কোন কোম্পানিতে বিদেশিদের কত বিনিয়োগ দেখে নিন

dseশেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক একচেঞ্জে (ডিএসই) আগস্ট মাসে বিদেশিরা নিট প্রায় ৩২ কোটি টাকার শেয়ার কিনেছেন। এ নিয়ে টানা ১২তম মাসে তাদের নিট কেনার পরিমাণ প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকায় উন্নীত হয়েছে। যদিও জুলাই মাসের তুলনায় তাদের শেয়ার কেনাবেচার পরিমাণ কিছুটা কমেছে।

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, গত মাসে বিদেশিরা মোট ৮৩২ কোটি ৭৪ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা করেছেন। এর মধ্যে কিনেছেন ৪৩২ কোটি ২২ লাখ টাকার এবং বিক্রি করেছেন ৪০০ কোটি ৫২ লাখ টাকার শেয়ার। অর্থাৎ নিট ক্রয় ছিল ৩১ কোটি ৭০ লাখ টাকা। গত জুলাই মাসে তারা বিক্রির তুলনায় বেশি কিনেছিলেন ২০০ কোটি ৩৬ লাখ টাকার। ওই মাসে এক হাজার ৪৯ কোটি ৭৮ লাখ টাকার লেনদেনের মধ্যে ক্রয় ছিল ৬২৫ কোটি এবং বিক্রি ছিল ৪২৪ কোটি ৭১ লাখ টাকার।

এর আগে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা শেয়ারবাজারে গত বছরের সেপ্টেম্বরে ১৪১ কোটি, অক্টোবরে ২১৩ কোটি, নভেম্বরে ১৫৫ কোটি, ডিসেম্বরে ৩৮৫ কোটি ৪৫ লাখ টাকা বেশি শেয়ার কেনেন। চলতি বছরের জানুয়ারিতে ১৮৬ কোটি, ফেব্রুয়ারিতে ২৩৮ কোটি, মার্চে ৩৩০ কোটি, এপ্রিলে ৭০, মে মাসে ১৫৪ কোটি ও জুনে তাদের নিট শেয়ার কেনার পরিমাণ ছিল ৩৯১ কোটি টাকা।

জুলাইয়ের তুলনায় আগস্টে নিট শেয়ার কেনার পরিমাণ কমা ছাড়াও মোট লেনদেনেও বিদেশিদের অংশগ্রহণ কমেছে। গত মাসে ডিএসইতে ১৯ হাজার ৫৮৯ কোটি টাকা মূল্যের শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে। কেনাবেচা উভয়দিক বিবেচনায় বিদেশিদের লেনদেন মোটের ওপর ২ দশমিক ১৩ শতাংশ। গত জুলাই মাসে যা ছিল ২ দশমিক ৫১ শতাংশ। ওই মাসে ডিএসইতে ২০ হাজার ৯২৯ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল।

ডিএসইর প্রকাশিত তথ্যানুযায়ী, তালিকাভুক্ত ২৯৮ কোম্পানির মধ্যে ১২৩টিতে বিদেশিদের বিনিয়োগ ছিল। এর মধ্যে গত মাসে বিদেশিরা শূন্য দশমিক শূন্য ৮ থেকে ১ দশমিক ৬৫ শতাংশ পর্যন্ত বিনিয়োগ বাড়িয়েছেন আইডিএলসি, ডিবিএইচ, ডেফোডিল কম্পিউটার্স, ইফাদ অটোস, সিঙ্গার, ব্যাংক এশিয়া, বেক্সিমকো লিমিটেড এবং সামিট অ্যালায়েন্স পোর্টে। বিপরীতে শূন্য দশমিক ১৭ থেকে ১ দশমিক ৪১ শতাংশ বিনিয়োগ কমিয়েছেন মোজাফফর হোসেইন স্পিনিং, আর্গন ডেনিম, ব্র্যাক ব্যাংক, বারাকা পাওয়ার, বাটা সু, ঢাকা ডাইং, আইপিডিসি, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স, স্কয়ার ফার্মা, আইএফআইসি, ন্যাশনাল ও সিটি ব্যাংক, বিবিএস কেবলস ও ফনিক্স ফাইন্যান্স থেকে।

পর্যালোচনার তথ্য অনুযায়ী, আগস্টে বিদেশিরা সর্বাধিক বিনিয়োগ বাড়িয়েছেন আইডিএলসি ফাইন্যান্সে। কোম্পানিটির মোট শেয়ারে বিদেশিদের অংশ ১ দশমিক ৬৫ শতাংশ বেড়ে ১০ দশমিক ৬৩ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। এর পরের অবস্থানে থাকা ডিবিএইচের মোট শেয়ারে বিদেশিদের অংশ ১ দশমিক ৩২ শতাংশ বেড়ে ৩৯ দশমিক ৮৭ শতাংশে, ডেফোডিল কম্পিউটার্সে এক শতাংশ বেড়ে ২ দশমিক ০৪ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। এ ছাড়া ইফাদ অটোস, সিঙ্গার বাংলাদেশ, ব্যাংক এশিয়া, বেক্সিমকো লিমিটেড এবং সামিট অ্যালায়েন্স পোর্টের মোট শেয়ারে বিদেশিদের অংশ বেড়েছে শূন্য দশমিক ১৮ থেকে শূন্য দশমিক ২৯ শতাংশ।

বিপরীতে মোজাফফর হোসেইন স্পিনিং থেকে বিদেশিরা তাদের বিনিয়োগের প্রায় পুরোটা তুলে নিয়েছেন। গত জুলাই শেষে কোম্পানিটির মোট শেয়ারে বিদেশিদের অংশ ছিল ১ দশমিক ৫২ শতাংশ। গত আগস্ট শেষে তা কমে দাঁড়িয়েছে মাত্র শূন্য দশমিক ১১ শতাংশ। এ ছাড়া আর্গন ডেনিমে বিদেশিদের অংশ ১ দশমিক ০৬ শতাংশ থেকে কমে শূন্য দশমিক ৩৪ শতাংশে নেমেছে। ব্র্যাক ব্যাংকের মোট শেয়ার থেকে বিদেশিদের শেয়ার কমেছে মোটের ওপর শূন্য দশমিক ৬৪ শতাংশ। একইভাবে বারাকা পাওয়ার থেকে কমেছে শূন্য দশমিক ৫৪ শতাংশ, বাটা সু থেকে শূন্য দশমিক ৪৯ শতাংশ।

পর্যালোচনায় আরও দেখা গেছে, বাজার মূলধন বিবেচনায় ১২৩ কোম্পানিতে বিদেশিদের ধারণ করা শেয়ারের বাজারমূল্য ৭৯ কোটি ৮৯ লাখ টাকা কমেছে। চলতি বছরে এটাই প্রথম নেতিবাচক প্রবণতা। গত আগস্ট শেষে তালিকাভুক্ত ১২৩ কোম্পানিতে বিদেশিদের ধারণ করা শেয়ারের বাজারমূল্য ছিল ২৪ হাজার ৪১৭ কোটি টাকা, যা গত জুলাইয়ের শেষে ছিল ২৪ হাজার ৪৯৭ কোটি টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

আপনার মন্তব্য

*

*

Top