আপনার হাতে থাকা শেয়ারের দর আরো বাড়বে কিনা জেনে নিন

investorপুঁজিবাজার পৃথিবীর মধ্যে এমন একটা  জায়গা  যেখানে  সবচাইতে বেশী কৌশলী মেধার প্রয়োগ দেখা যায়। এছাড়াও এখানেই দ্রুত পরিবর্তনশীল মেধার প্রতিফলন ঘটে। সুতরাং যারা এই বাজারে  অল্প  সময়ে  লাভের  আশা  করেন  তারা ৯৭ ভাগ  ক্ষতিগ্রস্ত  হন। তাই  সাধারন  বিনিয়োগকারীদের উচিত ডেইলী ট্রেড অথবা সট গেমে না যাওয়া।

এখন কিছু কৌশল দেখা যাক যার মাধ্যমে বুঝা যাবে কোন শেয়ারের দাম আর আপাতত বাড়বে কিনা-

১. যদি দেখা যায় ঐ শেয়ারটি সর্বোচ্চ ভলিউমে লেনদেনে হচ্ছে তাহলে বুঝতে হবে শেয়ারটিতে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বাড়ছে। প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরাও এ শেয়ারে প্রবেশ করছে। তবে এমন পরিস্থিতিতে সর্তকও থাকতে হবে। কারণ কি কারণে বিনিয়োগকারীরা শেয়ারটি সংগ্রহ করছে এ কারণটি খুঁজে বের করতে হবে।

কেননা শেয়ার কালেকশন গেইমের একটা অংশ। এখানে নতুন বিনিয়োগে না গিয়ে হাতে থাকা শেয়ার থেকে মুনাফা সংগ্রহ করা উত্তম।

২.দাম অতিরিক্ত বাড়ার পর ঐ শেয়ারটি পুনরায় কমে সামান্য বৃদ্ধি নিয়ে অবস্থান করে একটি কথা মনে রাখবেন, ঊর্ধ্বমুখী বাজার ব্যাতিত অন্যান্য সময় যখন মার্কেট স্বাভাবিক থাকে তখন কোন কোম্পানি সর্বোচ্চ দরের রেকর্ড গড়লে, তার পর মূল্য সংশোধনের মধ্যে পড়ে। তবে আবারো ঊর্ধ্বমুখী হতে থাকলে সেখানে শেয়ার ভলিউম কেমন হচ্ছে দেখতে পারেন।

৩. বিগত দিনের হাই রেট (সর্বোচ্চ দর) অতিক্রম না করা কিছু কিছু শেয়ার থাকে যারা ঊর্ধ্বমুখী হলেও আগের সর্বোচ্চ দরের কাছাকাছি ঘুরাঘুরি করে। আর হঠাৎই পুরাতন রেকর্ড অতিক্রম করে।

ক্রমেই শেয়ারটির দাম অল্প অল্প করে পতন হওয়া মূল্য সংবেদনশীল তথ্য প্রকাশ ছাড়া (নেগেটিভ) যদি কোম্পানির দর পতন হয়, তবে বুঝতে হবে কোম্পানিটি পরবর্তী দৌড়ের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে।

. বাজারের সূচক পজেটিভ থাকার পরেও দাম আগের হাই রেট না পার হওয়া । সম্প্রতি সময়ে সূচকের রেকর্ড গড়েছে পুঁজিবাজার। কিন্তু অনেক শেয়ার রয়েছে যাদের দরের তেমন উত্থান হয়নি। যদি ওই শেয়ারগুলো আপনার হাতে থাকে ও তাদের ব্যবসায়িক অবস্থা অন্যান্য বছরের মতেই স্বাভাবিক থাকে, তবে বুঝতে হবে আপনার জন্য ইতিবাচক সময় অপেক্ষা করছে।

লেখক ও গবেষকঃ মোঃ আব্দুল মতিন চয়ন ।

গ্লোব সিকিউরটিজ ও ICML রাজশাহী শাখা।

আপনার মন্তব্য

*

*

Top