বুক বিল্ডিংয়ে কারসাজি বন্ধে যে নির্দেশনা দিল বিএসইসি

শেয়ারবাজার ডেস্ক: বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে কোন কোম্পানির শেয়ার দর নির্ধারণে বিডিংয়ে অংশ নিতে চাইলে সংশ্লিষ্ট যোগ্য বিনিয়োগকারীকে দুই সদস্যের ‘বিডিং রিকমেন্ডেশন কমিটি’ গঠন করতে হবে। যোগ্য বিনিয়োগকারীরা এই কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী বিডিংয়ে শেয়ার দর প্রস্তাব করবে।

আজ অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের সভায় এ বিষয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

নিলাম কমিটি বুক বিল্ডিংয়ে আসা কোম্পানির রেড হেয়ারিং প্রসপেক্টাস বিস্তারিত পর্যালোচনা করবে। কোম্পানির মালিকানা, আর্থিক বিবরণী, পণ্য, ব্যবসা, ম্যানেজমেন্ট এবং ভবিষ্যতসহ সার্বিক বিষয় পর্যালোচনা করে শেয়ার দর ও পরিমাণ নির্ধারণে সুপারিশ প্রস্তুত করবে। সেই সুপারিশের ভিত্তিতে যোগ্য বিনিয়োগকারী নিলামে অংশ নেবে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, এই কমিটি সংশ্লিষ্ট বিষয়ে দক্ষতা সম্পন্নদের নিয়ে গঠন করতে হবে। কমিটি স্বাধীন এবং পূর্ণ পেশাগত মনোভাবের সঙ্গে কাজ করবে। কমিটির সুপারিশ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে সংরক্ষণ করতে হবে।

নিলামের অংশ নেওয়ার প্রথম ২ দিনের মধ্যেই ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে কমিটির সুপারিশ প্রতিবেদন জমা দিতে হবে। এখানে যে প্রতিষ্ঠান যে দিন থেকে নিলামে অংশ নেবে; তার ২ দিনের মধ্যে এই প্রতিবেদন জমা দিতে হবে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ নিলামের প্রতিবেদন ৭ কার্যদিবসের মধ্যে বিএসইসির কাছে জমা দেবে।

কমিটির সুপারিশ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ছাড়া অন্য যোগ্য বিনিয়োগকারী এমনকি ইস্যুয়ার কোম্পানি এবং ইস্যু ম্যানেজারকেও জানানো যাবে না। নিলাম শেষ না হওয়া পর্যন্ত এসব সুপারিশ অত্যন্ত গোপনীয় থাকবে।

এই নিলামে দর নির্ধারণের ক্ষেত্রে যদি কোনো অনিয়ম করা হয় তবে কঠোর আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে কমিশন।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/আ

আপনার মন্তব্য

Top