সম্পদ ব্যবস্থাপনার শীর্ষে ভিআইপিবি

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: মিউচ্যুয়াল ফান্ডের প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) রিটার্ন ও ডিভিডেন্ড ইয়েল্ড (ইউনিটের বাজার মূল্যে ডিভিডেন্ড প্রদানের হার) বিবেচনায় শীর্ষে রয়েছে সম্পদ ব্যবস্থাপক কোম্পানি ভিআইপিবি অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি লি:।

মিউচ্যুয়াল ফান্ড পরিচালনাকারী সম্পদ ব্যবস্থাপক কোম্পানিগুলোর ২০১৭ সালের পারফরমেন্স মূল্যায়ন করে আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইডিএলসি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

আইডিএলসি’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সম্পদ ব্যবস্থাপক ভিআইপিবি পরিচালিত ফান্ডগুলোর ডিভিডেন্ড ইয়েল্ড হয়েছে ৯.৪০ শতাংশ এবং এনএভি রিটার্ন এসেছে ৩১.৩০ শতাংশ। ভিআইপিবি’র অধীনে থাকা মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মোট সম্পদ ২৪৮ কোটি ৩০ লাখ টাকা।

ভিআইপিবি পরিচালিত ফান্ডগুলো হলো: এনএলআই ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড এবং সাউথইস্ট ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড।

ভিআইপিবি’র পরেই রয়েছে আইসিবি এএমসিএল। তাদের পরিচালিত ফান্ডগুলোর ডিভিডেন্ড ইয়েল্ড হয়েছে ৮.২০ শতাংশ এবং এনএভি রিটার্ন এসেছে ১৩.৩০ শতাংশ। কোম্পানিটির অধীনে থাকা মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মোট সম্পদ ৮০৮ কোটি ৬০ লাখ টাকা।

আইসিবি এএমসিএল পরিচালিত ফান্ডগুলো হলো: প্রাইম ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড; আইসিবি এএমসিএল সেকেন্ড এনআরবি; আইসিবি এএমসিএল থার্ড এনআরবি; আইসিবি এএমসিএল ফার্স্ট অগ্রণী ব্যাংক; আইসিবি এএমসিএল সেকেন্ড; আইসিবি এমপ্লয়েজ প্রভিডেন্ড মিউচ্যুয়াল ফান্ড; আইসিবি এএমসিএল সোনালী ব্যাংক; আইএফআইএল ইসলামিক; ফিনিক্স ফাইন্যান্স ফার্স্ট এবং প্রাইম ব্যাংক ফার্স্ট আইসিবি এএমসিএল মিউচ্যুয়াল ফান্ড।

এরপর রয়েছে সম্পদ ব্যবস্থাপক কোম্পানি এইমস। তাদের পরিচালিত ফান্ডগুলোর ডিভিডেন্ড ইয়েল্ড হয়েছে ৭.৭০ শতাংশ এবং এনএভি রিটার্ন এসেছে ২৩.৩০ শতাংশ। এইমসের অধীনে থাকা মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মোট সম্পদ ৪৫০ কোটি ৯০ লাখ টাকা।

এইমসের অধীনে থাকা ফান্ডগুলো হলো: গ্রামীণ ওয়ান স্কীম টু এবং রিলায়্যান্স ওয়ান মিউচ্যুয়াল ফান্ড।

এরপর রয়েছে স্ট্র্যাটেজিক ইক্যুইটি ম্যানেজমেন্ট লি:। তাদের পরিচালিত ফান্ডগুলোর ডিভিডেন্ড ইয়েল্ড হয়েছে ৬.৮০ শতাংশ এবং এনএভি রিটার্ন এসেছে ৮ শতাংশ। কোম্পানিটির অধীনে থাকা মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মোট সম্পদ ১৫৫ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

স্ট্র্যাটেজিক ইক্যুইটি ম্যানেজমেন্ট পরিচালিত ফান্ডগুলো হলো: এসইএমএল আইবিবিএল শরীয়াহ ফান্ড এবং এসইএমএল লেকচার ইক্যুইটি ম্যানেজমেন্ট ফান্ড।

এরপর রয়েছে এলআর গ্লোবাল বাংলাদেশ অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি লি:। তাদের পরিচালিত ফান্ডগুলোর ডিভিডেন্ড ইয়েল্ড হয়েছে ৬.৪০ শতাংশ এবং এনএভি রিটার্ন এসেছে ১৯.৬০ শতাংশ। কোম্পানিটির অধীনে থাকা মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মোট সম্পদ ১ হাজার ৯২ কোটি ২০ লাখ লাখ টাকা।

এলআর গ্লোবাল পরিচালিত মিউচ্যুয়াল ফান্ডগুলো হলো: এআইবিএল ফার্স্ট ইসলামিক মিউচ্যুয়াল ফান্ড; ডিবিএইচ ফার্স্ট; গ্রীণডেল্টা মিউচ্যুয়াল ফান্ড; এলআর গ্লোবাল বাংলাদেশ মিউচ্যুয়াল ফান্ড; এমবিএল ফার্স্ট এবং এনসিসি ব্যাংক মিউচ্যুয়াল ফান্ড ওয়ান।

তালিকার ষষ্ঠ অবস্থানে রয়েছে রেস অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি লি:। তাদের পরিচালিত ফান্ডগুলোর ডিভিডেন্ড ইয়েল্ড হয়েছে ৩.৩০ শতাংশ এবং এনএভি রিটার্ন এসেছে ২০.৬০ শতাংশ। কোম্পানিটির অধীনে থাকা মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মোট সম্পদ ৩ হাজার ৩০৭ কোটি ২০ লাখ টাকা।

রেস পরিচালিত মিউচ্যুয়াল ফান্ডগুলো হলো: ফার্স্ট জনতা; এবি ব্যাংক ফার্স্ট; ইবিএল ফার্স্ট; ইবিএল এনআরবি; এক্সিম ব্যাংক ফার্স্ট; ফার্স্ট বাংলাদেশ ফিক্সড ইনকাম ফান্ড; আইএফআইসি ব্যাংক ফার্স্ট; পিএইচপি ফার্স্ট; পপুলার লাইফ ফার্স্ট এবং ট্রাস্ট ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড।

তালিকার শেষে রয়েফে ভ্যানগার্ড অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি লি:। তাদের পরিচালিত ফান্ডগুলোর ডিভিডেন্ড ইয়েল্ড হয়েছে ৩ শতাংশ এবং এনএভি রিটার্ন এসেছে ১৭.৭০ শতাংশ। কোম্পানিটির অধীনে থাকা মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মোট সম্পদ ৩৩৭ কোটি ৮০ লাখ টাকা।

ভ্যানগার্ড পরিচালিত মিউচ্যুয়াল ফান্ডগুলো হলো: ভ্যানগার্ড এএমএল বিডি ফাইন্যান্স মিউচ্যুয়াল ফান্ড ওয়ান এবং ভ্যানগার্ড এএমএল রূপালী ব্যাংক ব্যালেন্সড ফান্ড।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/আ

আপনার মন্তব্য

Top