উত্থান যেন আইঁওয়াশ না হয়

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: গত ২ জানুয়ারি থেকে টানা ৫ কার্যদিবস পতনের পর একদিন নামেমাত্র সূচকের উত্থান হয়। তারপর থেকে আবার টানা দুই কার্যদিবস পুঁজিবাজারে ব্যাপক দরপতন হয়। আজ সেই দরপতনকে ঠেকাতে একদিনেই ৭০ পয়েন্ট সূচক বৃদ্ধি পায়। পুঁজিবাজারে বড় দর পতন যেমন আতঙ্কজনক তেমন বড় উত্থানও স্বাভাবিক বাজারের নির্দেশক নয়। আজ সূচকে ব্যাপক উত্থান হলেও দৈনিক লেনদেন হয়েছে ৪০০ কোটির নিচে। তাই উত্থান যেন আঁইওয়াশ না হয় সেই প্রত্যাশা করছেন বিনিয়োগকারীরা।

আজ সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) শুরুতে সামান্য পতন থাকলেও ৩৫ মিনিট পর সম্মলিত ক্রয় প্রেসারে টানা বাড়তে থাকে সূচক। মঙ্গলবার সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। তবে টাকার অংকে লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কিছুটা কমেছে। আজ দিনশেষে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩৮৮ কোটি ৭০ লাখ ৩২ হাজার টাকা।

আজ দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৬০ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৬০৫৭ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৭ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৩৭৬ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ১৭ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ২২২৪ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৩৬টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৪০টির, কমেছে ২৫৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪০টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ৪০৬ কোটি ১৪ লাখ ৩৪ হাজার টাকা।

এর আগের কার্যদিবস অর্থাৎ সোমবার ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৬০ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ৬০৫৭ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৭ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১৩৭৬ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ১৭ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ২২২৪ পয়েন্টে। আর ওইদিন লেনদেন হয়েছিল ৪০৬ কোটি ১৪ লাখ ৩৪ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ১৭ কোটি ৪৪ লাখ ২ হাজার টাকা।

এদিকে, দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সাধারণ মূল্য সূচক সিএসইএক্স ১০৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১১ হাজার ৪১৫ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২২৯টি কোম্পানির ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৬০টির, কমেছে ৫০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৯টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ২৮ কোটি ৫৫ লাখ ৮০ হাজার টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

Top