১১ প্রতিষ্ঠানের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ

শেয়ারবাজার রিপোর্ট:  প্রথম প্রান্তিকের (অক্টোবর-ডিসেম্বর’১৭) এবং অর্ধবার্ষিকের (জুলাই,২০১৭-ডিসেম্বর ২০১৭) সমাপ্ত সময়ের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৯কোম্পানি ও ২ ফান্ড। নিম্নে কোম্পানিগুলোর আর্থিক প্রতিবেদন তুলে ধরা হলো-

বাংলাদেশ ল্যাম্পস লিমিটেড: অর্ধবার্ষিকের (জুলাই,২০১৭-ডিসেম্বর ২০১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৩৭ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৮৪ টাকা।

গত ৩ মাসে (অক্টোবর-ডিসেম্বর‘ ২০১৭) ইপিএস হয়েছে ১.০৩ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে ছিল ০.৫৪ টাকা।

এছাড়া ছয় মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ১০০.৬৯ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৪.৮৯ টাকা।

ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি) লিমিটেড:  অর্ধবার্ষিকের (জুলাই,২০১৭-ডিসেম্বর ২০১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩.৩৯ টাকা এবং এককভাবে ২.৭৭ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে সমন্বিত ইপিএস ছিল ২.১৮ টাকা এবং এককভাবে ১.৯২ টাকা।

এছাড়া ছয় মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৭১.৩৫ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সমন্বিত নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৫৩ টাকা।

এদিকে, গত ৩ মাসে (অক্টোবর-ডিসেম্বর) শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৫২ টাকা এবং এককভাবে ১.৩১ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে সমন্বিত ছিল ১.২৩ টাকা এবং এককভাবে ১.০৬ টাকা।

জিবিবি পাওয়ার: অর্ধবার্ষিকের (জুলাই,২০১৭-ডিসেম্বর ২০১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৬২ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৫৫ টাকা।

এছাড়া শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ২০.২০ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৯৩ টাকা।

ন্যাশনাল টি লিমিটেড: অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’২০১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২৫.১৮ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ২০.৯১ টাকা।

গত ৩ মাসে (অক্টোবর-ডিসেম্বর) ইপিএস হয়েছে ৯.৮৬ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৫.৭৪ টাকা।

এছাড়া ছয় মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৬৬.৩৭ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৪১.১০ টাকা।

যমুনা অয়েল কোম্পানি লিমিটেড: অর্ধবার্ষিকে (জুলাই,২০১৭-ডিসেম্বর ২০১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১২.০৮ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ১২.৪৬ টাকা।

গত ৩ মাসে (অক্টোবর-ডিসেম্বর) ইপিএস হয়েছে ৬.৮৫ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৬.০৩ টাকা।

এছাড়া ছয় মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৭২.২৫ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৩৮.০৩ টাকা।

হামিদ ফেব্রিক্স লিমিটেড: অর্ধবার্ষিকে (জুলাই,২০১৭-ডিসেম্বর ২০১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.০২ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৬০ টাকা।

গত ৩ মাসে (অক্টোবর-ডিসেম্বর) ইপিএস হয়েছে ০.৫৫ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে ছিল ০.৩৩ টাকা।

আনলিমা ইয়ার্ন লিমিটেড: অর্ধবার্ষিকে (জুলাই,২০১৭-ডিসেম্বর ২০১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৩৭ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৫১ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস কমেছে ২৭.৪৫ শতাংশ কমেছে।

গত ৩ মাসে (অক্টোবর-ডিসেম্বর) ইপিএস হয়েছে ০.১৮ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে ছিল ০.৩৫ টাকা।

এছাড়া ছয় মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১০.৮৭ টাকা।

ডেফোডিল কম্পিউটার লিমিটেড: অর্ধবার্ষিকে(জুলাই-ডিসেম্বর ২০১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৩৪ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ১.১৫ টাকা।

গত ৩ মাসে (অক্টোবর-ডিসেম্বর) ইপিএস হয়েছে ০.৭২ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে ছিল ০.৫৯ টাকা।

এছাড়া ছয় মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৪.৫৩ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.২৭ টাকা।

ফরচুন সুজ লিমিটেড: অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর ২০১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৯১ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ০.৮২ টাকা।

গত ৩ মাসে (অক্টোবর-ডিসেম্বর) ইপিএস হয়েছে ০.৪৯ টাকা। এর আগের বছরের একই সময়ে ছিল ০.৪৬ টাকা।

এছাড়া ছয় মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৪.৫২ টাকা এবং শেয়ার প্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.১৪ টাকা।

এশিয়ান টাইগার সন্ধানী লাইফ গ্রোথ ফান্ড: অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর১৭) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি আয় (ইপিইউ) হয়েছে ০.৪৩ টাকা। যা আগের বছর একই সময় ছিল ০.৪০ টাকা।

এছাড়া আলোচিত সময়ে ইউনিট প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো দাঁড়িয়েছে ০.৩৮ টাকা । যা আগের বছর একই সময় ছিল ০.৪১ টাকা।

৩১ ডিসেম্বর ২০১৭ সমাপ্ত সময়ে বাজার মূল্য অনুযায়ী ফান্ডটির ইউনিট প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৪.১৭ টাকা, যা ৩০ জুন ২০১৭ সমাপ্ত সময়ে ছিল ১৪.০২ টাকা। আর ৩১ ডিসেম্বর ২০১৭ সময়ে ক্রয় মূল্য অনুযায়ী ফান্ডটির ইউনিট প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১১.৮৪ টাকা, যা ৩০ জুন ২০১৭ সমাপ্ত অর্থবছরে ছিল ১২.৯৬ টাকা।

এদিকে গত তিন মাসে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’১৭) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি আয় (ইপিইউ) হয়েছে ০.৩৯ টাকা। যা আগের বছর একই সময় লোকসান ছিল ০.৪৩ টাকা।

ভ্যানগার্ড এএমএল বিডি ফাইন্যান্স মিউচ্যুয়াল ফান্ড ওয়ান: প্রথম প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর’১৭) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি আয় ইপিইউ) হয়েছে ০.৪৭ টাকা। যা আগের বছর একই সময় লোকসান ছিল ০.০৮ টাকা।

এছাড়া আলোচিত সময়ে ইউনিট প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো দাঁড়িয়েছে ০.০২ টাকা। যা আগের বছর একই সময় ছিল ০.১০ টাকা।

৩১ ডিসেম্বর ২০১৭ সমাপ্ত সময়ে বাজার মূল্য অনুযায়ী ফান্ডটির ইউনিট প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১২.২৩ টাকা, যা ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ সমাপ্ত সময়ে ছিল ১২.৪৬ টাকা। আর ৩১ ডিসেম্বর ২০১৭ সময়ে ক্রয় মূল্য অনুযায়ী ফান্ডটির ইউনিট প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১০.৯২ টাকা, যা ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ সমাপ্ত অর্থবছরে ছিল ১১.৪৫ টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top