কচ্ছপের পেটে সৌভাগ্যের ৯১৫টি কয়েন!

শেয়ারবাজার ডেস্ক: আমাদের দেশের বিভিন্ন মাজারে ছোট ছোট অনেক পুকুর দেখতে পাওয়া যায়। সেখানে মানুষ অনেকসময় নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তনের নিমিত্তে পানিতে অনেক কিছু ফেলে আসে। তবে এতে আসলেই কতটা কাজ হয়, তা কি কেউ জানে? আসলে তা কি ভয়াবহ হতে পারে তা নিয়ে আজকের এই প্রতিবেদন।

গত দু’দশক ধরে থাইল্যান্ডের ছোনবুড়ি প্রদেশের একটি পার্কের ছোট্ট পুকুরে থাকত ২৪ বছরের ‘ওমসিন’ নামের কচ্ছপটি। তার পেট থেকেই এবার বেরোল ৯১৫টি কয়েন। ঠিক যেন আস্ত একটি ‘পিগিব্যাঙ্ক’। আসলে এই কয়েনগুলো নিজেদের সৌভাগ্যের জন্য অনেকে ওই পুকুরটিতে ফেলতেন। কিন্তু তারা জানতেন না ওই কয়েনগুলো আসলে চলে যেত কচ্ছপটির পেটে। নিজেদের সৌভাগ্যের জন্য অনেকেই ছোট্ট পুকুরটিতে ফেলতেন কয়েন। কিন্তু তাদের সৌভাগ্যর কয়েনই যে অন্য কারো দুর্ভাগ্য নিয়ে আসতে পারে, সেটা কেউ ভাবেননি।

কয়েক দিন আগে তার বর্মটিতে ফাটল দেখা দেয়ায় ব্যাংককে পশুচিকিৎসকদের কাছে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল কচ্ছপটিকে। কিন্তু এক্স-রে করার পর সামনে আসে এই ভয়ানক ব্যাপারটি। দেখা যায় কচ্ছপটির পাকস্থলীতে জমে রয়েছে কয়েনের পাহাড়। কয়েনগুলোর মধ্যে বিভিন্ন দেশের মুদ্রা রয়েছে। চুলালঙকর্ন হাসপাতালে প্রায় সাত ঘণ্টা ধরে অস্ত্রোপচারের পর কচ্ছপটির পেট থেকে কয়েনগুলো বের করা হয়।

পশুচিকিৎসক ডঃ নান্ত্রিকা চ্যানসুয়ে বলেন, ‘মোট ৯১৫টি কয়েন কচ্ছপটির পাকস্থলিতে ছিল। আমরা একটি একটি করে কয়েন বের করি। আপাতত কচ্ছপটি সুস্থ রয়েছে। তবে প্রায় দু’সপ্তাহ তাকে চিকিৎসাকেন্দ্রে রাখা হবে।’

হাসপাতালের অধ্যক্ষ রুনগ্রজ থানাওংনুভেজ বলেন, ‘একটি কচ্ছপ সাধারণত আশি বছর অবধি বাঁচতে পারে। আর অনেকেই বিশ্বাস করে, ওই পুকুরটিতে কয়েন ফেললে সৌভাগ্য আসবে বা আয়ু বাড়বে। কিন্তু আসলে এটা একটি প্রাণীকে অত্যাচার করা ছাড়া আর কিছুই নয়।’

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

*

*

Top