কেটে যাবে শঙ্কা: ঘুড়ে দাঁড়াবে পুঁজিবাজার

মুদ্রানীতি ঘোষণার আগে অনেকেরই মনে নানা নেতিবাচক চিন্তা-ধারা ঘুরপাক খেয়েছে। কিন্তু পুঁজিবাজার বান্ধব মুদ্রানীতি ঘোষণার ফলে সেই নেতিবাচক চিন্তা-ধারা ইতিবাচকে রুপান্তর হয়েছে। এবারের মুদ্রানীতিতে পুঁজিবাজারকে বিশেষভাবে গুরুত্ব দেয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংককে বিভিন্ন মহল থেকে সাধুবাদও জানানো হয়েছে। আর মুদ্রানীতির ইতিবাচক প্রভাব শিগগিরই বাজারে পড়বে এমনটাই প্রত্যাশা করছে বিশেষজ্ঞরা।

তবে আজ কেন বাজারে এতো দরপতন হলো? এমন প্রশ্ন আশাটাই স্বাভাবিক। বাজারে সার্বক্ষণিক জড়িত থাকা বিভিন্ন হাউজ ও মার্চেন্ট ব্যাংকের কর্মকর্তাদের মতে, এমনিতেই মাসের শেষে অনেকের লোন থাকে। সেগুলোকে অ্যাডজাষ্ট করার জন্য অনেক সময় লোকসানেও শেয়ার বিক্রি করতে হয়। এতে বাই এর চেয়ে সেলের প্রেসার বেশি দেখা যায়। তবে বর্তমান শঙ্কা কেটে যাবে। শিগগিরই পুঁজিবাজারে আলোর মুখ দেখতে পাবে বিনিয়োগকারীরা।

কারণ ফেব্রুয়ারির শুরু থেকেই লিজিং কোম্পানিগুলোর ডিভিডেন্ড আসতে শুরু করবে। বেশির কোম্পানির এবারের গ্রোথ অনেক ভালো হয়েছে। এছাড়া ব্যাংক,বীমার ডিভিডেন্ডতো আছেই। অধিকাংশ ব্যাংকের মুনাফা বেড়েছে। তাই এসব কোম্পানিতে বিনিয়োগকারীদের ভালো আগ্রহও থাকবে। যার ইতিবাচক প্রভাব বাজারে পড়বে।

এখন আমাদের প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী বিশেষ করে ফান্ড ম্যানেজারদের আরো দায়িত্বশীল হলেই প্রাণ ফিরে পাবে পুঁজিবাজার। সম্পূর্ণ প্রফেশনালি সবাই কাজ করলে এ মার্কেটে বিপুল পরিমাণ অর্থ আসতে বাধ্য। বড় বিনিয়োগকারী বা বিদেশি বিনিয়োগ আনার ক্ষেত্রে ফান্ড ম্যানেজারদের দায়িত্ব অনেক। তারা বিদেশি বিনিয়োগ আনতে বিভিন্নভাবে তাদেরকে প্রভাবিত করে। আর আমাদের দেশের ফান্ড ম্যানেজারদের দক্ষতা বৃদ্ধি পেলে পুঁজিবাজার অনেক দূর এগিয়ে যাবে। খবর পাওয়া গেছে, সম্প্রতি দেশের শীর্ষস্থানীয় এক ফান্ড ম্যানেজারের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের কাছে বেশকিছু বিদেশি বিনিয়োগকারী সাক্ষাত করেছেন। সেই ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাদেরকে বর্তমান বাজার সম্পর্কে এমনভাবে অনুপ্রাণিত করেছেন যে একজন বিনিয়োগকারী বলেছেন এই মার্কেটে তার ৩০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ রয়েছে। তিনি সামনে আরো ৫ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে।

যদিও সকলের দক্ষতা একরকম হবে না। কিন্তু বর্তমান বাজারে বিনিয়োগ করার জন্য বিনিয়োগকারীদের উল্টা-পাল্টা না বুঝিয়ে বরং অনুপ্রাণিত করতে হবে। আমরা যদি নিজেরাই আমাদের প্রতি আস্থা রাখতে না পারি তাহলে বাইরের লোকেরা কিভাবে আস্থা পাবে। অনেক বিনিয়োগকারী হাতে টাকা নিয়ে সাইডলাইনে বসে রয়েছেন। মার্কেটটা একটু পজেটিভ মুভমেন্টে গেলেই তারা বিনিয়োগে আসবে। তাই বিনিয়োগকারীদের আতঙ্কের কিছু নেই।

 

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

 

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top