যে কারণে ব্যাংক খাতে রেড সিগন্যাল

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক একচেঞ্জে (ডিএসই) সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে ব্যাংক খাতের প্রায় শতাধিক কোম্পানির শেয়ার দর হারিয়েছে। আজ সোমবার এ খাতে থাকা ৩০ কোম্পানির মধ্যে ১টি কোম্পানির শেয়ার দর বাদে বাকী সব কোম্পানির শেয়ার দর রেড সিগন্যাল দেখা গেছে। আর এ খাতে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর ব্যাপক হারে কমে যাওয়ায় বাজারেও নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বাজারের সার্বিক পরিস্থিতি নির্ভর করে থাকে সাধারণত ব্যাংক খাতের ওপর। এ খাতের কোম্পানির শেয়ার দর কমা থাকায় অনেকেই এর প্রতি আগ্রহ থাকেন। কিন্তু ব্যাংকগুলো ডিসেম্বর ক্লোজিং হয়েছে সামনেই ব্যাংকগুলো তাদের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে লভ্যাংশ ঘোষণা করবে। তাই বিনিয়োগকারীরা যারা মুনাফায় আছে তারা অপেক্ষা করছে ব্যাংকগুলোর ডিভিডেন্ড ঘোষণার উপর। তাই এ খাতে অনেকটাই ধীর গতি দেখা গেছে। তাছাড়া দেশের সব বাণিজ্যিক ব্যাংকের ঋণের লাগাম টানতে যাচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। আর এতে বাজারে সূচক ও লেনদেন কিছূটা কমেছে বলে তারা মনে করছেন।

জানা যায়, বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর ঋণ-আমানত অনুপাত (এডি রেশিও) কমানোর পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। প্রথাগত ব্যাংকগুলোর এডি রেশিও ৮৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৮০.৫০ শতাংশ করা হচ্ছে। ইসলামী ব্যাংকের ক্ষেত্রে এ হার ২ শতাংশ কমিয়ে ৮৮ শতাংশ করা হচ্ছে। বিশেষত অনুৎপানশীল খাতে ঋণ কমাতে ব্যাংকগুলোকে চাপে রাখবে বাংলাদেশ ব্যাংক। এ কারণে শেয়ারবাজারে তারল্য প্রবাহ কমবে বলে ধারণা করছেন শেয়ারবাজার-সংশ্নিষ্টরা।

তারা জানান, তারল্য প্রবাহ কমানোর অর্থই হলো শেয়ার চাহিদা কমবে। চাহিদা কমলে শেয়ার দরও কমবে। এ নিয়ে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা কিছুটা শঙ্কিত। নতুন বিনিয়োগ থেকে হাত গুটিয়ে রাখছেন অনেক প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তিশ্রেণির বড় বিনিয়োগকারী। বিশেষত ব্যাংকগুলো শেয়ারবাজার খাতে ঋণ কমাবে। পাশাপাশি চাহিদার তুলনায় সব ধরনের ঋণের পরিমাণ কমবে বিধায় সুদ হারও বেড়ে যাবে। এ জন্য তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর ঋণের খরচ বাড়বে। সার্বিকভাবে এসব নেতিবাচক প্রভাবের কারণে বিনিয়োগকারীরা কিছুটা শঙ্কিত হয়ে থাকতে পারেন বলে তারা ধারণা করছেন।

বিশ্লেষণে দেখা যায়, ব্যাংক খাতে থাকা ৩০ কোম্পানির মধ্যে আজ সবচেয়ে বেশি শেয়ার দর কমেছে ইস্টার্ন ব্যাংকের। আজ ব্যাংকটির শেয়ার দর ১.৭০ টাকা কমেছে। এরপরের অবস্থানে উঠে এসেছে সিটি ব্যাংক। আজ ব্যাংকটির শেয়ার দর ১.৬০ টাকা কমেছে। আর ১.৩০ টাকা কমে দর কমার তৃতীয় স্থানে রয়েছে ব্রাক ব্যাংক।

এছাড়া এবি ব্যাংকের ০.৬০ টাকা, আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের ০.২০ টাকা, ব্যাংক এশিয়ার ০.৫০ টাকা, ঢাকা ব্যাংকের ০.৩০ টাকা, এক্সিম ব্যাংকের ০.২০ টাকা, ফার্স্ট সিকিউরিটজ ইসলামী ব্যাংকের ০.৪০ টাকা, আইসিবি ইসলামী ব্যাংকের ০.১০ টাকা, আইএফআইসি ব্যাংকের ০.৩০ টাকা, ইসলামী ব্যাংকের ০.৪০ টাকা, যমুনা ব্যাংকের ০.৫০ টাকা, মার্কেন্টাইল ব্যাংকের ০.৬০ টাকা, মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ০.৩০ টাকা,  ন্যাশনাল ব্যাংকের ০.১০ টাকা, এনসিসি ব্যাংকের ০.১০ টাকা, ওয়ান ব্যাংকের ০.৫০ টাকা, প্রিমিয়াম ব্যাংকের ০.১০ টাকা, প্রাইম ব্যাংকের ০.৪০ টাকা, পূবালী ব্যাংকের ০.৫০ টাকা, রূপালী ব্যাংকের ০.১০ টাকা, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের ০.৮০ টাকা, সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকের ০.৪০ টাকা, সাউথইস্ট ব্যাংকের ০.৫০ টাকা, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের ০.১০ টাকা, ট্রাস্ট ব্যাংকের ০.৬০ টাকা, ইউনাইটেড কর্মাসিয়াল ব্যাংকের ০.২০ টাকা এবং উত্তরা ব্যাংকের ০.৪০ টাকা দর কমেছে। আজ শুধু ডাচ-বাংলা ব্যাংকের ০.২০ টাকা দর বেড়েছে।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

আপনার মন্তব্য

Top