য করবেন না বলে জানান তিনি।

তবে কোম্পানিটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জানান, আগামী মাসেই নতুন কারখানার উৎপাদন শুরু হবে। শিগগিরই এ বিষয়ে ঘোষণা দেওয়া হবে।

এর আগে জুন, ২০১৭ এর মধ্যে নতুন কারখানার উৎপাদন শুরু করা হবে বলে জানানো হয়েছিল। কিন্তু বিভিন্ন জটিলতার কারণে তা পেছানো হয়েছে।

কোম্পানি সূত্র জানায়, আইপিও এবং অন্য উৎস থেকে টাকা এনে গাজীপুরের টঙ্গিতে ডাইং ইউনিট নির্মাণ করা হয়েছে। এর আগে সাব-কন্ট্রাক্টের মাধ্যমে ডাইং এর কাজ করা হতো। এখন থেকে নিজেদের কারখানাতেই ডাইং এর কাজ করা হবে। আর এটিই হবে বাংলাদেশে সর্বপ্রথম পরিবেশ বান্ধব ডাইং ইউনিট। ইতিমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক লিডারশিপ ইন এনার্জি এন্ড এনভারনমেন্টাল ডিজাইন (লিড) এর গ্রীণ সনদ পেয়েছে। নতুন ইউনিটে প্রতিদিন ১৫ হাজার মেট্রিক টন পণ্য উৎপাদন সম্ভব।

এছাড়া নতুন ৫০০টি সেলাই মেশিন স্থাপন করা হয়েছে। এতে বছরে কোম্পানিটির তৈরি পোশাক উৎপাদন ১৪মিলিয়ন বাড়বে।

নতুন কারখানা নির্মাণ এবং সেলাই মেশিন স্থাপনে কোম্পানিটির মোট ১৮৮ কোটি ৫৭ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে। এর মধ্যে আইপিও পূর্ব মূলধন বৃদ্ধির মাধ্যমে এসেছে ৬ কোটি টাকা; আইপিও’র মাধ্যমে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে এসেছে ৬১ কোটি ৮৮ লাখ টাকা; রিটেইনড আর্নিং থেকে এসেছে ৪১ কোটি ৮৪ লাখ টাকা এবং ব্যাংক ঋণের মাধ্যমে ৭৮ কোটি ৮৪ লাখ টাকা সংগ্রহ করা হয়েছে। গত ১০জুন, ২০১৫ তারিখে কারখানা তৈরির কাজ শুরু হয়েছিল।

শেয়ারবাজারনিউজ/আ

 

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top