২ দিন শেষে বসুন্ধরা পেপারের বিডিংয়ে ১৩৩ জন বিডার ২৭৬ কোটি টাকার বিডিং করেছে

bashundharaশেয়ারবাজার রিপোর্ট: বুক বিল্ডিং পদ্ধিতির মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে অর্থ উত্তোলনের অনুমোদন পাওয়া বসুন্ধরা পেপারস মিলসের বিডিংয়ে দ্বিতীয় দিন শেষে ১৩৩ জন বিডার অংশগ্রহন বা বিড করেছেন। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৪৪ জন কোম্পানিটির শেয়ার পেতে ২৫ টাকা করে দরে বিডিং করেছেন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৮ জন্য ৮০ টাকা দরে বিডিং করেছেন। এছাড়া তৃতীয় সর্বোচ্চ ১১ জন্য ২০ টাকা দরে বিডিং করেছেন।

বসুন্ধরা পেপারস মিলস লিমিটেডের শেয়ার কেনার জন্য নিলাম (Bidding) গতকাল ১৬ অক্টোবর থেকে শুরু হয়েছে। যা চলবে ১৯ অক্টোবর বিকেল ৫টা পর্যন্ত। দ্বিতীয় দিন শেষে ১৩৩ জন যোগ্য বিনিয়োগকারী ২৭৬ কোটি ১৬ লাখ ১৭ হাজার ৬০০ টাকায় ১০০ কোটি ১৩ লাখ ১২ হাজার ৪০০টি শেয়ার কেনার জন্য বিডিং করেছে।

উল্লেখ্য, কোম্পানিটি ২০০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। এর মধ্যে ১২৫ কোটি টাকার শেয়ার বিডিংয়ের মাধ্যমে ইলিজিবল ইনভেস্টররা কিনতে পারবেন।  দেখা যাচ্ছে বিডাররা ১৫১ কোটি ১৬ লাখ ১৭ হাজার ৬০০ টাকা বেশি আবেদন করেছেন।

জানা যায়, বসুন্ধরা পেপারসের বিডিংয়ে প্রতিটি শেয়ারে সর্বনিম্ন ১২ টাকায় ও সর্বোচ্চ ৯০ টাকা দরে বিডিং হয়েছে।  সবোর্চ্চ ৯০ টাকা দরে ২ জন  ইনভেস্টর ৪ কোটি ৯৯ লাখ ৪৬ হাজার শেয়ার কেনার জন্য বিডিং করেছে। আর সর্বনিম্ন ১২ টাকায় ৫ জন  ইনভেস্টর ৮ কোটি ৪৬ লাখ ৯২ হাজার ৭০০ শেয়ার কেনার জন্য বিডিং করেছে।

প্রসঙ্গত, ইলিজিবল ইনভেস্টরদের ৫০ শতাংশ শেয়ার ৬ মাসের জন্য লকইন থাকবে। এর মধ্যে ২৫ শতাংশ শেয়ার ৩ মাস পর বিক্রি করতে পারবেন। বাকি ২৫ শতাংশ শেয়ার ৬ মাস পরে বিক্রি করতে পারবেন। আর এই লকইন পিরিওড শুরু হবে কোম্পানিটির প্রসপেক্টাস অনুমোদনের পর থেকে।

এর আগে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৬১০তম সভায় কোম্পানিটির বিডিংয়ের অনুমোদন দেয়া হয়।

কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে ২০০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। উত্তোলিত অর্থ দিয়ে যন্ত্রপাতি ও সরঞ্চাম ক্রয়, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ এবং আইপিও খরচে ব্যয় করবে।

ইলেকট্রনিক বিডিং সম্পাদনের মাধ্যমে কোম্পানিটির কাট অফ প্রাইস নির্ধারিত হবে। যে দরে শেয়ার ক্রয় করবেন বিডিংয়ে অংশগ্রহনকারী যোগ্য বিনিয়োগকারীরা। আর কাট অফ প্রাইসের ১০ শতাংশ কমে পাবেন সাধারন বিনিয়োগকারীরা।

৩০ জুন ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরের আর্থিক বিবরনী অনুযায়ী শেয়ার প্রতি নেট অ্যাসেট ভ্যালু (রিভ্যালুয়েশন রিজার্ভসহ) হয়েছে ৩০.৪৯ টাকা, শেয়ার প্রতি নেট অ্যাসেট ভ্যালু (রিভ্যালুয়েশন রিজার্ভ ছাড়া) হয়েছে ১৫.৭৯ টাকা এবং শেয়ার প্রতি আয় (ওয়েটেড এভারেজ ) হয়েছে ১.৪৬ টাকা।

উল্লেখ্য, বসুন্ধরা পেপার মিলস বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে টাকা সংগ্রহের লক্ষে গত বছরের ৩০ জুন ‘রোড শো’ সম্পন্ন করেছে। ৫০০ কোটি টাকার অনুমোদিত মূলধনের কোম্পানিটিতে ১৪৭ কোটি টাকার পরিশোধিত মূলধন রয়েছে। কোম্পানিটি ১৯৯৭ সালে বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদন শুরু করে। এরপরে ২০১১ সাল থেকে ২১টি দেশে পণ্য রপ্তানি করে আসছে।

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top